হাসপাতালে লাশ রেখে পালালেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন, স্বজনদের দাবি হত্যা


Mahadi Hasan প্রকাশের সময় : জুলাই ১১, ২০২৪, ১২:৪২ অপরাহ্ণ /
হাসপাতালে লাশ রেখে পালালেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন, স্বজনদের দাবি হত্যা

ভোলার রতনপুরে এক গৃহবধূর লাশ হাসপাতালে ফেলে পালিয়েছেন শ্বশুরবাড়ির লোকজন। নিহতের স্বজনদের দাবি, পারিবারিক কলহের জেরে তাকে হত্যা করা হয়েছে।

বুধবার (১০ জুলাই) বিকেল ৪টার দিকে হাসপাতাল ওই গৃহবধূর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহত গৃহবধূর নাম সানজিদা সদর উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের রতনপুর গ্রামের রাজমিন্ত্রী সোবাহানের স্ত্রী।

পুলিশ জানায়, দুপুর পৌনে ৩টার দিকে অচেতন অবস্থায় গৃহবধূ সানজিদাকে ভোলার ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে আসেন এক নারীসহ কয়েকজন। নাম লেখা হয় আমেনা বেগম। জরুরি বিভাগের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণার করার পর মরদেহ ফেলে পালিয়ে যায় সঙ্গে আসা সবাই।

পরে হাসপাতাল থেকে থানায় খবর দেওয়া হলে পুলিশ গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়। তবে হাসপাতালে কোনো স্বজনকে না পেয়ে পুলিশ নিহত গৃহবধূর স্বামী সোবহানের বাড়িতে গিয়েও কাউকে পায়নি। পরে খবর পেয়ে নিহত সানজিদার স্বজনরা হাসপাতালে ছুটে আসেন।

ভোলা সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান পাটোয়ারী গণমাধ্যমকে জানান, হাসপাতালের মাধ্যমে খবর পেয়ে পুলিশ মরদেহের সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। নিহতের শ্বশুরবাড়িতে গিয়েও কাউকে পাওয়া যায়নি। প্রকৃত ঘটনা উদঘাটনে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে।