কাঁদলেন ও কাঁদালেন পিরোজপুরের পুলিশ সুপার

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত জুলাই ১৭ শনিবার, ২০২১, ০৩:৩৫ অপরাহ্ণ
কাঁদলেন ও কাঁদালেন পিরোজপুরের পুলিশ সুপার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট; পিরোজপুর: পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মো. হায়াতুল ইসলাম খানের বিদায় অনুষ্ঠান উপলক্ষে অঝোর ধারায় কাঁদলেন তিনি। আর এ সময় উপস্থিত সহকর্মীরাও তার বিদায়ে মর্মাহত হয়ে অঝোর ধারায় কাঁদলেন।

 

শনিবার (১৭ জুলাই) সকালে জেলা পুলিশ লাইনে অনুষ্ঠিত ওই বিদায় অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোল্লা আজাদ, সহকারী পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো.ঠান্ডার খায়রুল ইসলাম, নেছারাবাদ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার মো. রিয়াজুল ইসলাম।

 

এ সময় পুলিশ সুপারের গাড়িটি ফুল দিয়ে সাজিয়ে ও গাড়িটি রশি দিয়ে বেঁধে পুলিশের বিভিন্ন কর্মকর্তারা তা টেনে বের করেন। এ সময় ওই গাড়িতে ফুল ছিটিয়ে তাকে সম্মান প্রদর্শন করা হয়।

 

বিদায়ী পুলিশ সুপার তার এমন সম্মান জনক বিদায়ে তিনি আবেগ আপ্লুত হয়ে সহকর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে কেঁদে ফেলেন। ওই বিদায় অনুষ্ঠানে সহকর্মীরা বক্তব্য কালে তার সততা ও আত্মরিকতার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে কেঁদে ফেলেন সেখানে উপস্থিত পুলিশ সদস্যরা।

 

উল্লেখ্য, গত রবিবার (১১ জুলাই) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রনালয়ের জন নিরাপত্তা বিভাগের পুলিশ-১ শাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাস স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে পুলিশ সুপার মো. হায়াতুল ইসলাম খানের বদলির আদেশ করা হয়। এতে তাকে (হায়াতুল ইসলাম খান) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উপ-কমিশনার হিসাবে ও চট্টগ্রাম রেঞ্জ কার্যালয়ের পুলিশ সুপার (এসপি) মোহাম্মাদ সাঈদুর রহমানকে পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হিসাবে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে।

 

পিরোজপুরের পুলিশ সুপার মো. হায়াতুল ইসলাম খান গত ২০১৯ সালের মে মাসে পিরোজপুরের পুলিশ সুপার হিসাবে যোগদান করেন। তিনি এখানে যোগদানের পর জেলার আইন-শৃঙ্খলার উন্নতি করতে জেলা ঝুড়ে ব্যাপক অভিযান চালান। মাদক
ব্যবসা নিমূল সহ অপরাধ দমনে সচেষ্ট ছিলেন।

 

গত ২০২০ সালের মার্চ মাসে করোনার প্রভাব দেখা দিলে তিনি নিজ উদ্যোগে করোনায় কর্মহীনদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী, অসহায় শীতার্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন সহ গত বছরে জেলার ইন্দুরকানীতে করোনায় মৃত্যু ব্যাক্তিকে স্বজনরা ফেলে গেলেও পুলিশের
উদ্যোগে তাকে (হিন্দু) সৎকার করা সহ বিভিন্ন মানবিক কর্মকান্ডে তিনি জেলা ঝুড়ে সাধারনের কাছে আন্তরিকপূর্ন হয়ে উঠেন।

 

এ ছাড়া তিনি এখানে যোগদানের পর জেলা শহর সহ জেলার বিভিন্ন উপজেলারে কিশোর গ্যাং, রাতে ছাত্রদের ঘরের বাহিরে বের না হওয়ার জন্য শিক্ষার্থী অভিভাবকদের নিয়ে কাউন্সিলিং সহ পিরোজপুর পৌর শহরকে অপরাধ মুক্ত করতে ক্লোজ সার্কিট (সিসি) ক্যামেরার আওতায় আনেন।

 

পিরোজপুরে তিনি একজন সৎ পুলিশ কর্মকর্তা হিসাবে পরিচিতি পান ও জেলা পুলিশকে একটি মানবিক পুলিশ ইউনিট হিসাবে গড়ে তুলেন। তিনি ২৪ তম বিসিএস’এ সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) হিসাবে পুলিশ বাহিনীতে যোগদান করেন।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]