গলাচিপায় গৃহবধূকে মারধর পুলিশের উদ্ধারে হাসপাতালে ভর্তি


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৩, ২০২২, ৬:৩৩ অপরাহ্ণ /
গলাচিপায় গৃহবধূকে মারধর পুলিশের উদ্ধারে হাসপাতালে ভর্তি

সঞ্জিব দাস, গলাচিপা : পটুয়াখালীর গলাচিপা উপজেলার গজালিয়া ইউনিয়নের জোছনা বেগম (২৫) নামের এক গৃহবধূকে মারধর করে। পুলিশ উদ্ধারে হাসপাতালে ভর্তি। ঘটনাটি ঘটেছে গজালিয়া গ্রামের ১ নং ওয়ার্ডের পঞ্চায়িত বাড়িতে। আহত জোছনা বেগম হচ্ছেন সোনেআলি গাজীর ছেলে শিহাবুদ্দিন গাজীর স্ত্রী ও বাউফল উপজেলার কাছিপাড়া ইউনিয়নের বাবুল হাওলাদারের মেয়ে।

শিহাবুদ্দিন গাজী জানান,মঙ্গলবার রাত সারে সাতটার দিকে পূর্ব শত্রুতার জেরে জমি জমাকে নিয়ে আমাদের একই বাড়ির বাদল গাজী,শাহআলম গাজী,রহীম গাজী,শাওন গাজী সহ আরও অনেকে ঘরের দরজা ভেঙ্গে ঘরের ভিতর ঢুকে আমার স্ত্রী জোছনা বেগমকে এলোপাথারি ভাবে মারতে থাকে এতে আমার স্ত্রী গুরতর আহত হয় পরে ওরা আমার স্ত্রীকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

আমি গলাচিপা থানা পুলিশের সহয়তায় আমার স্ত্রীকে উদ্ধার করে গলাচিপা হাসপাতালে ভর্তি করি।হাসপাতালের কর্তবরত ডাক্তার মাহাবুব আলম বলেন,জোছনা বেগম আমার চিকিৎসাধীনে ২য় তলায় ২১ নং বেডে ভর্তি আছে। তার শরীরের বিভিন্ন অংশে ফুলাজখম ও কালো কালো দাগ আছে ও মাথায় ৩টি সেলাই আছে। আহত জোছনা বেগম বলেন,

আমাকে মৃত্যুর উদ্দেশ্য গলায় কোপ দিলে আমি মোড় দেওয়ায় কোপটি আমার মাথার উপর পরে। তিনি আরও বলেন, আমি ডাক চিৎকার দিলে ওরা খিপ্ত হয়ে আমার ঘর বাড়ী কোপিয়ে যায়। এ বিষয়ে বাদল গাজীর কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তার ফোনটি বন্ধ পাওয়া যায় গজালিয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ হাবিব বিশ^াস বিষয়টি সত্যতা স্বিকার করেন।

গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) শোনিত কুমার গাইন বলেন,অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যাবস্থা গ্রহন করা হবে। এ বিষয় নিয়ে পরিবারটি এখন দিশেহারা। এ বিষয়ে বৃহস্পতিবার রাতে জোছনা বেগম বাদী হয়ে গলাচিপা থানায় মামলা করবেন বলে জানান।