অনলাইন ক্লাস চলাকালীন সময় শিক্ষকের ধুমপানের ছবি ভাইরাল

Barisal Crime Trace -HR
প্রকাশিত এপ্রিল ১১ রবিবার, ২০২১, ০৪:৪৮ অপরাহ্ণ
অনলাইন ক্লাস চলাকালীন সময় শিক্ষকের ধুমপানের ছবি ভাইরাল

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল :: অনলাইন ক্লাস চলাকালীন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষকের ধূমপান করার ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ধূমপানকারী এ শিক্ষক হলেন ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগের অধ্যাপক ড. মাযহারুল হাসান মজুমদার।

 

শুক্রবার (৯ এপ্রিল) ফেসবুকে ধূমপানের ছবি ভাইরাল হওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

 

জানা যায়, করোনাভাইরাসের সংক্রমণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে গত বছরের মার্চ মাসে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ হয়ে গেলে অনলাইন প্লাটফর্ম জুম অ্যাপে ক্লাস শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। ব্যবসায় প্রশাসনের ওই শিক্ষক কয়েকটি ব্যাচের অনলাইনে ক্লাস নেওয়ার সময় ভিডিও চালু থাকা অবস্থায় একাধিকবার ধূমপান করেন। যা পরবর্তীতে শুক্রবার থেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

ঘটনার সত্যতা যাচাইয়ের জন্য অধ্যাপক ড. মাযহারুল হাসান মজুমদারকে ফোন দিলে তিনি ক্লাস চলাকালীন ধূমপান করার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, দুটি ছবি ভাইরাল হয়েছে।

 

তার মধ্যে, একটা বাসায় ক্লাস নিচ্ছিলাম, আরেকটা ডিপার্টমেন্টে বসে ক্লাস নিচ্ছিলাম। এগুলো দুইতিন মাস আগের ছবি। আর প্রকাশ্যে ধূমপান বলতে বুঝি, ক্লাসরুমে ক্লাস নিতে নিতে ধূমপান করলে সেটাকে। অনলাইনে ধূমপান করলে এটা দিয়ে শিক্ষার্থীদের সরাসরি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সুযোগ নেই।

 

শাবির ছাত্র উপদেশ ও নির্দেশনা পরিচালক অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা ধূমপানকে ক্যাম্পাসে নিরুৎসাহিত করি। আমরা সবাই মিলে সেই জায়গায় শামিল আছি।

 

উনার (অধ্যাপক ড. মাযহারুল হাসান মজুমদার) যদি আপত্তিও থাকে, এটাকে পছন্দ না করে, তাহলে যেখানে প্রশাসনিক অর্ডার হয়, সেখানে গিয়ে বলুক আমি এটাকে মানি না। আমরা সবাই মানছি যেহেতু, উনার উচিৎ ছিল এটা মেনে চলা। এ ঘটনায় কেউ শারীরিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে না ঠিক আছে, যেহেতু ছাত্ররা এটা দেখতেছে তাহলে কেউ না কেউ উৎসাহিত হতে পারে।

 

শাবি শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক সহযোগী অধ্যাপক মো. মহিবুল আলম বলেন, কোনো শিক্ষক যদি শিক্ষক ও শিক্ষার্থী বিরোধী অনৈতিক কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকে, তাহলে এ ধরনের দায়ভার শিক্ষক সমিতি বহন করবে না। এ ধরনের কাজে কেউ জড়িত থাকলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হোক।

 

শাবি উপাচার্য অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় ধূমপানমুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়। এখন উনি অনলাইন ক্লাসে বাসায় বসে ধুমপান করেছেন তবে, ওটা ঠিক হয়নি।

 

তিনি আরও বলেন, পরবর্তীতে কেউ এ ধরনের ঘটনা ঘটালে এবং এ বিষয়ে রিপোর্ট করলে আমি ব্যবস্থা নেব। আমাদের ক্যাম্পাসে কেউ মাদকসেবন করবে, ধূমপান করবে এটা অপ্রত্যাশিত।

 

উল্লেখ্য, শাবির শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ধূমপানের প্রতি নিরুৎসাহিত করতে এর আগে ২০১৫ সালের ১৮ মার্চ ক্যাম্পাসের উন্মুক্ত স্থানে ধূমপানের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। এ নিষেধাজ্ঞা সংবলিত একটি নোটিশ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন দফতর, একাডেমিক ভবনে টানিয়ে দেয়া হয়।

 

এছাড়া, দেশের কোনো শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান হিসেবে শাবিতে প্রথমবারের মতো, গত ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের নবীন শিক্ষার্থীদের ডোপ টেস্টের মাধ্যমে ভর্তি কার্যক্রম শুরু হয়। কোনো শিক্ষার্থী মাদকাসক্ত কিনা তা ডোপ টেস্টের মাধ্যমে পরীক্ষা করা হয়। যার কার্যক্রম বছর জুড়েই অব্যাহত রয়েছে।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]