কলাপাড়ায় বীরমুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে রাজাকার আখ্যায়িত করে হামলার অভিযোগ 

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত এপ্রিল ১৫ বৃহস্পতিবার, ২০২১, ০৩:১৫ অপরাহ্ণ
কলাপাড়ায় বীরমুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে রাজাকার আখ্যায়িত করে হামলার অভিযোগ 
এস এম আলমগীর হোসেন, কলাপাড়া।। কলাপাড়ায় বীরমুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে রাজাকার আখ্যায়িত করে হেনস্হ করায় প্রতিকার দাবীতে পুলিশ সুপার পটুয়াখালী অভিযোগ করা হয়েছে। অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, উপজেলা চাকামইয়া ইউনিয়নের নিশানবাড়িয়া গ্রামের বীরমুক্তিযোদ্ধা জালাল উদ্দিন তালুকদার ১৯৭১ সালে দেশ স্বাধীনকালীন নিজেকে বাজি রেখে ভারতে প্রশিক্ষণ দিয়ে দেশের স্বাভৌম রক্ষা করেছেন।
তার মুক্তিযোদ্ধা সনদপত্র নং ১৯০৯৫৯ গেজেট নং ৬৭৯। দুবছর আগে বীরমুক্তিযোদ্ধা জালাল উদ্দিন তালুকদার বার্ধক্য জনিত কারনে তিনি মারা যান। স্ত্রী, দুই পুত্র মোঃ নিজামউদ্দীন তালুকদার, মোঃ আল- আমিন তালুকদার ওয়ারিশ থাকে। গত ১২ এপ্রিল সোমবার সকাল দশটায় দিকে একই এলাকার মোঃ আবদুল ওহাব তালুকদার এর স্ত্রী মোসাঃ রেনু বেগম তাদের গরু দিয়ে আল আমিন তালুকদার এর ইরি ধান ক্ষেতে রোপা গরু দিয়ে নস্ট করিলে এতে আলআমিন তালুকদার প্রতিবাদ করিলে এ নিয়ে বাকবিতন্ডায় এক পর্যায়ে দেশী অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আলআমিন ও তার মাতার উপর সশস্ত্র হামলা চালিয়ে।
এতে প্রতিবাদ করিলে মোসাঃ রেনু বেগম আলআমিন তালুকদার মৃত বাবা বীরমুক্তিযোদ্ধা জালালুদ্দিন তালুকদার রাজাকার আখ্যায়িত করে প্রকাশ লোকালয়ে অকথ্যভাষায় গাল-মন্দ করে মানসম্মানে হানি ঘটায়।
এর প্রতিকার দাবী করে আলআমিন তালুকদার ১৩ এপ্রিল মঙ্গলবার রেনু বেগমের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ জেলা পুলিশ সুপার পটুয়াখালী বরাবরে দায়ের করেন। এছাড়া অভিয়োগের কপি কলাপাড়া প্রেসক্লাবের, কলাপাড়া সাংবাদিক ফোরাম, উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবরে অভিযোগের কপি প্রেরন করেছেন।
অপরদিকে অভিযুক্ত মোসাঃ রেনু বেগমের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তার স্বামী আবদুল ওহাব তালুকদার এর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আল- আমিন তালুকদার এর সাথে আমার স্ত্রীর বাকবিতান্ড হয়েছে,তাহা শুনেছি,তবে কোন মারপিটের ঘটনা ঘটেনি।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃbarishalcrimetrace@gmail.com