গৌরনদীতে ভোটার উপস্থিতি স্বতঃস্ফূর্ত, আগৈলঝাড়ায় ভোটকেন্দ্র ফাঁকা


Mahadi Hasan প্রকাশের সময় : জুন ৯, ২০২৪, ৪:৪৯ অপরাহ্ণ /
গৌরনদীতে ভোটার উপস্থিতি স্বতঃস্ফূর্ত, আগৈলঝাড়ায় ভোটকেন্দ্র ফাঁকা

নিজস্ব প্রতিবেদক, বরিশাল: বরিশালের গৌরনদী ও আগৈলঝাড়ায় আজ রোববার সকাল থেকে ভোট গ্রহণ চলছে। গৌরনদীর কেন্দ্রগুলোতে পুরুষ ভোটারের চেয়ে নারী ভোটারদের উপস্থিতি বেশি চোখে পড়েছে। অপর দিকে পার্শ্ববর্তী আগৈলঝাড়া উপজেলায় ভোটার উপস্থিত ছিল কম।

গৌরনদীর বাটাজোর অশ্বিনী কুমার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সকালে ভোটার উপস্থিতি কম থাকলেও বেলা গড়াতেই নারী-পুরুষের উপস্থিতি বাড়তে থাকে। সংখ্যালঘু অধ্যুষিত এ কেন্দ্রে শুরু থেকেই নানা শঙ্কা ছিল।

সকাল সোয়া ১০টায় কথা হয় পূর্ব শৌলকার এলাকার দুই ভাই বৃদ্ধ আজিজ ফকির (৭৫) ও আদেল উদ্দিন ফকিরের (৮০) সঙ্গে কথা হয়। তাঁরা বলেন, এমন ভোট অনেক দিন হয়নি এখানে। শনিবার রাতেও পরিবেশ গরম ছিল। কিন্তু গরমে কাজ হয়নি। এবার ভোট দিতে পারছেন বলে জানান দুই ভাই।

গৌরনদীর বাটাজোর অশ্বিনী কুমার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মো.সাইদুর রহমান বলেন, এ কেন্দ্রে মোট ভোটার ২ হাজার ৮৪১ জন। সকাল ১০টা পর্যন্ত মোট ৩১৬ ভোট গ্রহণ হয়েছে। ভোটের হার ১১ ভাগ। তিনি বলেন, এটি অনেকটা ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র।

মাহিলারা অনন্ত নারায়ণ মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে বেলা পৌনে ১১টায় গিয়ে দেখা গেল নারী ভোটারদের ভিড় আছে বেশ। এখানকার প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, এ কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ১ হাজার ৯৭৩। বেলা ১১টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ হয়েছে ৪৭২ জন। ভোটের হার ২৪ দশমিক ৪৩ ভাগ।

এ কেন্দ্রে ভোট দিতে আসা বাসন্তী রানী বলেন, ‘মনে করেছিলাম ভোট দিতে পারব না। ভয় ছিল রাতে ঝামেলা হবে। কিন্তু ভোট দিতে এসে দেখি সব শান্ত।’ একই কথা জানালেন গৃহবধূ লক্ষ্মী রানী। তিনি ভোট দিতে পেরে খুশি। পাশের পুরুষ কেন্দ্রে মোট ভোটার ২ হাজার ১৩৫টি। বেলা সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ হয় ৫৫১টি।

গৌরনদীতে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মোটরসাইকেল প্রতীকের হারিছুর রহমান এবং কাপ–পিরিচ প্রতীকের মনির হোসেন। অপর দিকে আগৈলঝাড়ার দত্তেরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দুপুর ১২টায় গিয়ে ফাঁকা দেখা গেছে।

প্রিসাইডিং কর্মকর্তা বশির হাওলাদার বলেন, এ কেন্দ্রে ভোটার ২ হাজার ৮২২। দুপুর ১২টা পর্যন্ত ৪৫৩ ভোট গ্রহণ হয়েছে। ভোটের হার ১৭ ভাগ। এখানকর ভোটার আলম ফকির বলেন, ‘গ্রামে গিয়ে মহিলাদের ডাকলেও আসেননি। পুরুষ কিছু এসেছে। মানুষ আসতে চায় না।’

সেরাল মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দুপুর ১২টার দিকে ভোটার শূন্য দেখা গেছে। এখানকার প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, কেন্দ্রটিতে মোট ভোটার ২ হাজার ৮০৯ জন। দুপুর ১২টা পর্যন্ত ভোটা দেন ৫১২ জন। ভোটের হার ১৮ দশমিক ২৩। এ কেন্দ্রের ভোটার স্থানীয় সংসদ সদস্য আবুল হাসানাত আবদুল্লাহ।

পাশের টেমার সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রেও ভোটার দেখা যায়নি তেমন। সেখানে মোট ভোটার ১ হাজার ৬৬২ জন। দুপুর ১২টা পর্যন্ত এ কেন্দ্রে ভোট পড়েছে ৩১৫টি। ভোটের হার ১৯ ভাগ বলে জানান প্রিসাইডিং কর্মকতৃা মো. শহিদুল ইসলাম। আগৈলঝাড়ায় মূল প্রতিদ্বন্দ্বী চেয়ারম্যান প্রার্থী আনারস প্রতীকের আব্দুর রইছ সেরনিয়াবাত এবং দোয়াত–কলম প্রতীকের যতীন্দ্র নাথ মিস্ত্রী।