বরিশালে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ৯ শীর্ষ ডাকাত গ্রেফতার


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২, ১:০৮ অপরাহ্ণ /
বরিশালে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ৯ শীর্ষ ডাকাত গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল : বরিশালের গৌরনদীতে এক বাড়িতে গ্রিল কেটে এবং পরিবারের সদস্যদের হাত-পা বেঁধে ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ৯ জনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। তাদের কাছ থেকে উদ্ধার করা হয়েছে লুণ্ঠিত স্বর্ণালংকার, আগ্নেয়াস্ত্র ও ধারালো অস্ত্র।

আজ বৃহস্পতিবার সকালে বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য জানান পুলিশ সুপার ওয়াহিদুল ইসলাম। তিনি বলেন, গত ১১ জুন গভীর রাতে গৌরনদী উপজেলার কেফায়েতনগর এলাকায় জনৈকা তানিয়া বেগমের বসত ঘরের গ্রিল কেটে একদল দুর্বৃত্ত তার ঘরে ঢুকে পরিবারের সদস্যদের হাত-পা বেঁধে অস্ত্র ঠেকিয়ে স্বর্ণালংকার, মুঠোফোন ও নগদ অর্থ লুট করে। এ ঘটনায় পরদিন অজ্ঞাতনামাদের বিরুদ্ধে গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের হয়।

এরপর দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের সর্দার আমতলীর কলাগাছিয়া এলাকার দেলোয়ার হোসেন দিলু (৪৭), গৌরনদীর চররমজানপুর গ্রামের রবিউল ইসলাম (২০), পটুয়াখালীর বড়বিঘা গ্রামের মোতালেব মৃধা পনু (৩৯), বরগুনার তালতলীর ছোটবগি এলাকার হারুন ওরফে তৈয়ব আলী (৫৩), একই এলাকার মো. আমিরুল ফকির (২৪) ও পটুয়াখালী সদর উপজেলার তিতকাটা গ্রামের মো. সগির সিকদার ওরফে সবুজকে (২৫) গ্রেফতার করে পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে দিলু ও হারুন ওই ডাকাতির ঘটনায় জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দেয়। ওই সূত্র ধরে পুলিশ ঢাকার পূর্ব জুরাইন এলাকার দুলাল স্বর্ণালংকারের সুমাইয়া জুয়েলার্সে অভিযান চালিয়ে গৌরনদীতে ডাকাতির ঘটনায় লুণ্ঠিত স্বর্ণালংকার উদ্ধার করে। এ সময় লুণ্ঠিত স্বর্ণালংকার বেচাকেনায় সহযোগিতা করায় কেরানীগঞ্জ থানার চরকাকড়া এলাকার মো. শাহিন আলমকে (৩১) গ্রেফতার করে তারা।

ওই ডাকাতির ঘটনায় সর্বশেষ গত বুধবার রাতে গৌরনদীর কেফায়েতনগর এলাকার মো. আবুল বাশার ফকির ওরফে ফটিক ফকিরের (২৯) একই উপজেলার এক মুদি দোকানে অভিযান চালিয়ে দেশে তৈরি একটি পিস্তল ও ৮ রাউন্ড গুলি, একটি রেঞ্জ, একটি প্লাস, একটি চাপাতি, ১টি বাংলা দা, ২টি ছুরি এবং নগদ ২ হাজার টাকা উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগেই গ্রেফতার করা হয় আবুল বাশারসহ আরও ২জনকে।

অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ পরিদর্শক হেলাল উদ্দিন বাদী হয়ে গ্রেফতারকৃত ৯ জনের বিরুদ্ধে একটি বৃহস্পতিবার গৌরনদী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় জড়িত অন্যান্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন পুলিশ সুপার মো. ওয়াহিদুল ইসলাম।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান, গৌরনদী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এসএম আল বেরুনী ও গৌরনদী থানার ওসি মো. আফজাল হোসেনসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।