কালিজিরায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে বেড়া দিয়ে কর্মচারিদের অবরুদ্ধ রাখার অভিযোগ


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৪, ২০২২, ৪:০৩ অপরাহ্ণ /
কালিজিরায় ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সামনে বেড়া দিয়ে কর্মচারিদের অবরুদ্ধ রাখার অভিযোগ

শামীম আহমেদ, বরিশাল ॥ বরিশাল নগরীর কালিজিরা ২৬ নং ওয়ার্ড এলাকায় পৈত্তিক সম্পত্তির জমির উপর দিয়ে ব্যাক্তিগত চলাচলের জন্য রাস্তা নির্মানের জন্য জমি প্রদান না করার জেড় হিসেবে সাবেক আওয়ামী লীগ সম্পাদক আ.স.ম জহুরুল হক খোকনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান মা তিনবার স্ব-মিলে যাতায়াতের সম্মুখে অভৈধভাবে দড়ির বেড়া দিয়ে মিলের মালিক সহ শ্রমিকদের অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে বর্তমান আওয়ামী লীগ ২৬ নং ওয়ার্ড কমিটি বহিস্কৃত সাধারন সম্পাদক একাধিক মামলার আসামী (ভয়ংকর সোলাইমান বাপ্পির বিরুদ্ধে।

অপরদিকে বাপ্পি দাবী করেন সে তার জমিতে দড়ি দিয়ে বেড়া দিয়েছে ওঠা তাদের পৈত্তিক সম্পত্তি ওখানে অন্য কারো জমি থাকে তাহলে মাফ-ঝোপ করে বুজে নেওয়ার দাবী করেন। এছাড়া এখানে মেয়র বিআইডব্লিউটি’এর খালে পল্টুন বসিয়ে ব্যাবসা করতে বলেছে।

সরেজমিনে গেলে দেখা যায়, কালিজিরা ব্রিজের উত্তর পাশে নদীর পুরাতন ফেরি ঘাট সংলগ্ম আওয়ামী লীহ বৃহত্তর জাগুয়া ইউনিয়ন ও বর্তমান বিসিসি ২৬ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ সাবেক সাধারন সম্পাদক আ.স.ম জহুরুল হক খোকনের পৈত্তিক জমিতে গড়ে তোলা মা তিনবার স্ব-মিলের যাতায়াতের পথে ও সড়ক ও জনপথের চলাচলের রাস্তার পাশ ধরে দড়ি দিয়ে বেড়া দিয়ে মিলের কর্মচারি ও মালিক খোকনকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে তা দেখা যায়।

এসময় জহুরুল হক বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ীদের সামনে অভিযোগ করে বলেন প্রান কোম্পনির ম্যানেজারকে মারধরের আসামী সহ একাধিক মামলার আসামী ও তার সন্ত্রাসী কার্যকলাপের অভিযোগে বর্তমান আওয়ামী লীগের ওয়ার্ড কমিটির সাধারন সম্পাদকের পদ থেকে বহিস্কৃত করে রাখা বাপ্পি বেশ কিছুদিন ধরে তার বাড়ির ব্যাক্তিগত চলাচলের জন্য রাস্তা নির্মান করার লক্ষে তার জমিতে জোড় পূর্বক রাস্তা নির্মান করতে চায়।

এখানে আমি ব্যাক্তিগত রাস্তা করার জন্য বাপ্পিকে জমি না দেওয়ার জেড় হিসেবে আমার পৈত্তিক জমির উপর ২০ বছরের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান স্ব-মিলের কেহ যেন যাতায়াত করতে না পারে সেই কারনে তার বাহিনী নিয়ে দড়ি দিয়ে বেড়া দিয়ে আমাকে সহ মিলের কর্মচারিদের অবরুদ্ধ করে রাখার কারনে কোন ক্রেতা মিলে আসতে না পারায় আমার ব্যবসার আর্থিক ক্ষতিগ্রস্থের মুখে পড়েছি।

এব্যাপারে অমি স্থানীয় কাউন্সিলর হুমাউন কবীরের নিকট মৌখিকভাবে অভিযোগ করা হলে তিনিও রাজনৈতিক কারনে বাপ্পির ব্যাপারে কোন কিছু বলছে না। এছাড়া তিনি আরো জানান বেশ কয়েকদিন আগে বাপ্পি এখানকার প্রান কোম্পনীর ম্যানেজারকে চাঁদাবাজির কারনে মারধর করায় তার বিরুদ্ধে মামলা হলে বর্তমানে মাননিয় মেয়র মহাদ্বয় তার সাধারন সম্পাদকের পদ স্থগিত ও বহিস্কার করে রেখেছে।

অপরদিকে সোলাইমান হাওলাদার বাপ্পির বিরুদ্ধে, চেক ডিজঅনার মামলার সাজাপ্রাপ্ত আসামী হওয়ার পরও বীরদর্পে ঘুড়ে বেড়ালেও তার বিরুদ্ধে রহস্যজনকভাবে প্রশাসন ব্যবস্থা গ্রহন করছেন না। তাই এলাকাবাশী তার বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যকলাপের কারনে তাকে এলাকার মানুষের কাছে ভয়ংকর বাপ্পি হিসেবে চিহ্নিত।

এব্যাপারে অভিযুক্ত সোলাইমান হাওলাদার বাপ্পির সাথে সরাসরি কথা হলে তিনি বলেন আমি কারো জমিতে বেড়া দেই নাই। আমি আমার পৈত্তিক জমিতে বেড়া দিয়েছি। এখন যদি কেহ তাদের জমি আছে বলে দাবী করে তাহলে তারা মাফ-ঝোপ দিয়ে জমির ফয়সালা করুক।

এছাড়া তিনি বলেন এখানে আমরা একটি পল্টুন বসাব। সরকারী বিআইডব্লিউটি’এর নদীতে আপনি ব্যাক্তিগত ভাবে কিভাবে পল্টুন বসাবেন এব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমাকে মেয়র এখানে পল্টুন বসাতে বলেছেন। আমি পল্টুন বসিয়ে এখানকার সব প্রতিষ্ঠান উঠিয়ে দিয়ে মানুষ চলাচলের ব্যবস্থা করব বলে তিনি জানান।