ভারতের কারাগারে বন্দি জেলেদের ফেরার অপেক্ষায় পরিবার


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : জানুয়ারি ২০, ২০২৩, ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ /
ভারতের কারাগারে বন্দি জেলেদের ফেরার অপেক্ষায় পরিবার

লালমোহন প্রতিনিধি : সাগরে মাছ ধরতে গিয়ে ঘূর্ণিঝড় সিত্রাংয়ের সময় ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ হন ভোলার ২১ জেলে। তারা এখন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের একটি কারাগারে বন্দি রয়েছেন। তাদের মধ্যে লালমোহনের চারজন ও চরফ্যাশনের ১৭ জন রয়েছেন।

পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি দীর্ঘ দিন পাশে না থাকায় বড় কষ্টে দিনাতিপাত করছে জেলেদের পরিবার। তাই তারা ব্যাকুল আগ্রহে অপেক্ষা করছে, কখন ফিরবে পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী কর্তা?

ভারতের কারাগারে বন্দি রয়েছেন লালমোহনের পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নের পাঙাশিয়া গ্রামের জেলে ইবরাহিম, আবুল কালাম, বাবুল ও সালাউদ্দিন। তাদের পরিবারের সাথে কথা বলে জানা গেছে দুর্দশার কথা।

ভারতের কারাগারে বন্দি জেলে ইবরাহিমের স্ত্রী ইয়াসমিন বলেন, সাগরে মাছ শিকারে গিয়ে প্রায় তিন মাস আগে ঝড়ের কবলে নিখোঁজ হন আমার স্বামী ও তার ট্রলারে থাকা অন্যরা। গত মাসে জানতে পারি, তারা সবাই জীবিত। ভারতের একটি কারাগারে তারা এখন বন্দি রয়েছেন।

তিনি আরো বলেন, আমাদের সংসারে এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। আমার স্বামীই পরিবারের একমাত্র উপার্জনকারী ব্যক্তি। তিনি বাড়িতে না থাকায় অভাব-অনটনে দিন কাটছে আমাদের। ঠিকমতো তিন বেলা খেতেও পারছি না। অপেক্ষায় রয়েছি, স্বামী কবে ফিরবেন?

ভারতের কারাগারে বন্দি আরেক জেলে বাবুলের মা শাহিনুর বেগমের কান্না থামছে না এখনো। ছেলে সাগরে নিখোঁজ হওয়ার পর থেকেই কান্নাকাটির মধ্যে দিন পার করছেন তিনি। বাবুলই পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি। তার দীর্ঘ দিনের অনুপস্থিতিতে পরিবার বড় কষ্টে দিন অতিবাহিত করছে।

অভাবের কারণে বাবুলের স্ত্রী জরিনা বেগম দু’সন্তানসহ আশ্রয় নিয়েছেন বাবার বাড়িতে। তাই দ্রুত ছেলেকে দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারের কাছে অনুরোধ বাবুলের মা শাহিনুর বেগমের। তার মতো একই দাবি ভারতের কারাগারে বন্দি থাকা অন্যান্য জেলে পরিবারের।

এ বিষয়ে লালমোহন থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: মাহাবুবুর রহমান বলেন, প্রায় এক মাস আগে আমরা জানতে পারি, লালমোহনের চার জেলেসহ ২১ জন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের একটি কারাগারে আটক রয়েছেন। আমাদের কাছে তাদের তথ্য চাওয়া হলে ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের কাছে আমরা তা পাঠাই। আশা করছি, কর্তৃপক্ষ তাদের দেশে ফিরিয়ে আনার যথাযথ উদ্যোগ নেবেন।

জেলেদের ফিরিয়ে আনার ব্যাপারে ভোলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো: তামীম আল ইয়ামিন বলেন, জেলার কিছু জেলে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের একটি কারাগারে বন্দি রয়েছেন বলে জানতে পেরেছি। তাদের দ্রুত ফিরিয়ে আনতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব ধরনের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। আশা করি, তাদের খুব শিগগির ফিরিয়ে আনা সম্ভব হবে।

উল্লেখ্য, গত ২০ অক্টোবর ভোলার চরফ্যাশন উপজেলার নুরাবাদ ইউনিয়নের সৈয়দ মাঝির ট্রলার নিয়ে বঙ্গোপসাগরে মাছ শিকারে যান লালমোহন ও চরফ্যাশন উপজেলার ২১ জেলে। এদের মধ্যে লালমোহনের চারজন ও চরফ্যাশনের ১৭ জন রয়েছেন। যারা ঝড়ের কবলে পড়ে নিখোঁজ হন।