বরিশালে বাজার ডাকাতির ঘটনায় রুহুল খান গ্রেপ্তার, ছাড়াতে ইউপি চেয়ারম্যানের তদ্বির ব্যর্থ !

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত জুন ১২ শনিবার, ২০২১, ০৭:৪৯ অপরাহ্ণ
বরিশালে বাজার ডাকাতির ঘটনায় রুহুল খান গ্রেপ্তার, ছাড়াতে ইউপি চেয়ারম্যানের তদ্বির ব্যর্থ !

বাকেরগঞ্জ প্রতিনিধি॥ বাকেরগঞ্জের কলসকাঠী বাজারে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতির ঘটনায় মোঃ রুহুল খানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

 

শুক্রবার দুপুর ২ টার সময় ঢাকা থেকে এসে সিআইডির একটি বিশেষ টিম তাকে বাগদিয়া গ্রামের নিজ বাড়ির মসজিদ থেকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত ডাকাত রুহুল খান উপজেলার কলসকাঠী ইউনিয়নের বাগদিয়া গ্রামের আমির খানের পুত্র।

 

 

এছাড়াও ডাকাত রুহুল আমিন কলসকাঠী ইউপি চেয়ারম্যান মুন্না তালুকদারের বিশ্বস্ত ক্যাডার। এলাকায় সে চেয়ারম্যান মুন্নার সমর্থক হিসেবে পরিচিত। আসন্ন ইউপি নিবাচনেও সে চেয়ারম্যান প্রার্থী মুন্নার পক্ষে প্রচারণা চালিয়ে ভোট চাইছেন।

 

এলাকা সুত্রে জানা গেছে, শুক্রবার ঢাকার সিআইডির একটি বিশেষ টিম ডাকাত রুহুল খান আটক করে বাকেরগঞ্জে নিয়ে আসেন।

 

এ খবর পেয়ে চেয়ারম্যান মুন্না তালুকদার তার ক্যাডার রুহুল খানকে ছাড়াতে তদ্বির করতে বাকেরগঞ্জে এসে বাসস্ট্যান্ড এলএফজি চাইনিজ রেস্টুরেন্টে সিআইডির এস আই সিরাজুলের সাথে তদ্বির বৈঠকে বসেন। ওই সময় চেয়ারম্যান মুন্না তালুকদার আসামী রুহুল খানকেসহ সিআইডির টিমের সকলে নিজের টাকায় দুপুরের খাবার খাওয়ান। অবশেষে ডাকাত রুহুলকে ছাড়াতে চেয়ারম্যান মুন্নার সব চেষ্টা ও তদ্বির ব্যর্থ হলে তিনি কলসকাঠীতে ফিরে যায়।

 

 

সিআইডির এসআই সিরাজুলকে তার ব্যবহৃত ০১৭××××২৮ নম্বরে বিকেল সাড়ে ৪ টায় কল দিলে রিসিভ করে এএসআই নুরুজ্জামান পরিচয় দিয়ে রুহুল খানকে গ্রেফতারের সত্যতা স্বীকার করে বলেন স্যার ব্যস্ত আছেন। ইউপি চেয়ারম্যান মুন্না তালুকদারের নিকট সাংবাদিকরা ডাকাত রুহুল খানকে ছাড়াতে তার তদ্বির প্রসঙ্গে জানতে চাইলে, তিনি এলাকায় থেকেও ঢাকায় রয়েছেন বলে মিথ্যা বক্তব্য দিয়ে লাইন কেটে দেয়।

 

 

অথচ কলসকাঠী ইউনিয়ন যুবলীগ আহবায়ক নেছার খান জানান, ইউপি চেয়ারম্যান মুন্না তালুকদার কলসকাঠীতে আছেন। আজ সকালেও তিনি এলাকায় তার নিবাচনী গণসংযোগ করেছেন।

 

উল্লেখ্য গত ২০১৯ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর কলসকাঠী বাজারে দুর্ধর্ষ ডাকাতি সংঘঠিত হয়। এতে ডাকাতরা ৭টি স্বর্ণের দোকানের ২ কোটি টাকার মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

 

 

ওই সময় ডাকাতদের হামলায় পুলিশের এএসআই জসিমসহ দুইজন সদস্য আহত হয়। কলসকাঠী বাজারে ডাকাতির ঘটনায় আটককৃত ডাকাত রুহুল খানকে ছাড়াতে মুন্না তালুকদারের তদ্বির নিয়ে এলাকার মানুষের মাঝে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া কি করে একজন জনপ্রতিনিধি ডাকাত ছাড়ানোর চেষ্টা করেন। এনিয়ে তাদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। তাদের এ ক্ষোভ যে কোন সময় জনমনে বিক্ষোভে রুপ নিতে পারে।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]