সৌদির হাসপাতালে বাংলাদেশি যুবকের লাশ, পরিবার বলছে হত্যা

Barisal Crime Trace -IS
প্রকাশিত মে ৯ সোমবার, ২০২২, ০৭:১২ অপরাহ্ণ
সৌদির হাসপাতালে বাংলাদেশি যুবকের লাশ, পরিবার বলছে হত্যা

অনলাইন ডেস্কঃ সৌদি আরবের একটি হাসপাতাল থেকে হাসিবুল হাসান মুন্সী নামে কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার এক যুবকের রক্তাক্ত লাশ উদ্ধার করেছে দেশটির পুলিশ। রোববার হাসিবুল হাসান মুন্সীর মা নাসিমা বেগম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। ছেলেকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে বলেও দাবি করছেন নাসিমা বেগম।

এদিকে পরিবারের বড় ছেলেকে হারিয়ে চোখে-মুখে অন্ধকার দেখছেন বাবা-মা। লাশটি দেশে আনার ব্যবস্থার দাবি জানিয়ে আহাজারি করছে ছেলেহারা পরিবার।

হাসিবুল হাসান মুন্সীর বাড়ি কুমিল্লা জেলার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল ইউনিয়নের নাগাইশ গ্রামে। ওই গ্রামের আবদুল হান্নান মুন্সীর বড় ছেলে সে। মা-বাবা স্ত্রী ও দুই কন্যাসন্তানসহ অনেকে রয়েছেন দেশে।

রোববার সৌদি আরবের মক্কা এলাকার একটি হাসপাতাল থেকে তার লাশ উদ্ধার করে সেখানকার পুলিশ। হাসিবুল হাসান মুন্সীর সহকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে তেমন কোনো সদুত্তর পাওয়া যায়নি। হাসিবুল হাসান মুন্সী তিন দিন নিখোঁজ ছিলেন বলে জানা যায়।

পরিবারের সদস্যদের দাবি হাসিবুল হাসান মুন্সীকে হত্যা করা হয়েছে। কিন্তু মরদেহ রাস্তার পাশে ফেলে রেখে গাড়িচাপায় মৃত্যু হয়েছে বলে প্রচার করছে সেখানকার মালিকপক্ষ।

বাংলাদেশি প্রবাসী শামীম মোবাইল ফোনে জানান, শুক্রবার জুমার নামাজের পর হাসিবুল হাসান মুন্সী মারা গেছে। আমি রোববার রাতে খোঁজ নিয়ে জানতে পেরেছি। তাৎক্ষণিক বিষয়টি দেশে জানানোর চেষ্টা করেছি।

নিহতের মা নাসিমা বেগম জানান, সৌদিতে বৃহস্পতিবার সকালে ছেলের সঙ্গে তিনি মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন। পরের দিন শুক্রবার ভোরে স্ত্রীর সঙ্গেও কথা বলেছেন বলে জানান। এরপর থেকে বাড়ি থেকে চেষ্টা চালিয়েও তার সঙ্গে টানা তিন দিন যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। এতে নিহতের খালু শ্বশুরকে কর্মস্থলে পাঠানো হয়। সেখানে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে হাসপাতাল মর্গে গিয়ে তার লাশ দেখতে পান।

পারিবারিক সূত্র জানায়, প্রায় ১৫ বছর আগে স্থানীয় আত্মীয়ের মাধ্যমে চাকরির জন্য হাসিবুল হাসান মুন্সী সৌদি আরবে পাড়ি জমান। তবে গত তিন মাস আগে দেশে এসে আবার তার কর্মস্থল প্রবাসে চলে যান তিনি।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]