একাত্তরে পাকিস্তানের গণহত্যাকে স্বীকৃতি দেওয়ার প্রস্তাব মার্কিন পার্লামেন্টে


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৫, ২০২২, ৪:৩৯ অপরাহ্ণ /
একাত্তরে পাকিস্তানের গণহত্যাকে স্বীকৃতি দেওয়ার প্রস্তাব মার্কিন পার্লামেন্টে

ক্রাইম ট্রেস ডেস্ক : ১৯৭১ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর বাংলাদেশে চালানো নৃশংস হত্যাযজ্ঞকে গণহত্যা হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার দাবিতে একটি প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে মার্কিন পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষ হাউজ অব রিপ্রেজেন্টেটিভসে।

মার্কিন দুই প্রভাবশালী আইনপ্রণেতা এই প্রস্তাব তুলেছেন। এ প্রস্তাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে গণহত্যার স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

ভারতীয় বংশোদ্ভূত কংগ্রেসম্যান রো খান্না এবং কংগ্রেসম্যান স্টিভ চ্যাবোট স্থানীয় সময় শুক্রবার মার্কিন আইনসভার নিম্নকক্ষে এই প্রস্তাবটি তোলেন।যেখানে এই গণহত্যার জন্য পাকিস্তান সরকারকে বাংলাদেশের জনগণের কাছে ক্ষমা চাওয়ার প্রস্তাব দেওয়ার কথাও বলা হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রিপাবলিকান কংগ্রেসম্যান স্টিভ চ্যাবোট এক টুইট বার্তায় লেখেন, গণহত্যার শিকার লাখ লাখ মানুষের স্মৃতিকে আমাদের বছরের পর বছর ধরে মুছে যেতে দেওয়া উচিত নয়। এই গণহত্যার স্বীকৃতি ঐতিহাসিক রেকর্ডকে শক্তিশালী করবে, আমাদের সহকর্মী আমেরিকানদের শিক্ষিত করবে। সেই সঙ্গে অপরাধীদের বার্তা দেবে যে, এই ধরনের অপরাধ সহ্য করা হবে না কিংবা কেউ ভুলে যাবে না।

তিনি আরও বলেছেন, ১৯৭১ সালের বাংলাদেশে চালানো গণহত্যার ঘটনা ভুলে যাওয়া ঠিক হবে না। আমার ওহিওর সহকর্মীর সহযোগিতায় বাঙালি ও হিন্দুদের ওপর চালানো নৃশংসতা বিশেষ করে যার সঙ্গে গণহত্যার ঘটনা ঘটেছে, তাকে স্বীকৃতি দেয়ার আইনি প্রক্রিয়া শুরু করেছি।

রিপাবলিকান দলের অপর সদস্য রো খান্না টুইটে লেখেন, ১৯৭১ সালে বাঙালি গণহত্যার স্মরণে প্রথম প্রস্তাব তোলেন স্টিভ চ্যাবট। এ প্রস্তাবে আমাদের সময়ের সবচেয়ে বিস্মৃত গণহত্যার শিকার লাখো জাতিগত বাঙালি এবং হিন্দু নিহত হয়েছেন কিংবা বাস্তুচ্যুত হয়েছিলেন।

১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানিদের হত্যাযজ্ঞের শিকার হন সেলিম রেজা নূরের বাবা শহিদ বুদ্ধিজীবী সিরাজউদ্দীন হোসেন। তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘এই গণহত্যা অবশেষে মার্কিন কংগ্রেসে স্বীকৃতি পাচ্ছে।’