মুক্তিযোদ্ধাকে কটূক্তির মামলায় ফেঁসে গেলো মুক্তিযোদ্ধার সন্তান


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ২০, ২০২৩, ১১:৩৪ পূর্বাহ্ণ /
মুক্তিযোদ্ধাকে কটূক্তির মামলায় ফেঁসে গেলো মুক্তিযোদ্ধার সন্তান

কাঠালিয়া প্রতিনিধি : ঝালকাঠি জেলার কাঠালিয়া উপজেলার বানাই গ্রামের, মৃত মুক্তিযোদ্ধা মো. মহিউদ্দিন তালুকদার মনির ছেলে মোঃ টপি তালুকদার একই এলাকার মৃত মুক্তিযোদ্ধা মো. খালেক হাওলাদারকে জড়িয়ে, সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে কুরুচিপূর্ণ ভাষা ব্যাবহার করে,

পোষ্ট শেয়ার করার অভিযোগে ২৪ নভেম্বর ২০২২ তারিখ জিডিটাল নিরাপত্তা আইনে বরিশাল বিজ্ঞ সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলা করেছেন, মৃত মুক্তিযোদ্ধা মো. খালেক হাওলাদাদের ছেলে, কাঠালিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. শাহিন আলম হাওলাদার।

মামলার বাদী শাহিন জানান, টপি তালুকদার আমার বাবা মৃত মুক্তিযোদ্ধা মো. খালেক হাওলাদারকে জরিয়ে। ১৯ আগস্ট এবং ৪ নভেম্বর ২০২২ সন্ধ্যায় Topi Talukder এবং Shofiqur Islam নামে দুটি আইডি দিয়ে ফেসবুকে অশ্লীল, কুরুচিপূর্ণ এবং ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা বলে একটি পোস্ট ছরিয়ে দিয়ে সাধারণ মানুষের ভিতরে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছে।

এতে আমার বাবা মৃত মুক্তিযোদ্ধা মো. খালেক হাওলাদার এবং আমাদের মানহানি হয়েছে। তাই আমি বাদী হয়ে বরিশাল বিজ্ঞ সাইবার ট্রাইব্যুনালে টপি তালুকদারের নামে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা করেছি।

মামলার সাক্ষী মো. রাজীব তালুকদার. মো. ফোরকান তালুকদার, এবং বাচ্চু মাস্টার জানান, টপি তালুকদার তার ফেসবুক আইডি থেকে ১৯ আগস্ট ও ৪ নভেম্বর ২০২২ তারিখ সন্ধ্যায় মৃত মুক্তিযোদ্ধা মো. খালেক হাওলাদারকে জরিয়ে অশ্লীল ও কুরুচিপূর্ণ এবং ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা বলে একটি পোস্ট ছরিয়েছেন।

এতে মৃত মুক্তিযোদ্ধা মো. খালেক হাওলাদার এবং দেশের সকল মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মসম্মানে আঘাৎ এনেছে বলে আমরা মনেকরি। এহেন কর্ম করার কারনে আমরা টপি তালুকদারের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি করছি।

বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. সাহজাহান খাঁন জানান, মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হয়ে অন্য মুক্তিযোদ্ধার সমালোচনা করা ঠিক নয়। এ বিষয়ে মামলার বিবাদীর সাথে কথা বলার জন্য চেষ্টা করলে তার ব্যাবহারি ফোনটি বন্ধ পাওয়াজায়।