বিনা ভাড়ায় বিএনপির কয়েকশ কর্মী বহন, নতুন রিকশা পেলেন আমিনুল


Barisal Crime Trace -GF প্রকাশের সময় : অক্টোবর ২১, ২০২২, ৭:৫০ অপরাহ্ণ /
বিনা ভাড়ায় বিএনপির কয়েকশ কর্মী বহন, নতুন রিকশা পেলেন আমিনুল

নিজস্ব প্রতিবেদক : ময়মনসিংহে বিএনপির বিভাগীয় গণসমাবেশে পরিবহন বন্ধ থাকায় নিজ রিকশায় করে বিনা ভাড়ায় লোক পৌঁছে দিয়েছিলেন আমিনুল ইসলাম। এ ঘটনায় তাকে পাঁচ আসনের ব্যাটারিচালিত একটি নতুন রিকশা উপহার দিয়েছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান।

 

শুক্রবার (২১ অক্টোবর) দুপুর ১২টায় নগরীর ব্রহ্মপল্লী এলাকায় আমিনুল ইসলামের বাসায় গিয়ে এই উপহার পৌঁছে দেন বিএনপির নেতারা।

এ সময় তারেক রহমানের পক্ষ থেকে আমিনুল ইসলামকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানিয়ে নতুন অটোরিকশাটি হস্তান্তর করেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। এরআগে দুই আসনের রিকশা চালাতেন আমিনুল ইসলাম।

 

রিকশাচালক আমিনুল ইসলাম ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজেলার গালাগাঁও গ্রামে নাজিম উদ্দিনের ছেলে। এলাকায় কৃষিকাজ করে সংসার চালাতেন তিনি। এক বছর আগে ছেলেমেয়েদের পড়াশোনা করানোর জন্য সপরিবারে নগরীর ব্রাহ্মপল্লী এলাকায় চলে আসেন। তার বড় মেয়ে আনন্দমোহন কলেজে মাস্টার্সে পড়াশোনা করছেন। ছোট ছেলে স্থানীয় নটরডেম কলেজে অধ্যয়নরত।

 

Amin-(2)

 

এ বিষয়ে আমিনুল ইসলাম বলেন, ‘আমি বিএনপির একজন কর্মী। ১৫ অক্টোবর ময়মনসিংহে গণসমাবেশের দিন গণপরিবহন চলাচল বন্ধ ছিল। এজন্য নগরীর ব্রিজ মোড়, চরপাড়া, টাউন হল, কার্চারীঘাট, ইউনিভার্সিটি শেষ মোড়সহ অনেক জায়গা থেকে বিনা ভাড়ায় বিএনপির কর্মীদের পলিটেকনিক সমাবেশস্থলে পৌঁছে দেই। এটা শুধু আমার দলের প্রতি ভালোবাসা থেকেই করেছি, কোনো কিছু পাওয়ার জন্য না।’

তিনি আরও বলেন, বিনা ভাড়ায় বিএনপির কর্মী বহন করার বিষয়টি আমার নেতা তারেক রহমানের কাছে পৌঁছে যাবে বুজতে পারিনি। তিনি আমাকে একটি ব্যাটারিচালিত নতুন রিকশা উপহার দিয়েছেন। এতে আমি অনেক খুশি।

 

বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স বলেন, মানবদরদী দিনমজুর আমিনুল ইসলাম। তাকে অটোরিকশা উপহার দিয়ে গণসমাবেশে তার পরিশ্রম ও অবদানকে সম্মান জানানো হয়েছে। সেইসঙ্গে হাজার নেতাকর্মীকেও সম্মানিত করা হয়েছে।’

 

তিনি বলেন, ময়মনসিংহের গণসমাবেশে বাধা, বিঘ্ন, সন্ত্রাস, নৈরাজ্য উপেক্ষা করে লাখ লাখ মানুষ স্বতঃস্ফূর্ত উপস্থিত হয়ে সরকারের সব অপকৌশল ও চক্রান্ত ব্যর্থ করে দিয়েছে। এতে সরকারের দেউলিয়াত্ব এবং চলমান আন্দোলনে তারা যে আতঙ্কিত ও বিচলিত তা প্রমাণ হয়েছে। কিন্তু এসব করে ক্ষমতায় টিকে থাকা যাবে না।

 

Amin-(2)

 

এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটি সদস্য ব্যারিস্টার মীর হেলাল উদ্দিন, বিএনপির মিডিয়া সেলের সদস্য আতিকুর রহমান রুমন, ময়মনসিংহ দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ডা.মাহবুবুর রহমান লিটন, মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক শফিকুল ইসলাম, উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক এনায়েত উল্লাহ কালাম, দক্ষিণ জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক জাকির হোসেন বাবলু, মহানগর বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক আবু ওয়াহাব আকন্দ, উত্তর জেলা বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক মোতাহার হোসেন তালুকদার প্রমুখ।

 

১৫ অক্টোবর ময়মনসিংহে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশকে কেন্দ্র করে আগের রাত থেকেই গণপরিবহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। ওইদিন সকাল থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে বিএনপি নেতাকর্মীদের নিয়ে নিজের রিকশায় করে সমাবেশস্থল পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে পৌঁছে দেন আমিনুল ইসলাম।

 

বিনা ভাড়ায় বিএনপির কয়েকশ নেতাকর্মীকে সমাবেশস্থলে পৌঁছে দেন। বিষয়টি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে বিএনপি নেতাদের নজরে আসেন আমিনুল ইসলাম।