টুংগীবাড়িয়ায় নারীকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ


Barisal Crime Trace -FF প্রকাশের সময় : আগস্ট ২০, ২০২৩, ৭:১৪ অপরাহ্ণ /
টুংগীবাড়িয়ায় নারীকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল : বরিশাল সদর উপজেলার ৯নং টুংগীবাড়িয়া ইউনিয়নের সোমরাজি গ্রামের শরিফ বাড়িতে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে জাহানারা নামের এক নারীকে কুপিয়ে জখম করেছে প্রতিপক্ষ।

ঘটনাটি ঘটেছে ১৯ আগস্ট দিবাগত রাত সাড়ে ৯টার দিকে এই ঘটনা ঘটে বলে জানিয়েছে আহত নারীর স্বজনরা। আহত জাহানারার স্বামী আলী আহম্মেদ জানান, আমাদের বাড়ি মোশারফ হোসেন (কামাল) মজুমদার গংদের সাথে আমাদের জমিজমা নিয়ে বিরোধ চলে আসছে।

আমরা একাধিকবার শালিশ মিমাংসার জন্য বসলেও এক পর্যায়ে এসে মোশারফ হোসেন (কামাল) মজুমদার গংরা শালিশ মিমাংসা মানে না। এমন ঘটনার পরে মোশারফ হোসেন (কামাল) মজুমদার বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

অভিযোগের পরে বন্দর থানার পুলিশ পরির্দশক(ওসি তদন্ত) হরিদাস নাগ সরেজমিনে তদন্তে যান এবং উভয় পক্ষকে কাগজপত্র নিয়ে থানায় ডাকেন।

আমরা থানায় যাওয়ার পরে আবারো শালিশ মিমাংসা করার জন্য উভয়পক্ষকে শালিশগনের নাম দেয়ার জন্য বলেন। আমরা ১৯ আগস্ট রাতে থানায় গিয়ে শালিশগনের নাম দেই।

এই সুযোগে মোশারফ হোসেন (কামাল) মজুমদার গংরা আমার ঘরের পিছনে ওৎ পেতে থাকে। আমার স্ত্রী জাহানারা বেগম ঘরের পিছনে টয়লেট থেকে ঘরে যাওয়ার পথে তাকে এলোপাথারী কুপিয়ে জখম করে।

আমাকে আমার বাড়ির লোকজন ফোন করলে বাড়ি যাওয়ার পথেই দেখি স্থানীয়রা আমার আহত স্ত্রীকে উদ্ধার করে নিয়ে আসতে আছে। আমি আমার আহত স্ত্রীকে নিয়ে বন্দর থানায় গেলে তারা দ্রুত চিকিৎসা করানোর জন্য বলেন।

পরে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আমার স্ত্রীকে ভর্তি করি। আমার স্ত্রীর মাথার ২ স্থানে কোপ লাগে এতে তার মাথায় প্রায় ১৬টি সেলাই
লাগে।

আহত জাহানার স্বামী আলী আহম্মদ স্ত্রীর বরাত দিয়ে আরো জানান, আমার স্ত্রীকে কুপিয়েছে মৃত মন্নান মজুমদারের ছেলে মোশারফ হোসেন (কামাল) মজুমদার, তোফাজ্জেল হোসেন মজুমদার, মোজাম্মেল হোসেন মজুমদার, আবদুল
জব্বার হাওলাদারের ছেলে আকতারুজ্জামান(বাচ্চু), মোশারফ হোসেন (কামাল) মজুমদার ছেলে সানাউল মজুমদার, কামাল রাড়ির ছেলে রানা রাড়িসহ আরো প্রায় ৫/৭ জন ছিলেন।

আহত নারীর বিষয়টি নিয়ে কথা হয় বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকের সাথে তিনি জানান, আহত জাহানারার সিটি স্ক্যান করানো হয়েছে তাতে তার মাথার হাড়ে জখম হয়েছে।

আমরা একদিন দেখবো উন্নতি না হলে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় প্রেরণ করা হতে পারে। এব্যাপারে বন্দর থানার পুলিশ পরির্শদক(ওসি তদন্ত) হরিদাস নাগ জানান, বিষয়টি আমরা জেনেছি এবং আহতকে চিকিৎসার জন্য বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।