১ সপ্তাহে টিকাদান কমেছে ৮০ শতাংশ

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত আগস্ট ২৫ বুধবার, ২০২১, ০৭:৪৮ অপরাহ্ণ
১ সপ্তাহে টিকাদান কমেছে ৮০ শতাংশ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: গত ১৫ আগস্টের পর থেকে আফগানিস্তানে করোনা টিকাদান ৮০ শতাংশ কমে গেছে। জাতিসংঘভিত্তিক সংস্থা ইউনিসেফের আফগানিস্তান শাখার এক কর্মকর্তা বার্তাসংস্থা রয়টার্সকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

 

আফগানিস্তানের ৩৪ টি প্রদেশের ২৮ টির দখল নেওয়ার পর গত ১৫ আগস্ট রাজধানী কাবুলও দখল করে নেয় তালেবান বাহিনী। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ইউনিসেফের ওই কর্মকর্তা জানিয়েছেন, ১৫ আগস্ট থেকে ২২ আগস্ট- ৭ দিনে আফগানিস্তানে ৩৪ টি প্রদেশের মধ্যে ২৩ টিতে মাত্র ৩০ হাজার ৫০০ জন করোনা টিকা নিয়েছেন।

 

অথচ, এর আগের সপ্তাহে, ০৭ আগস্ট থেকে ১৪ আগস্ট পর্যন্ত ৭ দিনে আফগানিস্তানের ৩০ টি প্রদেশে করোনা টিকার ডোজ নিয়েছিলেন ১ লাখ ৩৪ হাজার ৬০০ জন মানুষ।

 

আফগানিস্তানে গণটিকাদান কর্মসূচি তত্ত্বাবধান করছে ইউনিসেফ। টিকা নিতে আসা মানুষের সংখ্যা কমে যাওয়ার কারণ হিসেবে সংস্থাটির মুখপাত্র রয়টার্সকে বলেন, ‘অস্থির রাজনৈতিক পরিস্থিতি, ভীতি, সংঘাত এবং সর্বোপরি বেশিরভাগ মানুষ তাদের নিজেদের জানমালের নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন থাকার কারণেই টিকা নিতে আসা মানুষের সংখ্যা কমেছে আফগানিস্তানে।’

 

‘তবে এই পরিস্থিতি যদি অব্যাহত থাকে, তাহলে অদূর ভবিষ্যতে আফগানিস্তানে করোনা পরিস্থিতি গুরুতর হয়ে উঠতে পারে।’ ইউনিসেফের ওই কর্মকর্তা আরও জানান, বিশ্বের দরিদ্র ও আর্থিকভাবে পিছিয়ে থাকা দেশগুলোকে করোনা টিকার ডোজ প্রদান বিষয়ক প্রকল্প কোভ্যাক্স ইনিশিয়েটিভসের আওতায় আফগানিস্তানে সম্প্রতি জনসন এবং জনসনের প্রায় ২০ লাখ ডোজ করোনা টিকা পাঠিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)।

 

ডব্লিউএইচওর পাঠানো এই টিকার ডোজগুলোর মধ্যে অর্ধেকই নভেম্বরের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ হয়ে যাবে বলেও সতর্ক করেছেন তিনি।

 

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, মহামারি শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত আফগানিস্তানে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন মোট ১ লাখ ৫২ হাজার ৮২২ জন এবং মারা গেছেন মোট ৭ হাজার ৯৩ জন। তবে আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞদের ধারণা, দেশটিতে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা এর কয়েকগুণ বেশি।

ডব্লিউএইচওর তথ্য বলছে, ৪ কোটি মানুষ অধ্যুষিত আফগানিস্তানে ২০ আগস্ট পর্যন্ত মাত্র ১ লাখ ২০ হাজার করোনা টিকার ডোজ ব্যবহার করা হয়েছে।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]