ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ যাত্রী নিয়ে বরগুনায় পৌঁছাল ২ লঞ্চ


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : জুলাই ৮, ২০২২, ১১:০৭ অপরাহ্ণ /
ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ যাত্রী নিয়ে বরগুনায় পৌঁছাল ২ লঞ্চ

স্টাফ রিপোর্টার, বরগুনা : পদ্মা সেতু খুলে দেওয়ার পর লঞ্চে যাত্রীর সংকট দেখা দিলেও আজ ভিন্ন চিত্র দেখা গেছে বরগুনার লঞ্চ ঘাটে। আগেরমতোই যাত্রীতে পরিপূর্ণ লঞ্চগুলো ভিড়ছে ঘাটে। শুক্রবার (৮ জুলাই) সকালে ২টি লঞ্চ ঢাকার সদরঘাট থেকে ধারণ ক্ষমতার দ্বিগুণ যাত্রী নিয়ে বরগুনায় পৌঁছেছে।

সকালে বরগুনা লঞ্চঘাট ঘুরে দেখা যায়, সকাল সাড়ে ৭টার দিকে প্রথমে এমভি রয়েল ক্রুজ-২ প্রায় ২ হাজার যাত্রী নিয়ে বরগুনা নদী বন্দরের লঞ্চঘাটে নোঙর করে। এর পরপরই সোয়া ৮টার দিকে এমভি রাজহংস-৮ নামে অপর লঞ্চটি ঘাটে পৌঁছে। দুটি লঞ্চই ধারণক্ষমতার চেয়ে ২/৩ গুণ বেশি যাত্রী নিয়ে বরগুনায় পৌঁছে।

পলাশ, রাফায়েল, শাকিলসহ ঢাকা থেকে আসা কয়েকজন যাত্রী জানান, আমরা সবাই ভার্সিটিতে পড়ি। ঈদের ছুটিতে বাড়িতে এসেছি। বাসের থেকে আমরা লঞ্চ যাত্রা বেশি উপভোগ করি। তাই খুব কষ্টে লঞ্চের কেবিন ম্যানেজ করে বাড়িতে এসেছি।

রাজন আহমেদ নামে রয়েল ক্রুজ লঞ্চের এক যাত্রী বলেন, পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের পর সবাই সেতু ব্যবহার করছে। ভাবছিলাম লঞ্চের যাত্রী নেই। কিন্তু সদরঘাট গিয়ে দেখি মানুষ আর মানুষ, পা ফেলার যায়গাও নেই। কোনোমতে বরগুনার লঞ্চে উঠেছিলাম।

মিজানুর রহমান নামে রাজহংস লঞ্চের এক যাত্রী বলেন, এখনো প্রচুর মানুষ লঞ্চে ভ্রমণ করছেন। প্রতিটি লঞ্চ ধারণক্ষমতার বেশি যাত্রী নিয়ে চলাচল করছে। এই রুটে লঞ্চ বাড়ালে ঝুঁকি কমবে বলে মনে করি।

এমভি রয়েল ক্রুজ ২ এর মাস্টার আলী আকবর বলেন, সদরঘাটে প্রচুর যাত্রী। আলাদা এক শ্রেণির লোক লঞ্চে যাত্রা করতে পছন্দ করেন। তার মধ্যে ইদের মৌসুম। তাই আমরা বরগুনায় যাত্রী নামিয়ে দিয়ে সঙ্গে সঙ্গে আবার ঢাকায় রওয়ানা করি।