মঠবাড়িয়ায় স্ত্রীর টিকটক আসক্তিতে ভেঙে যাচ্ছে প্রবাসীর সাধের সংসার


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : এপ্রিল ৩, ২০২৩, ১:৩০ অপরাহ্ণ /
মঠবাড়িয়ায় স্ত্রীর টিকটক আসক্তিতে ভেঙে যাচ্ছে প্রবাসীর সাধের সংসার

পিরোজপুর প্রতিনিধি : পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় দিনের পর দিন স্ত্রী টিকটক ভিডিয়োতে আসক্ত থাকায় বিচ্ছিন্ন হয়ে যাচ্ছে দীর্ঘদিনের দাম্পত্য জীবন। সম্প্রতি খোকন নামে এক প্রবাসী তার স্ত্রীকে এই ভয়াল আসক্তি থেকে ফেরাতে না পেরে এবং জমি বিক্রির টাকা আত্মসাৎ করায় বাধ্য হয়ে দ্বিতীয় বিয়ে করেন।

অতঃপর স্ত্রী আসমা বেগম মিথ্যা সাজানো মামলা দিয়ে স্বামী খোকনকে হয়রানি করছেন বলে অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি এমন একটি ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়।

আসমা বেগম উপজেলার হোগলপাতি গ্রামের আবু জাফর তালুকদারের মেয়ে এবং প্রবাসী খোকন ওরফে রহমান ভাইজোড়া গ্রামের হাবিবুর রহমান ফকিরের ছেলে। আসমা বেগমের মঠবাড়িয়া থানায় দায়ের করা মামলায় উল্লেখ করেন- যৌতুকের দাবিতে স্বামী নিজ বসত ঘরে তাকে মারধর করেছেন। এ মামলায় খোকন বর্তমানে জেল-হাজতে রয়েছেন।

গতকাল রবিবার (২ এপ্রিল) সকালে স্থানীয় বাসিন্দা মুন্নি বেগম (৩০), শাহিদা (৪০), আলতাফ খন্দকার (৫০), মুনসুর আলী (৭০) জানান, আসমা বেগম এ বাড়ি থেকে ১ বছর আগে গিয়ে পিত্রালয় আশ্রয় নিয়েছে। স্বামী-স্ত্রীর সাথে দেখাই হয়নি। মারামারির ঘটনা সম্পূর্ণ মিথ্যা।

স্থানীয় বাসিন্দা প্রধান শিক্ষক সাইদুল করিম ফারুক (৫৬), জাহানারা বেগম (৫০), ভুক্তভোগী খোকনের মা তহমিনা বেগম (৫৫) জানান, প্রবাসী খোকনের স্ত্রী আসমা বেগম যৌথ ঘরে বসবাস করতে অপারগতা প্রকাশ করায় তাকে নতুন আলাদা ঘর করে দেয় খোকন। সে ওই ঘরেও বসবাস না করে খোকনের অমতে সাপলেজা বাজারে ভাড়া বাসায় বসবাস শুরু করে। এরপর খোকনের কাছে উল্টো যৌতুক দাবি করলে স্ত্রী আসমার নামে ওই বাজাবে যৌথ নামে জমি ক্রয় করে। যা পরবর্তীতে বিক্রি করে আসমা ও তার বাবা আবু জাফর টাকা আত্মসাৎ করেন।

এ দিকে বিদেশে থাকা কালীন সময় খোকনের ‘আকামা’ করে দেয়ার ৩ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে শ্যালক আলামীন। অপর দিকে আসমা বেগম অব্যাহত ‘টিকটক ভিডিয়ো’ বন্ধ না করায় স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মোবাইলে ঝগড়া লেগেই থাকে। এক পর্যায় আসমা বেগম স্বামীর ঘর সংসার করবেনা মর্মে জানিয়ে দেয়। তাই বাধ্য হয়ে সম্প্রতি খোকন দ্বিতীয় বিয়ে করে। আসমা ও তার বাবা আবু জাফর জমি বিক্রির টাকা নেয়ার বিষয়টি ওই জমির ক্রেতা শহীদুল ইসলামের স্ত্রী রিনা বেগম নিশ্চিত করেছেন।

স্থানীয়রা প্রশাসনের কাছে তদন্ত পূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দাবি জানিয়েছেন খোকন কেন দ্বিতীয় বিয়ে করে এবং আধৌ মারধরের ঘটনা ঘটেছে কি-না? এ ব্যাপারে কথা বলার জন্য সরেজমিনে গেলে অভিযুক্ত আসমা বেগম কথা বলতে রাজি হননি।