চরফ্যাশনে পুকুর ও ঘেরের মাছ লুটের অভিযোগ


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ১৬, ২০২৩, ৭:১৭ অপরাহ্ণ /
চরফ্যাশনে পুকুর ও ঘেরের মাছ লুটের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, চরফ্যাশন : চরফ্যাশনের হালিমাবাদে কৃষকের পুকুরের মাছ লোপাট করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় গত ১২জানুয়ারি আমিনাবাদ হালিমাবাদের ৩নং ওয়ার্ড আলী হোসেনের পুত্র আব্দুল হালিম বাদী হয়ে স্ত্রী রাহিমা বেগম সহ ৪জনকে বিবাদী করে চরফ্যাশন থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, আব্দুল হালিম বহু কষ্টে অর্জিত অর্থ দিয়ে হালিমাবাদ গ্রামে ৬৬ শতাংশ জমিতে বাগান, পুকুর, মাছের ঘের সহ নানাবিদ চাষাবাদ করেন।

গত ১০ জানুয়ারি রাহিমা, কামরুল, সেলিম, নজির সহ কয়েকজন মিলে তার সৃজিত বিভিন্ন প্রজাতির প্রায় ৬০ হাজার টাকার মাছ লুটপাট করে নিয়ে যায়। ভেঙ্গে ফেলে তার সৃজিত গাছগাছালি। এসময় আব্দুল হালিম বাধা দিলে তাকে মারধর করার জন্য ঝাঁপিয়ে পড়ে।

আব্দুল হালিম জানান, তার স্ত্রী অন্যান্য বিবাদিদের সহযোগিতায় বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত। যেকোনো সময় তাঁকে বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারে মর্মে চরফ্যাসন থানায় গত ১২ জানুয়ারি অভিযোগ দাখিল করেন।

অভিযোগ পেয়ে চরফ্যাশন থানা পুলিশের এসআই শাহিন ওইদিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনে গিয়ে তার স্ত্রী সাথে সমঝোতা করে দেয়। সেদিন গভীর রাতে স্ত্রী ও তার স্বজনরা আব্দুল হালিমকে মারধর করে ঘর থেকে তাড়িয়ে দেয়। বিষয়টি পুনরায় থানা পুলিশকে জানালে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দেন। বর্তমানে তিনি তার স্ত্রী, শ্বশুরালয়ের একের পর এক অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে বিচারের আশায় সমাজপতি ও থানা প্রশাসনের দ্বারে দ্বারে ঘুরছে।

উল্লেখ্য, স্ত্রী ও বোন সুলতানা আনোয়ারের কাছে প্রায় ৮০ হাজার টাকা পাবেন। সে টাকা চাইতে গেলে বিভিন্ন হুমকি-ধামকি দিয়ে তাড়িয়ে দেয়। এ ঘটনায় একাধিকবার থানায় জিডি করলেও কোনো প্রতিকার পায়নি সে।
এই ঘটনায় অভিযুক্ত স্ত্রী রাহিমাকে এলাকায় গিয়ে খুঁজে না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি। চরফ্যাশন থানা পুলিশের এসআই শাহীন জানান, অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করেছি, সত্যতা পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।