বরিশালে পুলিশের রিভলবারের আঘাতে মানসিক ভারসাম্যহীন যুবক


Mahadi Hasan প্রকাশের সময় : জুন ৮, ২০২৪, ৮:৪৯ অপরাহ্ণ /
বরিশালে পুলিশের রিভলবারের আঘাতে মানসিক ভারসাম্যহীন যুবক

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: বরিশালের উজিরপুর উপজেলায় এক যুবককে অমানুষিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে এসআই অন্তর আহমেদের বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী মেহেদী হাসান মিঠু বর্তমানে বরিশাল শেরে বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

হাসপাতালের বেডে শুয়ে কাতরাচ্ছেন যন্ত্রণায়, হারিয়েছেন মানসিক ভারসাম্য। চিনতে পারছেন না পরিবারের সদস্যদের, এমনকি চিনতে পারছেন না নিজের স্ত্রী-সন্তানকেও। উপজেলার মুণ্ডপাশা গ্রামে গত ৩০ মে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, ঐ এলাকায় বাড়ির পাশে আঙিনায় বসে বন্ধুদের সঙ্গে মোবাইলে লুডু খেলছিলেন মেহেদী। এ সময় উজিরপুর থানার এসআই অন্তরসহ দুই পুলিশ সদস্য হাজির হন সেখানে। তখন মেহেদীদের বিরুদ্ধে জুয়া খেলার অভিযোগ তোলেন তিনি।

এ নিয়ে বাকবিতণ্ডা হওয়ার একপর্যায়ে এসআই অন্তর কাছে থাকা রিভলবার দিয়ে মেহেদীর মাথায় একাধিক আঘাত করেন। এতে মেহেদীর চিৎকারে এলাকাবাসী জড়ো হন। পরে মেহেদীর বিরুদ্ধে জুয়া খেলার অভিযোগ তোলা হয়, দেওয়া হয় আটকের হুমকি। পরে ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে দফারফা করেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শী একজন বলেন, এসআই অন্তর ভুক্তভোগী মেহেদীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ তুলে তার মাথায় রিভলবার দিয়ে অনেকগুলো আঘাত করেন। মাথার সব জায়গায় আঘাত করেন ঐ এসআই।

আরেক নারী বলেন, নির্যাতনের সময় এসআই অন্তর মেহেদীর নাক ও গলা চেপে মুখের মধ্যে পিস্তল ঢুকিয়ে দেন। মেহেদীর স্ত্রী জানান, জুয়া খেলায় আটকের হুমকি দেখিয়ে ঐ এসআই আমাদের কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা নিয়েছেন। আর এ ঘটনা কোনো পুলিশ ও মিডিয়াকে না জানানোর শর্তে জবানবন্দি নেন তিনি।

এ বিষয়ে জানতে এসআই অন্তরকে একাধিকবার ফোন করা হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি। সার্বিক বিষয়ে উজিরপুর থানার ওসি মো. আবু জাফর বলেন, ঘটনাটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও মিথ্যা। ঘটনাটি সঠিক নয়।

বরিশাল জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. রেজোয়ানুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে এখনো কোনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করা হবে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে আমরা অবশ্যই এসআই অন্তরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেব।