বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বাসের নতুন শিডিউল, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৪, ২০২২, ২:১২ অপরাহ্ণ /
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে বাসের নতুন শিডিউল, ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল : সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী জ্বালানি সংকট ও অফিস সময় কমানোর জন্যে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে (ববি) বাসের ট্রিপের সংখ্যা কমিয়ে নতুন সময়সূচি প্রকাশ করেছে পরিবহন পুল৷তবে গাড়ির এই সময়সূচি নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।

ববির আবাসন সংকটের কারণে অধিকাংশ শিক্ষার্থী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরে অবস্থান করে। অনেক শিক্ষার্থী বরিশাল শহর থেকে ক্যাম্পাসে যাতায়াত করে। এছাড়াও বিভিন্ন প্রয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ে ও আশেপাশের এলাকায় ও আবাসিক হলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের শহরে যাতায়াতের জন্য নির্ভরযোগ্য নিরাপদ মাধ্যম হলো বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন ব্যবস্থা। পূর্বে সারাদিনে তিনটি রুটে মোট ৫১টি ট্রিপ শিক্ষার্থীদের নিয়ে ক্যাম্পাস থেকে শহর এবং শহর থেকে ক্যাম্পাসে যাতায়াত করতো। বর্তমানে সেই ট্রিপ সংখ্যা কমিয়ে শিক্ষার্থীদের জন্য ৪১টি ট্রিপ দিয়ে নতুন পরিবহন সময়সূচি প্রকাশ করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন পুল শাখা।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বর্তমান বাস শিডিউল নিয়ে চরম ভোগান্তিতে শিক্ষার্থীরা ৷অধিকাংশ সময় বাসে জায়গা পেতে ২০ মিনিট আগে থেকে বসে থাকতে হচ্ছে সাধারণ শিক্ষার্থীদের৷আগে দুপুর ২টায় বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে ৩নং রুট নথুল্লাবাদ যাওয়ার জন্য ২টি ডাবল ডেকার বাস ছিল৷যার প্রত্যেকটির আসন সংখ্যা ছিল ৭৫টি৷কিন্তু বর্তমানে দুপুর ২টায় বৈকালী নামক ১টি বাস চালু আছে যার আসন সংখ্যা ৫২। প্রতিনিয়ত শতাধিক শিক্ষার্থী বাড়তি খরচ দিয়ে যেতে হচ্ছে গন্তব্যে৷

এ বিষয়ে কলা ও মানবিক অনুষদের জান্নাত নওরিন নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, নথুল্লাবাদ থেকে ১২টা ৩০মিনিটে, ২টার মাঝে ১টায় কিংবা ১টা ১৫মিনিটে কোন বাস নেই৷যেটা শিক্ষার্থীর খুবই প্রয়োজন। এছাড়াও আগের শিডিউল অনুযায়ী ভার্সিটি থেকে ২টায় একটা এবং ২টা ১৫ মিনিটে দুইটা বাস ছিলো আর নতুন শিডিউল অনুযায়ী সেখানে একটা বাস। শিক্ষার্থী বাসে দাঁড়ানোর মতোও জায়গা না পেয়ে লোকাল বাসে আসছে।

বিজ্ঞান ও প্রকৌশল অনুষদের শিক্ষার্থী অনুপ মজুমদার বলেন, অনেকেই পরীক্ষা এবং ল্যাবের জন্য সর্বশেষ গাড়ি ৩টা ২০ মিনিট ধরতে পারে না৷তাছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী শহরে টিউশনিতে যায় বিকাল ৪-৫টায়৷যেখানে আগের শিডিউলে বাস সার্ভিস থাকলেও বর্তমানে নাই৷

এ বিষয়ে পরিবহন পুলের ম্যানেজার মো. মেহেদী হাসান বলেন, আগে এমন অভিযোগ আসেনি৷আজকে একটা বিভাগের শিক্ষার্থী দুপুরের বাস শিডিউলের সমস্যা জানিয়ে ফোনে অভিযোগ করে৷ বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করে বাস বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে৷তিনি আরও জানান, বর্তমান পরিস্থিতিতে অফিস সময় কমানো হয়েছে৷ এজন্য বিকাল ৫টায় বাস দেওয়া সম্ভব না৷

উল্লেখ্য যে, গত ২৮ আগস্ট থেকে কার্যকর হয়েছে নতুন এই পরিবহন সময়সূচি। সময়সূচি প্রকাশের পর থেকে সামাজিক গণমাধ্যমে ক্ষোভ জানিয়েছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা।