বাকেরগঞ্জে ব্যবসায়ীর হাতের রগ কর্তন: মূমূর্ষূ অবস্থায় ঢাকা প্রেরণ


Barisal Crime Trace -IS প্রকাশের সময় : জুন ২৫, ২০২২, ৭:০৬ অপরাহ্ণ /
বাকেরগঞ্জে ব্যবসায়ীর হাতের রগ কর্তন: মূমূর্ষূ অবস্থায় ঢাকা প্রেরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাকেরগঞ্জের চরাদী ইউনিয়নের বলইকাঠীতে ইকবাল হোসেন সেন্টু মল্লিক নামে এক ব্যবসায়ীর হাতের রগ কেটে দিয়েছে সন্ত্রাসীরা। এর পরে তাকে লোহার রড ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে মৃত ভেবে ফেলে রাখে। স্থানীয়রা উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে অবস্থা আরো অবনতি হলে গুরুতর আহত সেন্টুকে ঢাকায় চিকিৎসা গ্রহণের পরামর্শ দেন শেবাচিমের কর্তব্যরত চিকিৎসক। বিকেলে বিমান যোগে মুমুর্ষ অবস্থায় সেন্টু মল্লিককে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নিয়ে যান স্বজনরা। শনিবার সকাল ৯টার দিকে বলইকাঠী মল্লিক বাড়ির পার্শ্বে এই হামলার ঘটনা ঘটে। সেন্টু মল্লিক বলইকাঠী এলাকার বীর মুক্তিযোদ্ধা মৃত ইউনুছ মল্লিকের ছেলে।
আহতর স্বজনরা জানান, সকালে সেন্টু মল্লিক তার জমির কাছে যায়। এ সময় পূর্ব বিরোধের জেরে পরিকল্পিত ভাবে ধারালো অস্ত্র ও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে হামলা চালায় সন্ত্রাসীরা। পরিকল্পিত এই হামলায় ধারালো অস্ত্র সহ অংশ নেয় বলইকাঠী ইয়াছিন হাওলাদের পুত্র মোজাম্মেল ও জলিল, খোকন ডাকাতের স্ত্রী শাহানাজ বেগম, ইব্রাহীম হাওলাদারে পুত্র মিজান, আমীর আলীর পুত্র শিপলু, এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী বিপুল, রায়হান, কাশেম, বিউটি সহ বেশ কয়েকজন। তারা ব্যবসায়ী সেন্টুকে মৃত ভেবে ফেলে রেখে যায়। হত্যার উদ্দেশ্যেই পূর্ব পরিকল্পিতভাবে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে অভিযোগ করেন স্বজনরা।
চরাদী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য এ.কে আজাদ চুন্নু বলেন, আমি হামলার খবর পেয়ে গিয়ে দেখি সেন্টু মল্লিক গুরুতর আহত। উদ্ধার করে তাকে শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে যাই। তার বাম হাতের রগ কেটে গেছে। চিকিৎসকদের পরামর্শে বিকেলে বিমান যোগে তাকে ঢাকা পাঠানো হয়েছে।
এ ব্যাপারে বাকেরগঞ্জ থানার ওসি আলাউদ্দিন মিলন বলেন, আমরা খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি। তবে এখন পর্যন্ত কারো কাছ থেকে কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।
খবর পেয়ে হামলায় আহতের খোঁজখবর নেন বলইকাঠীর কৃতিসন্তান ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক নেতা জাহিদুল আলম ওয়াসিম। তিনি আহত সেন্টু মল্লিকের চাচাতো ভাই। ঢাকায় নিটোর পঙ্গু হাসপাতালে নিয়ে গেলে সেখানে তার দ্রুত চিকিৎসা প্রদান ও সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহণে তৎপর রয়েছেন তিনি।
মূমূর্ষূ রোগীর চিকিৎসার পাশাপাশি আইনি ব্যবস্থা গ্রহণের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন সেন্টু মল্লিকের পরিবার।