আগৈলঝাড়ায় কার্ড ছাড়া টিসিবির পণ্য না দেওয়ায় ইউপি সদস্যসহ ৩ জনকে মারধর


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : মার্চ ৩১, ২০২৩, ১১:১৭ অপরাহ্ণ /
আগৈলঝাড়ায় কার্ড ছাড়া টিসিবির পণ্য না দেওয়ায় ইউপি সদস্যসহ ৩ জনকে মারধর

আগৈলঝাড়া প্রতিনিধি : বরিশালের আগৈলঝাড়ায় কার্ড ছাড়া টিসিবির পণ্য না দেওয়ায় নারী ইউপি সদস্যসহ তিনজনকে মারধরের অভিযোগ উঠেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার মোল্লাপাড়া উচ্চবিদ্যালয় মাঠে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, বৃহস্পতিবার বিকেলে মোল্লাপাড়া উচ্চবিদ্যালয় মাঠে রত্নপুর ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ৬৯৯ জন টিসিবির কার্ডধারীর মধ্যে ২ কেজি তেল, ২ কেজি ডাল, ১ কেজি ছোলা ও ১ কেজি চিনি সরকারনির্ধারিত মূল্য ৪৭০ টাকায় সুবিধাভোগীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়।

বিতরণের শেষ দিকে কার্ডধারীদের মধ্যে চারজন অনুপস্থিত থাকায় সেই সব পণ্য উপস্থিত সুবিধাভোগীদের মধ্যে বিতরণ করা হয়। এরপর বড়িয়ালী গ্রামের কিবরিয়া সন্যামত ও ঝন্টু সন্যামতসহ পাঁচ-ছয়জন মোটরসাইকেলযোগে বিদ্যালয়ের মাঠে এসে কার্ড ছাড়াই পণ্য দাবি করেন। এ সময় পণ্য না পেয়ে ট্যাগ অফিসার আমিন ইসলাম কাজলের সঙ্গে বাগ্‌বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। একপর্যায়ে তাঁকে শার্টের কলার ধরে মারধর শুরু করেন।

তখন ৪, ৫ ও ৬ নম্বর ওয়ার্ডের সংরক্ষিত আসনের মহিলা ইউপি সদস্য সুমিত্রা গোলদার বাধা দিলে তাঁকে লাঞ্ছিত ও তাঁর স্বামী রিপন গোলদারকে মারধর করা হয়। তাঁরা উভয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন এবং বিষয়টি রত্নপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা সরদারসহ ঊর্ধ্বতনদের জানিয়েছেন। এ সময় রত্নপুর ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য শুকদেব বাড়ৈ, ৬ নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পান্নু ভূঁইয়াসহ একাধিক ব্যক্তি উপস্থিত ছিলেন।

এ বিষয়ে মহিলা ইউপি সদস্য সুমিত্রা গোলদার বলেন, টিসিবির পণ্য বিতরণের শেষদিকে প্রতি মাসেই কিবরিয়া সন্যামত ও ঝন্টু সন্যামতসহ তিন ভাই ও তাঁদের লোকজন কার্ড ছাড়া মালামাল নিয়ে যান। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার পরে টিসিবির পণ্য নিতে এসে পণ্য না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে ট্যাগ অফিসারের দায়িত্বে থাকা আমিন ইসলামের ওপর হামলা করেন। আমি এ সময় বাধা দিলে তাঁরা আমাকে ও আমার স্বামীকে মারধর করেন।

কিবরিয়া সন্যামত মারধরের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, কাউকে মারধর করা হয়নি। এসব নিয়ে নিউজ করার কোনো দরকার নেই। এ ব্যাপারে ট্যাগ অফিসারের দায়িত্বে থাকা আমিন ইসলাম কাজল বলেন, ‘আমাকে কেউ মারধর করেনি। শুধু ধাক্কাধাক্কি হয়েছে।’

এ বিষয়ে ট্যাগ অফিসার সুশান্ত বালা বলেন, ‘আমি অসুস্থ থাকায় সমাজসেবা অফিসের আইটির কাজে কর্মরত থাকা আমিন ইসলাম কাজলকে পাঠিয়েছিলাম। ধাক্কাধাক্কির বিষয়টি আমি শুনেছি।’

এ ব্যাপারে রত্নপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আশরাফ মীর বলেন, ‘কার্ড ছাড়া টিসিবির পণ্য না পেয়ে মেম্বারসহ তিনজনের ওপর হামলার ঘটনা আমি শুনেছি, বিষয়টি অত্যন্ত দুঃখজনক।’

রত্নপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তফা সরদার বলেন, ‘কার্ড ছাড়া টিসিবির পণ্য না দেওয়ায় মারধরের ঘটনা আমাকে নারী ইউপি সদস্যসহ একাধিক ব্যক্তি জানিয়েছেন। আমি মৌখিকভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানকে জানিয়েছি। আগামী রোববার বিষয়টি লিখিতভাবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে জানানো হবে।’