এবার ঢাকাগামী লঞ্চে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

Barisal Crime Trace -FF
প্রকাশিত জুলাই ৪ সোমবার, ২০২২, ১২:০৫ অপরাহ্ণ
এবার ঢাকাগামী লঞ্চে গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ

ক্রাইম ট্রেস ডেস্ক : স্বামীর কাছে নেওয়ার কথা বলে বরিশাল থেকে ঢাকাগামী একটি লঞ্চে এক গৃহবধূকে (২২) সংঘবদ্ধ ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা করা হয়েছে।

ভুক্তভোগীর অভিযোগ, প্রেম করে এক পোশাক শ্রমিককে বিয়ে করেন তিনি। পরে সংসার করতে চলে আসেন ঢাকায়।

বিয়ের কিছুদিন পরেই বুঝতে পারেন তাঁর স্বামী দেহ ব্যবসায় জড়িত। এরই মধ্যে এক কন্যাসন্তানের জন্ম দেন তিনি। কিন্তু তাঁকে রেখে অন্য এক নারীর সঙ্গে পালিয়ে যান তাঁর স্বামী। বাধ্য হয়ে বরিশালে বাবার বাড়িতে আশ্রয় নেন তিনি। গত ২২ জুন ইব্রাহিম নামের এক ব্যক্তি ভুক্তভোগীর বাড়িতে এসে নিজেকে তাঁর স্বামীর খালাতো ভাই হিসেবে পরিচয় দেন। ভুক্তভোগীর স্বামী এখন চট্টগ্রামে আছেন এবং তাঁকে নেওয়ার জন্য পাঠিয়েছেন বলে জানান। এক পর্যায়ে মোবাইল ফোনে ভুক্তভোগীর সঙ্গে স্বামী পরিচয় দেওয়া এক ব্যক্তির আলাপ করিয়ে দেন ইব্রাহিম।

ওই ব্যক্তি বলেন, ভুক্তভোগী ও কন্যাশিশুর জন্য চট্টগ্রামে অপেক্ষা করছেন এবং খালাতো ভাই ইব্রাহিমের সঙ্গে চট্টগ্রামে চলে আসতে বলেন। পরে ২৩ জুন ইব্রাহিমের সঙ্গে লঞ্চের কেবিনে চড়ে বরিশাল থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। রাতেই ভুক্তভোগীকে ধর্ষণ করেন ইব্রাহিম। ভুক্তভোগীর স্বামীর সঙ্গে চট্টগ্রামে কাজ করেন, এমন পরিচয় দিয়ে আরো দুজন কেবিনে আসেন। পরে তাঁরাও ভুক্তভোগীকে ধর্ষণ করেন। পরদিন ভোরে সদরঘাট থেকে রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে নেওয়া হয় তাঁকে। সেখান থেকে বাসে করে চট্টগ্রামে যান তাঁরা। পরে আকবরশাহ থানা এলাকার অলংকার বাসস্ট্যান্ডে ভুক্তভোগীকে রেখে পালিয়ে যান তিন অভিযুক্ত। পরে আকবরশাহ থানায় গিয়ে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী।

আকবর শাহ থানার ওসি ওয়ালী উদ্দিন আকবর বলেন, ওই গৃহবধূকে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ইব্রাহিমসহ তিনজনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। মামলাটি তদন্ত করছে নৌ পুলিশ।

ঢাকার দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ থানায় মামলা রেকর্ড হওয়ার বিষয়টি গতকাল সন্ধ্যায় নিশ্চিত করেছেন ওই থানার ওসি। তিনি বলেন, ‘মামলাটি নৌ পুলিশ তদন্ত করবে। ’ পরে সদরঘাট নৌ পুলিশের সঙ্গে মোবাইল ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও কলটি রিসিভ হয়নি। এ কারণে মামলার অগ্রগতি সম্পর্কে বিস্তারিত জানা যায়নি।

লক্ষ্মীপুরে বাসে ধর্ষণচেষ্টা মামলার আসামি গ্রেপ্তার : লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে বাসে ধর্ষণচেষ্টা মামলায় এমরান হোসেন নামের এক আসামিকে গ্রেপ্তারের পর কারাগারে পাঠানো হয়েছে। শনিবার রাত ১টার দিকে তাঁকে চট্টগ্রামের ডবলমুরিং থানা এলাকার একটি নির্মাণাধীন ভবন থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। গতকাল রবিবার দুপুরে রামগঞ্জ থানার ওসি এমদাদুল হক বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তার এমরান রামগঞ্জ পৌরসভার কাজীরখিল গ্রামের আখন্দবাড়ির বেলাল হোসেনের ছেলে। পুলিশ জানায়, গত ৩ জুন রামগঞ্জ বাস টার্মিনালে চট্টগ্রামগামী নীলাচল নামের একটি বাসে ওই বাসের সহকারী আজাদ হোসেন ও এমরান হোসেনসহ তিনজন এক গৃহবধূকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে আজাদকে আটক করে। পরে গৃহবধূ তিনজনের নামে রামগঞ্জ থানায় ধর্ষণচেষ্টার মামলা করেন।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]