ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের ঘোষণায় পদপ্রত্যাশীদের আনন্দ মিছিল


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : ডিসেম্বর ৫, ২০২২, ৬:৪৯ অপরাহ্ণ /
ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের ঘোষণায় পদপ্রত্যাশীদের আনন্দ মিছিল

নেছারাবাদ প্রতিনিধি : পিরোজপুরের নেছারাবাদ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তির ঘোষণার পর গতকাল রোববার সন্ধ্যায় আনন্দ মিছিল করেছে পদপ্রত্যাশী ছাত্র নেতা-কর্মীরা। গতকাল বিকেলে পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি অনিরুজ্জামান অনিক এবং সাধারণ সম্পাদক ইফতেখার মাহমুদ সজল স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নেছারাবাদ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, নেছারাবাদ উপজেলা ছাত্রলীগের কার্যক্রম দীর্ঘদিন ধরে নিষ্ক্রিয়। সভাপতি ইতিমধ্যে বিয়ে করেছেন এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ গ্রহণ করেছেন। সাধারণ সম্পাদক ছাত্রলীগের কার্যক্রম থেকে দীর্ঘদিন ধরে নিষ্ক্রিয় আছেন। জেলা ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সাংগঠনিক কার্যক্রমে সক্রিয় হতে অনুরোধ করা হলেও তিনি তেমন সারা দেননি। বাংলাদেশ ছাত্রলীগের জাতীয় সম্মেলনের প্রস্তুতি উপলক্ষে বর্ধিত সভায়ও অনুপস্থিত ছিলেন। এই পরিস্থিতিতে সাংগঠনিক কার্যক্রম গতিশীল করার জন্য পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের বর্ধিত সভায় নেছারাবাদ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্তির সিদ্ধান্ত হয়।

এ নিয়ে জানতে চাইলে সদ্য বিলুপ্ত নেছারাবাদ উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি ও নেছারাবাদ উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রনি দত্ত জয় বলেন, ‘আমি বিবাহিত। এই কারণেই নাকি ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে। আমি তো লুকিয়ে বিয়ে করিনি। আমি সবাইকে বিয়ের দাওয়াত দিয়েছি। সবাই জানে আমি বিবাহিত। তা ছাড়া, উপজেলার স্বরূপকাঠি পৌর ছাত্রলীগের কমিটির গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্বে থাকা দুজন লোক বিবাহিত। উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি সর্বদাই চাঙা।’

এ ব্যাপারে পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামল দত্ত বলেন, ‘নিষ্ক্রিয় থাকা সত্ত্বেও কমিটি আঁকড়ে ছিলেন সভাপতি। তাই দলের নেতৃত্বের বিকাশ ঘটছিল না। বিবাহিত, ছাত্রত্ব না থাকা, এক পদ থেকে আরেক পদে যোগদান, দলে নিষ্ক্রিয়তার কারণে পিরোজপুর জেলা ছাত্রলীগের বর্ধিত সভায় নেছারাবাদ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত করা হয়েছে।’

২০১৭ সালের ২২ জুলাই নেছারাবাদ উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষণা হয়। সে কমিটিতে রনি দত্ত জয়কে সভাপতি এবং ইমরান আহমেদ ইমুকে সম্পাদক করা হয়েছিল।