এক বছরে কেমন সেবা পেয়েছে রাজাপুর-কাঁঠালিয়াবাসী


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : অক্টোবর ১৬, ২০২২, ১১:৫৪ পূর্বাহ্ণ /
এক বছরে কেমন সেবা পেয়েছে রাজাপুর-কাঁঠালিয়াবাসী

মাসুম খান, ঝালকাঠি : পুলিশ মানেই খাকি পোশাক পড়া ঘুষখোর আর রক্তচক্ষুওয়ালা অমানবিক একটা বাহীনি। একটা সময় বাংলাদেশ পুলিশ নিয়ে দেশের মানুষের মনে এমন বিরূপ ধারণা থাকলেও সেই ধারণা এখন অনেকটাই পাল্টে গেছে। যদিও ভালো সেবা পেতে হলে ভালো নাগরিক হওয়া জরুরি। কিন্তু অনেকেই আছেন ইউরোপ আমেরিকার পুলিশ দেখতে চায় কিন্তু তাদের মতো জনগণ হতে পারে না। তবে মনুষের প্রত্যাশা অনুযায়ী সেই সেবার ধরণ ও গুনগতমান কিছুটা হলেও পাল্টে দিয়েছে ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর-কাঁঠালিয়া সার্কেল অফিসার সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা।

কাঁঠালিয়া ও রাজাপুর থানা এলাকার মানুষের জন্য সঠিক পুলিশি সেবা নিশ্চিত করেছেন বলে জানিয়েছেন সামাজিক, রাজনৈতিক নেতৃত্ববৃন্দসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষ। সহকারী পুলিশ সুপার মাসুদ রানা একজন ব্যতিক্রমধর্মী পুলিশ অফিসার বলেন কেউ কেউ মন্তব্য করেছেন। প্রতিনিয়ত দিকনির্দেশনা প্রদানের মাধ্যমে তিনি সহকর্মী ও সাধারণ জনগণের মাঝে আদর্শগত ভিন্নতা এনেছেন।সহাকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা ২০১৭ সালে ৩৫ তম বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশে যোগদান করেন।

সেখানেও আন্তরিকতার সাথে সেবা প্রদানের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের মনে আস্থার জায়গা অর্জন করে নিয়েছিলেন। এরপর ২০২১ সালে ঝালকাঠি জেলার রাজাপুর কাঁঠালিয়া সার্কেল অফিসার হিসেবে তিনি দ্বায়িত্বভার গ্রহণ করেন। যোগদানের পর থেকেই চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, মাদক, নারী ও শিশু নির্যাতনের বিরুদ্ধে রয়েছেন জিরো টলারেন্স। মানবিক ও খাটি দেশপ্রেমিক হিসেবে মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছেন। রাজাপুর সার্কেল এলাকার অপরাধ দমনে সক্রিয় ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন।

তার সুনিপুণ দক্ষতায় সুষ্ঠ তদন্তের ফলে দোষীরা যেমন খুব দ্রুতই আইনের আওতায় চলে আসে এবং তাদের শাস্তিও হয়। তাঁর দায়িত্বরত দুই থানা এলাকার সেবা গৃহীতারা বলেন, তিনি একজন সৎ ও অন্যায়ের কাছে আপোষহীন পুলিশ অফিসার। তার কাছে ধনী-গরিব, রিক্সাচালকসহ সব শ্রেণিপেশার মানুষ সমান। যে কোন মানুষ তার কাছে এসে কথা বলতে পারে। তার কাছে আগত ভুক্তভোগীর কথা আন্তরিকতার সাথে শুনে সেবা প্রদানের জন্য থানা পুলিশকে নির্দেশনা প্রদান করেন।

লিখিত ও মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে সমাধান করেছেন বিকাশের নামে প্রতারণা,ভাই বোনের দ্বন্দ্ব, স্বামী স্ত্রীরসহ জমি জমা নিয়ে পরিবার ও আত্নীয়স্বজনের মধ্যে দ্বন্দ্ব নিরসনে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। সমাজের নিরীহ ও নির্যাতিত মানুষের পাশে থাকার জন্য আমরা চাই দেশের প্রতিটি জেলায় মাসুদ রানার মতো একজন সৎ সাহসী এবং যোগ্যতা সাম্পান্ন পুলিশ অফিসার খুব প্রয়োজন।

এ বিষয় সহকারী পুলিশ সুপার মোঃ মাসুদ রানা বলেন, একজন নির্যাতিত মানুষের শেষ আশ্রয়স্থল হলো পুলিশ। আর আমরা পুলিশ সদস্যরা যদি তাদের সমস্যা সমাধানের জন্য কাজ না করি তাহলে কে করবে। “পুলিশই জনতা এবং জনতাই পুলিশ” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে কাজ করার চেষ্টা করছি।তিনি আরও বলেন, একজন মানুষের মধ্যে মানবিক গুন থাকাও জরুরি।

সাধারণ মানুষের দোয়া ও ভালবাসা নিয়ে মাদক, জঙ্গি, সন্ত্রাস, চাদাবাজ মুক্ত সমাজ গড়তে এগিয়ে যাব। রাজাপুর ও কাঁঠালিয়াবাসীর উদ্দেশ্য আমি একটি কথা বলবো আপনারা পুলিশ কে নিজের বন্ধু ভাবুন, পুলিশ ও জনগণের বন্ধু হয়ে কাজ করবে। মনে রাখবেন পুলিশ শুধু জনগণের বন্ধুই না সেবক। পুলিশ সব সময়ই জনগণের পাশে ছিল এবং আগামীতেও থাকবে।#