বরিশালে ৪ দিন আটকে রেখে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৩, ২০২২, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ণ /
বরিশালে ৪ দিন আটকে রেখে স্কুলছাত্রীকে ধর্ষণ

স্টাফ রিপোর্টার, গৌরনদী : অপহরণ করে বিভিন্ন স্থানে ৪ দিন আটকে রেখে বরিশালের গৌরনদী উপজেলার একটি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির এক ছাত্রীকে (১৫) ধর্ষণ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

কৌশলে ওই ছাত্রী ঢাকা থেকে ১ সেপ্টেম্বর দুপুরে পালিয়ে বাড়িতে যায়। এ ব্যাপারে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে অভিযুক্ত শহিদুল শিকদারকে (৪২) আসামি করে শুক্রবার দুপুরে গৌরনদী থানায় একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। শহিদুল উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের বড়দুলালী গ্রামের গিয়াস উদ্দিন শিকদারের ছেলে।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও গৌরনদী থানার এসআই আব্দুল হক জানান, উপজেলার বড়দুলালী গ্রামের দশম শ্রেণির ছাত্রী (১৫) নিজ বাড়ি থেকে গত ২৭ আগস্ট সকাল সাড়ে ৮টার দিকে স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। পথিমধ্যে সকাল ৯টার দিকে ওই বিদ্যালয়ের কাছে পৌঁছলে শহিদুল শিকদার বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে আশোকাঠি এলাকায় নিয়ে যায়। সেখান থেকে ওই রাতেই অপহৃতা ওই স্কুলছাত্রীকে খুলনা শহরে অভিযুক্ত শহিদুলের এক বন্ধুর বাসায় নিয়ে যায়। সেখানে আটকে রেখে জোরপূর্বক ওই ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে শহিদুল শিকদার।

এরপর ভিকটিমকে ৩১ আগস্ট ঢাকা মহনগরীতে নিয়ে একটি বাসায় আটকে রাখে। সেখান থেকে ভিকটিম কৌশলে গত ১ সেপ্টেম্বর দুপুরে পালিয়ে নিজ বাড়ি গৌরনদীতে যায়। বাড়ি ফিরে ভিকটিম তার বাবা-মাকে অপহরণের ঘটনা ও ধর্ষণের ঘটনা জানায়।

এ ব্যাপারে ভিকটিমের বাবা বাদী হয়ে অভিযুক্ত শহিদুল শিকদারকে (৪২) আসামি করে শুক্রবার দুপুরে গৌরনদী থানায় একটি অপহরণ ও ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন। ২২ ধারায় জবানবন্দি দেওয়ার জন্য ভিকটিমকে শুক্রবার দুপুরে বরিশাল আদালতে ও মেডিকেল পরীক্ষার জন্য বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আব্দুল হক জানান।