বেতাগীতে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত জুলাই ১৯ সোমবার, ২০২১, ০৯:৫৫ অপরাহ্ণ
বেতাগীতে সাবেক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে হত্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক || বরগুনায় বেতাগীতে আনারুল ইসলাম টিটু হাওলাদার (৩০) নামে সাবেক এক ইউপি সদস্যকে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

 

আজ সোমবার দুপুর সাড়ে বারোটায় উপজেলার কাজিরাবাদ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ খবর পেয়ে বিকেল চারটায় বরগুনা সদর উপজেলার ফুলঝুড়ি ইউনিয়নের ছোট গৌরিচন্না ফকিরহাট এলাকা থেকে আহতাবস্থায় টিটুকে উদ্ধার করে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে টিটুকে নিয়ে আসে। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক এসময় তাকে মৃত ঘোষণা করে।

 

নিহত আনারুল ইসলাম টিটু বেতাগী উপজেলার সরিষামুড়ি ইউনিয়নের ভোড়া এলাকার বাসিন্দা কাদের হাওলাদারে ছেলে। তিনি ওই ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের সাবেক ইউপি সদস্য।

 

স্বজনদের দাবি, সরিষামুড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ শরীফ ও বর্তমান চেয়ারম্যান ইমাম হাসান শিপনের মধ্যে ইউপি নির্বাচন নিয়ে বিরোধীতার জেরে একের পর এক হামলা পাল্টা হামলার ঘটনা ঘটেছে।

 

সেই সংঘর্ষের জেরেই এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। টিটু সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ শরীফের ঘনিষ্ঠ কর্মী ছিলেন।

 

ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী নিহত টিটুর ভাতিজা বায়েজিদ হোসেন জানান, আজ সোমবার সকাল ১০টার দিকে আমার চাচা আনারুল ইসলাম টিটু বেতাগীতে ইউপি সদস্যর সম্মানীভাতার টাকা আনতে যায়। দুপুর ১২টার দিকে বেতাগী সদর থেকে মোটরসাইকেলযোগে সরিষামুড়ি ফিরছিলেন।

 

বেলা সাড়ে বারটার দিকে তিনি কাজিরাবাদ ইউনিয়নের কাউনিয়া পোলেরহাট ইটভাটা এলাকায় পৌঁছলে ১৫ থেকে ২০ জন দুর্বৃত্ত সড়কের উভয় দিক থেকে পথরোধ করে তাকে মারধর শুরু করে।

 

হামলার শিকার হয়ে আত্মরক্ষার জন্য সে সড়কের পাশে খালে লাফ দেয়। কিন্ত খাল থেকে তুলে তার ঘারের পেছনে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে যখম ও ইট দিয়ে শরীরের বিভিন্নস্থানে আঘাত করা হয়।

 

এসময় টিটুর সাথে থাকা আমরা কয়েকজন তাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসতে চাইলে দুর্বৃত্তরা আমাদের দেশীয় অস্ত্র দেখিয়ে ধাওয়া দেয়।

 

এরপর তাকে কালো একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে বরগুনার দিকে চলে যায়। হামলাকারী বাকিরা মোরটসাইকেলে ওই মাইক্রোর পেছনে চলে যায়।

 

কালো মাইক্রোতে বর্তমান চেয়ারম্যান ইমাম হাসান শিপনের ছোট ভাই রেজাউল ইসলাম টিটু বসা ছিলেন বলে জানান বায়েজিদ।

 

বেলা আড়াইটার দিকে বরগুনা সদর উপজেলার ফুলঝুড়ি ইউনিয়নের ছোটগৌরীচন্না এলাকায় বেতাগী-বরগুনা মহসড়কের পাশে আহতবাস্থায় টিটুকে পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়।

 

খবর পেয়ে বরগুনা সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে বেতাগী থানা পুলিশের সহায়তায় তাকে বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসে।
পরীক্ষা-নীরিক্ষার পর হাসপাতালের চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

 

বায়েজিদ আরও জানান, সদ্য সমাপ্ত ইউপি নির্বাচনের প্রচারণার সনময় সরিষামুড়ি ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ইউসুফ শরীফ ও বর্তমান চেয়ারম্যান ইমাম হাসান শিপন সমর্থকদের মধ্যে একাধিক সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। নিহত টিটু ইউসুফ শরীফেরসমর্থক ছিলেন।

 

নিহতের স্ত্রী শিল্পী বেগম বলেন, ইলিকশন লইয়া বাজবাজি আছিল, মোর স্বামীরে চেয়ারম্যান শিপনের ভাই টিটুর নেতৃত্বে মার্ডার কইরা ফালাইয়া রাখছে। মুই মোর স্বামী হত্যার বিচার চাই’ নিহত টিটু সরিষামুড়ি ইউনিয়নের নির্বাচন কেন্দ্রিক সহিংসতা আহত রফিক বিশ্বাসকে কুপিয়ে জখমের মামলার আসামী।

 

এছাড়াও টিটুর বিরুদ্ধে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান ইউসুফ শরীফের হয়ে একাধিক সহিংসতার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ছিল এছাড়াও ওই ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান ইমাম হাসান শিপনকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় টিটুর জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে।

 

যোগাযোগ করা হলে বেতাগী উপজেলার সরিষামুড়ি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ইমাম হাসান শিপন জানান, টিটু মেম্বর কুখ্যাত ডাকাত ইউসুফ শরীফের ডান হাত।

শুনেছি কাউনিয়া এলাকায় ডাকাতী করতে গিয়ে গনপিটুনির শিকার হয়ে সে মারা গেছে।

 

এ ঘটনায় আমি বা আমার ভাই টিটুসহ আমার কোনো লোকজন জড়িত না। আমাদের বিরুদ্ধে যারা অভিযোগ করে এটা রাজনৈতিক উদ্দেশ্য প্রনোদিত।

 

এ বিষয় বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী সাখাওয়াত হোসেন তপু বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে বলেন,‘ ঘটনার খবর পেয়ে থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে জন্য বরগুনা প্রেরন করা হয়েছে। ঘটনা সঠিক রহস্যে এবং খুনের সাথে সম্পৃক্তদের খুঁজে বের করতে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। ’

 

এ ব্যাপারে, বরগুনা পুলিশ সুপার জাহাঙ্গীর মল্লিক সাংবাদিকদের জানান, এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনা হবে। তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক বিচারের আওতায় আনা হবে।

 

উল্লেখ্য, ২০২০ সালের ২০ নভেম্বর সরিষামুড়ি ইউনিয়নের সাতঘর কালিকাবাড়ি বাজার এলাকায় একটি বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে ফেরার পথে দুর্বৃত্তদের হামলার শিকার হয়ে প্রায় পঙ্গুত্ব বরণ করে বেঁচে আছেন। ২০২১ সালের ১৯ মার্চ মনোনয়পত্র জমা দেয়া নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় দুই চেয়ারম্যান প্রার্থী শিপন ও ইউসুফ সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষের উভয় পক্ষের অন্তত ১০জন আহত হন।

 

ওই সংঘর্ষের ঘটনায় টিটু মেম্বর ইউসুফ শরীফের পক্ষের নেতৃত্বে ছিলেন এমন অভিযোগ রয়েছে।

 

এরপর গত ২৪ মার্চ ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সরিষামুড়ি ইউনিয়নের ভোড়া এলাকায় রাত ১০টার দিকে রফিক বিশ্বাস নামের এক যুবককে কুপিয়ে যখম করে ফেলে রাখা হয়।

 

এর মধ্যে রফিক বিশ্বাসকে কুপিয়ে জখমের
ঘটনার মামলায় টিটুকে আসামী করে বেতাগী থানায় মামলা করা হয়।

 

ইউপি নির্বাচনের ঠিক আগের দিন ২০ জুন রাত ১০টার দিকে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান‌ ইউসুফ শরীফের স্ত্রীকে নিজ বাড়িতে কুপিয়ে জখম করা হয়।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]