‘তেলের খালি কনটেইনার ধরে ১২ ঘণ্টা ভেসে ছিলাম’


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : আগস্ট ২৩, ২০২২, ১২:০৬ অপরাহ্ণ /
‘তেলের খালি কনটেইনার ধরে ১২ ঘণ্টা ভেসে ছিলাম’

স্টাফ রিপোর্টার, লালমোহন : ‘রাতের দিকে ঝড়ের তাণ্ডব বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে মধ্যরাতে প্রবল ঝড়ের কবলে পড়ে ট্রলারটি। এ সময় আমাদের ১৯ জনকে নিয়ে উল্টে যায়। কোনোভাবে জালের দড়ি আর তেলের খালি কনটেইনার ধরে অন্তত ১২ ঘণ্টা পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হয়েছে।

হঠাৎ দেখতে পাই আমাদের কাছাকাছি একটি ট্রলার আসছে। ওই ট্রলারের লোকজন আমাদের দেখে এগিয়ে আসে। সাগরে ভেসে থাকা ওই ১২ ঘণ্টার প্রতিটি মুহূর্তে মনে হচ্ছে এই বুঝি মরে গেছি। এ সময় সবকিছু ভুলে বাঁচার জন্য কেবল আল্লাহকে ডাকছি।’

এমন করেই নিজেদের বেঁচে ফেরার বিভীষিকাময় বর্ণনা দিচ্ছিলেন ভোলার লালমোহন উপজেলার লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের বুড়িরধোন ঘাটের মো. নূরুউদ্দিন মাঝি। তাঁর মতোই গত শুক্রবার মধ্যরাতে গভীর সমুদ্রে জীবন বাঁচানোর ওই যুদ্ধের বর্ণনা দিয়েছেন জেলে মো. আবুল খায়ের, মো. সবুজ ও আল আমিনসহ অনেকে।

সোমবার সকালে লর্ডহার্ডিঞ্জ ইউনিয়নের বুড়িরধোন ঘাটের তিনটি ট্রলারে করে ৫৫ জন জেলে তাদের বাড়িতে ফেরেন। অন্যদিকে ধলিগৌরনগর ইউনিয়নের বাতিরখাল ও কাঠির মাথা মৎস্যঘাটের ২০ জেলেও নিরাপদে তাদের বাড়িতে পৌঁছেছেন।

ইউএনও পল্লব কুমার হাজরা বলেন, ঝড়ের কবলে পড়ে ক্ষতি হওয়া জেলেদের তালিকা প্রস্তুত করে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে পাঠানো হবে।