শোক দিবসের ব্যানার ছেঁড়ার ঘটনায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত আগস্ট ১৩ শুক্রবার, ২০২১, ০৪:৫৫ অপরাহ্ণ
শোক দিবসের ব্যানার ছেঁড়ার ঘটনায় চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মামলা

পটুয়াখালী প্রতিনিধি ॥ পটুয়াখালীর বাউফলে বঙ্গবন্ধুর শোক ব্যানার ছেঁড়া ও মারধরের অভিযোগে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আবদুল মোতালেব হাওলাদারের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহষ্পতিবার (১২ আগস্ট) বাউফল সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ২য় আমলী আদালতে ওই মামলা দায়ের করা হয়েছে। বিজ্ঞ বিচারক পটুয়াখালীর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. জামাল হোসেন মামলাটি আমলে নিয়ে আগামী ১০ কার্য দিবসের মধ্যে বাউফল থানার ওসিকে এজাহার নেয়ার নির্দেশ প্রদান করেন বলে মামলার আইনজীবী মো. আরিফুর রহমান রিয়াজ জানান।

মামলা সুত্রে জানা গেছে, বগা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মো.মালেক মীরসহ কয়েকজন নেতাকর্মী গত ৯ আগস্ট বেলা ১২টার দিকে উপজেলার বগা বন্দরের সোনালী ব্যাংকের সামনে ও বগা লঞ্চঘাট এলাকায় বঙ্গবন্ধুর শাহাদাত বার্ষিকির শোক ব্যানার লাগালে উপজেলা চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদারের নেতৃত্বে এবং তার হুকুমে বগা ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসানসহ অন্যান্য আসামীরা ওই ব্যানার ছিঁড়ে ফেলে। একই সাথে মালেক মীর ও শ্রমিক লীগ কর্মী মো. নাদিমকে মারধর করেন। এসময় বাদীর কাছে থাকা ৫ হাজার ৭৫০ টাকা, আ. জব্বারের মানি ব্যাগে থাকা ১০ হাজার ৮৮৪ টাকা ছিনিয়ে নেয় আসামীরা। মামলার বাদী মো.মালেক মীর বলেন, মোতালেব হাওলাদার ও তার ছেলে মাহামুদ হাসান বঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের রক্ত মাখা ব্যানার ছিঁড়ে ফেলেছেন। আমিসহ কয়েকজনকে মারধর করেছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুকে অবমাননা করেছেন। মালেক আরো বলেন, অভিযুক্তরা খুনি ও অভ্যাসগতভাবে অপরাধী এবং বহু ফৌজদারী মামলার আসামী। এঘটনায় বাউফল থানায় মামলা না নেওয়ায় আদালতে মামলা করতে বাধ্য হয়েছি। মামলার অন্যান্য আসামীরা হলেন, বগা ইউপি চেয়ারম্যান মাহমুদ হাসান (৩৬), আশরাফ আহম্মেদ (২৮), জসিম উদ্দিন(৩৫), মো. সিজার(৩০) ও আলাল সিকদার (৩৫) সহ অজ্ঞাতনামা আরো ৫-৬ জন।

 

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আবদুল মোতালেব হাওলাদার বলেন, যে ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে এ ধরণের কোন ঘটনা ঘটে নাই। এটা সস্পূর্ণ মিথ্যা, ভিত্তিহীন ও বানোয়াট। আমাকে সম্মানহানী করার জন্যই এক নেতা তার লোকজন দিয়ে এ ঘটনা ঘটিয়েছেন। আমি ছাত্রলীগ ও যুবলীগ করেছি, বর্তমানে আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক পদে আছি। আমার দ্বারা জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ছবি সম্বলিত ব্যানার বা পোষ্টার ছেঁড়া কোনভাবেই সম্ভব নায়। এটা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই নয়।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]