পটুয়াখালী-৪ আসনের এমপির বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ চেয়ারম্যানের পরিবারের

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত আগস্ট ২৩ সোমবার, ২০২১, ১২:২৬ অপরাহ্ণ
পটুয়াখালী-৪ আসনের এমপির বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ চেয়ারম্যানের পরিবারের

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পটুয়াখালী-৪ (কলাপাড়া-রাঙ্গাবালী) আসনের সরকার দলীয় সংসদ সদস্য মুহিব্বুর রহমানের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের আদেশ অমান্য করে জমি দখলের অভিযোগ এনে পটুয়াখালী প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেছেন কলাপাড়ার ধুলাস্বর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যানের পুত্র ও কন্যারা ।

 

রবিবার পটুয়াখালী প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন ধুলাস্বর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান প্রয়াত জামান খলিফার ছেলে কেএম মেহেদী হাসান ও মেয়ে জিনিয়া জেসমিন লিখিত বক্তব্যে জানান, তাদের পিতা সাবেক ধুলাস্বর ইউনিয়নের পাঁচবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান প্রয়াত জামান খলিফা ২০০৩ সালে আলীপুর নিবাসী জনৈক আদম আলীর কাছ থেকে ২.৩৭ একর জমি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছেন। তাদের ভোগদখলীয় জমিতে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের দোকানঘর ভাড়া দিচ্ছেন। এমপি মহিব্বুর রহমান ঐ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময় একটি ভুয়া দলিল সৃজন করে তাদের বিরুদ্ধে সহকারী কমিশনার ভূমি আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন। তার কাগজপত্র সঠিক না থাকায় সহকারী কমিশনার ভূমি, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(রাজস্ব), সহকারী জজ আদালত এবং জেলা ও দায়রা জজ আদালতে তিনি মামলা পরিচালনা করে হেরে যান। পরে ২০০৫ সালে হাইকোর্টে তিনি একটি সিভিল রিভিশন দাখিল করলে হাইকোর্ট তা গ্রহণ করে জেলা জজ আদালতের আদেশ বাতিল করেন। পরে এই আদেশের বিরুদ্ধে জামান খলিফা সুপ্রিম কোর্টে আপীল করলে কোর্ট চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে বিরোধীয় ভূমিতে স্থীতিবস্থার আদেশ দেয়।

 

সংবাদ সম্মেলনে মেহেদী হাসান অভিযোগ করেন যে, সুপ্রিম কোর্টের সুনির্দিষ্ট আদেশ থাকার পরও এমপি মহিব্বুর রহমান একজন আইন প্রণেতা হয়েও আইন ভঙ্গ করে চলছেন। সরকার দলীয় এমপি হওয়ায় শুধুমাত্র ক্ষমতার প্রভাবে তিনি এ কাজ করে চলছেন। গত দুই দিন ধরে তার লোকজন বিরোধীয় জমির দোকানপাট ভেঙ্গে সেখানে পাকা স্থাপনা নির্মাণ করেছেন। নিচু যে জমি রয়েছে সেখানে বালু ফেলে ভরাট করা হচ্ছে। তার ভয়ে স্থানীয় কোন আইনি সহায়তা পাচ্ছেন না বলেও অভিযোগ তাদের।

 

এ বিষয়ে মহিপুর থানায় সাধারণ ডায়েরি করার জন্য গেলেও পুলিশ তা গ্রহণ করেনি। এ বিষয়ে মহিপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান,তিনি কোন লিখিত অভিযোগ পাননি। লিখিত অভিযোগ পেলে এ বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তিনি আরো জানান, মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের আদেশের কপি পেলে পুলিশ কার্যকর ব্যবস্থা অবশ্যই গ্রহণ করবে।

 

অভিযোগের বিষয়ে সংসদ সদস্য মুহিব্বুর রহমান জানান, যে জমিতে অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে সে জমি নিয়ে কোন বিরোধ নেই। সে জমি জনৈক সামসুন্নাহারের কাছ থেকে ক্রয় করে নিয়ম মেনে অবকাঠামো নির্মাণ করা হচ্ছে। তৃতীয় কোন পক্ষের পরামর্শে রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

 

তিনি জানান,জামান খলিফা উপজেলা বিএনপির ভাইস প্রেসিডেন্ট ছিলেন। রাজনৈতিক কারণেও তার ছেলে মেয়েরা এটি করে থাকতে পারে। তিনি সাংবাদিকদের সরেজমিনে গিয়ে ঘটনা তদন্ত করে প্রতিবেদন প্রণয়নে দাবী জানান।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]