আলেমদের নির্যাতন বন্ধ না করলে আল্লাহর গজব পড়বে: হেফাজত

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত এপ্রিল ১৫ বৃহস্পতিবার, ২০২১, ০২:২২ অপরাহ্ণ
আলেমদের নির্যাতন বন্ধ না করলে আল্লাহর গজব পড়বে: হেফাজত

বরিশালক্রাইমট্রেস ডেস্কঃ বাংলাদেশ হেফাজতে ইসলামের নেতাদের গ্রেপ্তার ও দেশের বিভিন্ন স্থানে সংগঠনটির নেতাকর্মীদের নির্যাতন ও হয়রানির প্রতিবাদ জানিয়েছেন সমমনা ওলামা-মাশায়েখরা। গ্রেপ্তার হেফাজত নেতাদের রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতনের তীব্র নিন্দা ও আলেমদের হয়রানি বন্ধ না করলে আল্লাহর গজব পড়বে বলে তারা এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন।

বৃহস্পতিবার (১৫ এপ্রিল) এক টেলিকনফারেন্সে এসব কথা বলেন ওলামা-মাশায়েখরা।

 

বিবৃতিতে ওলামা-মাশায়েখরা বলেন, বিগত ২৬, ২৭ ও ২৮ মার্চ পরিস্থিতির পরবর্তী অবস্থা দেশবাসীর সামনে স্পষ্ট। দেশের আলেম-ওলামাদের বিরুদ্ধে যেভাবে মিথ্যাচার ও তাদের মানহানি করা হচ্ছে, এতে মনে হচ্ছে আলেম-ওলামারা ভিনদেশি নাগরিক।

 

এই পরিস্থিতি চলতে থাকলে কেউই আল্লাহর পাকড়াও থেকে রেহাই পাবে না। নিরীহ মাদরাসার ছাত্র শিক্ষকদের ওপর অন্যায়ভাবে গুলি চালিয়ে শহীদ করে দেওয়া এবং শত শত নিরাপরাধ মানুষকে জীবনের তরে পঙ্গু করে দেয়া হচ্ছে, আবার তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা করে গ্রেপ্তার ও হয়রানি করা হচ্ছে।শুধু তাই নয় আমিরে হেফাজত আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরীকে নতুন করে মিথ্যা হত্যা মামলায় জড়ানো হয়েছে।

 

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা আজিজুল হক ইসলামাবাদী, মুফতি সাখাওয়াত হোসাইন রাজী, মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, মাওলানা রফিকুল ইসলাম মাদানী, মাওলানা ইলিয়াস হামিদী, মুফতি শরীফুল্লাহ ও মুফতি বশির উল্লাহসহ নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে চারজন, ভোলায় সাতজন, সিলেটে সাতজন, গাজীপুরে চারজন, নরসিংদীতে একজনকে ডিবি অফিসে হয়রানি ও গ্রেপ্তার করে রিমান্ডে নিয়ে নির্যাতন করা হচ্ছে।

 

আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি, এহেন পরিস্থিতিতে ওলামা-মাশায়েখসহ দেশবাসী গভীরভাবে উদ্বিগ্ন ও উৎকণ্ঠিত। আল্লাহপাক কোনো জালেমকে ছেড়ে দেন না। আল্লাহর গজব থেকে রক্ষা পেতে হলে এই ধরনের অমানবিক কর্মকাণ্ড বন্ধ করুন।

 

তারা বলেন, বর্তমান সরকারদলীয় প্রশাসন ভিন্ন মতাবলম্বীদের জন্য দেশটাকে একটি কারাগারে পরিণত করেছে। সম্মানিত ব্যক্তিদের ইজ্জতের কোনো তোয়াক্কা নেই। দেশের সাধারণ মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা নেই। এভাবে একটি সভ্য জাতি মান-সম্মান নিয়ে টিকে থাকতে পারে না।

 

সুতরাং আমরা পরিষ্কার বলে দিতে চাই, এ দেশের মানুষের আস্থার প্রতীক, আদর্শ ও শান্তিপ্রিয় সমাজ বিনির্মাণের চালিকাশক্তি ওলামায়ে কেরামদের ওপর জেল জুলুম নির্যাতন বন্ধ করুন।

 

মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করুন। অন্যায়ভাবে গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের নিঃশর্ত মুক্তি দিন। শত শত আহত রোগীদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করুন। নিহত পরিবারের যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করুন। নতুবা এই পবিত্র মাহে রমজানে মজলুমদের আহাজারিতে আল্লাহর আরশ কেঁপে উঠবে। আর আল্লাহর গজব থেকে কেউই রেহাই পাবে না।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]