ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত, ১৬ নেতা-কর্মীকে বহিষ্কার


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : সেপ্টেম্বর ২৬, ২০২২, ১২:০৯ অপরাহ্ণ /
ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত, ১৬ নেতা-কর্মীকে বহিষ্কার

ক্রাইম ট্রেস ডেস্ক : ইডেন কলেজে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় তড়িঘড়ি করে কলেজ ছাত্রলীগের কমিটি স্থগিত করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ। একইসঙ্গে সংঘর্ষে জড়িত থাকার অভিযোগে কলেজ ছাত্রলীগের বিদ্রোহী গ্রুপের ১২ জন নেত্রী এবং চারজন কর্মীকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

রোববার দিবাগত রাতে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয় এবং সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত বাংলাদেশ ছাত্রলীগ, ইডেন মহিলা কলেজ শাখার সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত করা হলো।

এতে বলা হয়, শৃঙ্খলা পরিপন্থী কার্যকলাপে জড়িত থাকার অপরাধে, প্রাথমিকভাবে প্রাপ্ত প্রমাণের ভিত্তিতে ইডেন মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সোনালি আক্তার, সুস্মিতা বাড়ৈ, জেবুন্নাহার শিলা, কল্পনা বেগম, জান্নাতুল ফেরদৌস, আফরোজা রশ্মি, মারজানা উর্মি, সানজিদা পারভীন চৌধুরী, এস এম মিলি, সাদিয়া জাহান সাথী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফাতেমা খানম বিন্তি ও সাংগাঠনিক সম্পাদক সামিয়া আক্তার বৈশাখি এবং কর্মী রাফিয়া নীলা, নোশিন শার্মিলী, জান্নাতুল লিমা, সূচনা আক্তার কে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিস্কার করা হলো। বিজ্ঞপ্তিতে অধিকতার তদন্তের মাধ্যমে এই বিশৃঙ্খলার সঙ্গে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের যারা জড়িত রয়েছে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানানো হয়।

বহিষ্কৃত নেত্রীদের সংখ্যা নিয়ে ধোয়াশা:

কমিটি স্থগিত ও বহিষ্কার সংক্রান্ত দুইটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি হাতে এসেছে গণমাধ্যমের হাতে। প্রথমে পাওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে স্থায়ী বহিষ্কৃতদের মধ্যে কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তানজিলা আক্তারের নাম থাকলেও পরবর্তীতে পাওয়া বিজ্ঞতিতে তার নাম নেই। প্রেস বিজ্ঞপ্তি দুটিই ছাত্রলীগের মিডিয়া গ্রুপ থেকে নেওয়া হয়েছে। গ্রুপে এ বিষয়ে দপ্তর সম্পাদকের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলেও তিনি এর জবাব দেননি।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক ইন্দ্রনীল দেব শর্মা রনিকে ফোন দিলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। তার ফোনে এবং হোয়াটসঅ্যাপে ‘দাদা, কমিটি স্থগিত ও বহিষ্কার সংক্রান্ত দুইটি প্রেস বিজ্ঞপ্তি গণমাধ্যমের হাতে এসেছে। প্রথমে পাওয়া প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে স্থায়ী বহিষ্কৃতদের মধ্যে কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি তানজিলা আক্তারের নাম থাকলেও পরবর্তীতে পাওয়া বিজ্ঞতিতে তার নাম নেই। এর কারণ কী?’ এটি লিখে ক্ষুদে বার্তা পাঠালেও তিনি সাড়া দেননি।

স্থায়ী বহিষ্কারের বিষয়ে করা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য বলেন, আমরা একটা তদন্ত কমিটি করেছিলাম, তারা তাতে আস্থা রাখতে পারছে না। তাই আমরা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ একটি বডি মিলে এই ঘটনার প্রাথমিক তদন্ত করেছি। আমরা ভিডিও ফুটেজ দেখে হামলায় জড়িতদেন চিহ্নিত করে তাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এ ঘটনায় আরও তদন্ত চলবে।

রোববার ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি পক্ষের নেত্রীরা অভিযোগ করেন কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক তাদের ফোন ধরেন না, যার ফলে তারা কোনো অভিযোগ জানাতে পারেন না

এ বিষয়ে লেখক ভট্টাচার্য বলেন, তারা আমাদের কোনো ফোনই দেয়নি। সবকিছু নিয়ে মিথ্যাচার করছে। তারা যে সিট বাণিজ্য ও চাঁদাবাজির কথা বলছে, এটার কোনো প্রমাণ তো দিতে পারছে না তারা। কমিটি দেওয়ার পর থেকেই একটি অংশ বার বার কমিটিকে বিতর্কিত করা চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছিল।

এর আগে শনিবার রাতে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভা ও সাধারণ সম্পাদক রাজিয়া সুলতানার চাঁদাবাজি ও সিট বাণিজ্য নিয়ে গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেওয়ায় কলেজ ছাত্রলীগের সহসভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌসকে হল থেকে মারধর করে বের করে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে। বর্তমানে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

এ ঘটনায় গত রাতে কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পক্ষে বিপক্ষে মিছিল হয়। জান্নাতুল ফেরদৌস বেগম রাজিয়া ছাত্রীনিবাসের আবাসিক শিক্ষার্থী।

জানা যায়, গত ২২ সেপ্টেম্বর রিভা এবং রাজিয়ার বিভিন্ন অনিয়ম, চাঁদাবাজি, সিট বাণিজ্য ও হল দখল নিয়ে গণমাধ্যমে সাক্ষাৎকার দেন জান্নাতুল ফেরদৌস। এর দুদিন পর শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) রাত ১১টার দিকে হল থেকে বের করে দেওয়ার হুমকি দেন শাখা ছাত্রলীগ সভাপতি-সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা। এ সময় তাকে হেনস্তা করারও অভিযোগ ওঠে।

গত ২৬ আগস্ট রিভার বিভিন্ন বিতর্কিত কর্মকাণ্ড নিয়ে ‘ইডেনের ‘ডন’ রিভা’ শীর্ষক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। এতে রিভার বিরুদ্ধে ‘দুই ছাত্রীকে বিবস্ত্র করে ভিডিও ভাইরাল করার হুমকি’, ‘ছাত্রলীগের মিছিল-মিটিংয়ে শিক্ষার্থীদের জোর করে নিয়ে যাওয়া’সহ সিট বাণিজ্য, ক্যানটিন থেকে চাঁদা দাবি’ প্রভৃতি বিষয় ওঠে আসে।