২৫ কেজি গাঁজাসহ বোয়ালমারীতে দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার


Barisal Crime Trace -GF প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ৯, ২০২২, ৭:১০ অপরাহ্ণ /
২৫ কেজি গাঁজাসহ বোয়ালমারীতে দুই মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

কাজী হাসান ফিরোজ, বোয়ালমারী : ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার চতুল ইউনিয়নের পোয়াইল গ্রাম থেকে দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো জুয়েল খান (৩৬) ও আব্দুল কুদ্দুস (২৩)।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাতে ২৫ কেজি গাঁজাসহ ওই দুই মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে বোয়ালমারী থানা পুলিশের একটি দল। এ ঘটনায় ওই রাতেই মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে বোয়ালমারী থানায় মামলা হয়েছে। শুক্রবার গ্রেফতারকৃতদের ফরিদপুর বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতারকৃত জুয়েল খান সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া উপজেলার লাহিড়ী মনপুর গ্রামের সাত্তার খানের ছেলে। সে উপজেলার চতুল ইউনিয়নের পোয়াইল গ্রামের বিশ্বাসপুর গ্রামের আক্তার মোল্যার বাড়ি ভাড়া থাকে। পার্শ্ববর্তী সালথা উপজেলায় তার শ্বশুরবাড়ি। ধৃত অপর আসামী আব্দুল কুদ্দুস বোয়ালমারী উপজেলার চতুল ইউনিয়নের পোয়াইল বিশ্বাসপুর গ্রামের বাবুল শেখের ছেলে।

অভিযানে অংশগ্রহণকারী বোয়ালমারী থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক উত্তম কুমার সেন জানান, বৃহস্পতিবার রাতে নিয়মিত টহল দিচ্ছিলেন তিনি ও বোয়ালমারী থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মামুন ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল। এ সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক বেচাকেনার খবর পেয়ে পুলিশ সদস্যরা উপজেলার চতুল ইউনিয়নের পোয়াইল বিশ্বাসপুর গ্রামে অভিযান চালান। এ সময় শুকুর মিয়ার ইটভাটার পশ্চিমপাশে আক্তার মোল্যার বাড়ির উত্তর পাশের কাঁচা রাস্তার উপর থেকে ২৫ কেজি গাজাসহ জুয়েল খান ও আব্দুল কুদ্দুসকে আটক করা হয়। যার বাজার মুল্য ৩ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা। এ সময় আটককৃতদের নিকট থেকে গাজা বিক্রির ১০ হাজার টাকাও উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় বোয়ালমারী থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক মামুন ইসলাম বাদি হয়ে জুয়েল খান, আব্দুল কুদ্দুস ও পলাতক একজনকে আসামী করে বৃহস্পতিবার রাতে বোয়ালমারী থানার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন-২০১৮ এর ৩৬ (১) সারণীর ১৯ (ক) ধারায় মাদকদ্রব্য গাজা বিক্রির উদ্দেশ্যে নিজ হেফাজতে রাখার শাস্তিযোগ্য অপরাধে মামলা করেন।

ওই মামলার তদন্ত কর্মকর্তা বোয়ালমারী থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক আব্দুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, গাজা উদ্ধারের ঘটনায় বোয়ালমারী থানায় মামলা হয়েছে। পলাতক আসামীকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। গ্রেফতারকৃতদের শুক্রবার ফরিদপুর বিজ্ঞ আদালতে পাঠানো হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃতদের সাত দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়েছে।