শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন : জাহিদ ফারুক এমপি

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত আগস্ট ২৯ রবিবার, ২০২১, ০৪:৩৫ অপরাহ্ণ
শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন : জাহিদ ফারুক এমপি

নিজস্ব প্রতিদেকঃ পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী কর্নেল অব. জাহিদ ফারুক শামীম বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশকে সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্ন দেখেছিলেন, যা বাস্তবায়নে তার সুযোগ্য কণ্যা আমাদের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা রাত-দিন কাজ করে যাচ্ছেন। বাংলাদেশের অভাবগ্রস্থ -দুঃখী মানুষদের মুখে হাসি ফোটানোর জন্য তিনি কাজ করে যাচ্ছেন।

শনিবার (২৯ আগস্ট) বেলা ১১ টায় বরিশাল সদরের গিলাতলী আশ্রায়ন প্রকল্পের উপকারভোগীদের মাঝে মুজিববর্ষ উপলক্ষে পানিসম্পদ মন্ত্রনালয়ের প্রতিমন্ত্রী কর্নেল অব. জাহিদ ফারুক-এমপি এর ব্যক্তিগত তহবিল হতে সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।
বরিশালের জেলা প্রশাসক জসীম উদ্দীন হায়দারের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী তার বক্তব্যে আশ্রায়ন প্রকল্পের উপকারভোগীদের উদ্দেশ্যে বলেন, দশবছর আগেও আপনারা কখনো স্বপ্ন দেখেছেন বা ভেবেছেন যে আপনাদের দুই শতাংশ জমি হবে, বাড়ি হবে, মাথা গোঁজার জায়গা হবে।আমরাও কিন্তু ভাবিনি, অথচ আজ এটা বাস্তবায়িত হয়েছে, আমরা এখন চোঁখের সামনে দেখেতে পাচ্ছি। তারপরও অনেকে কিন্তু এটার ওপরেও সমালোচনাও করছে, যে এই ঘরটা ঠিক হয়নি, এটা ঠিক হয়নি, সেটা ঠিক হয়নি এরকম অনেককিছু বলছে।যাদের এটা দেয়া হয়েছে তাদের কিন্তু মাথা গোঁজার জায়গা ছিলো না।
তিনি বলেন, দেশের খাশ জমি বিভিন্ন মহল কর্তৃক দখল করে রাখা হয়েছিলো, সেই দখলদারদের কাছে থেকে জমিগুলোকে নিয়ে এসে যাদের ঘরবাড়ি নেই, মাথা গোঁজার জায়গা নেই তাদের জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার প্রশাসনের মাধ্যমে প্রকল্পগুলো গ্রহন করেছেন। এটা কতোটা মহতি উদ্দেশ্য, অনেকের তো রাস্তার পাশে ঘরের মতো করে থাকতে হতো। কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আজ আপনাদের স্থায়ী মাথা গোঁজার জায়গা করে দিয়েছেন। এখন আর রাত হলে চিন্তা করতে হবে না, কোথায় রাতটা কাটাবেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, এখন মাথা গোজার স্থায়ী ঠিকানা যখন হয়েছে, তাহলে আপনাদের উচিত স্বাবলম্বী হওয়া।স্বাবলম্বী হতে হলে কষ্ট করতে হবে, আপনাদের নিজেদের চেষ্টা করতে হবে। আপনারা প্রচেষ্টা না করলে সরকারের পক্ষে এতো লোককে কাজ বা চাকুরি দেয়া সম্ভব হয়না। সুতরাং আপনাদের প্রতি আহবান থাকবে আপনারা নিজেরা খেটে খান, নিজেদের পায়ে দাড়ানোর চেষ্টা করুন, যাতে আপনারা আপনাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে সুখে শান্তিতে থাকতে পারেন।
তিনি বলেন, বিগত ১০ বছরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশকে কোথা থেকে কোথায় নিয়ে গেছে। আজকে গ্রামের পথে হেটে গেলে কাউকে ছেড়া লুঙ্গি বা শাড়ি পড়ে চলতে দেখা যায়না। এমনকি কোন বাড়ির আঙ্গিনাতেও পুরানো রং ওঠা, ছেড়া লুঙ্গি, শাড়ি শুকাতেও দেখা যায়না, কিন্তু দশ বছর আগেও তা দেখা গেছে। এটা সম্ভব হয়েছে কারন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রযাত্রাকে এমন অবস্থাতে নিয়ে গেছেন যারকারনে আজ আমরা সল্পোউন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশে এসেছি। বাংলাদেশ এখন আর তলাবিহীন ঝুড়ি না। অর্থনৈতিক ভাবে আমরা অনেক স্বাবলম্বী হয়েছে দেখেই পৃথিবীর বুকে আমাদের এখন কদর আছে। আগে যেখানে আমরা নিয়ে আসতাম, এখন আমাদের সামর্থ্য হয়েছে অন্য দেশকে লোন দেয়ার। এটা শুধু সম্ভব হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কারনে। সমৃদ্ধশালী দেশে পৌছানোর জন্য যে লক্ষ্য স্থির করা হয়েছে, সেই লক্ষ্যে পৌছাতে হলে সকলের সহযোগীতা প্রয়োজন। আপনারা যার যার অবস্থানে থেকে যদি অর্থনৈতিক উন্নয়নের কথা চিন্তা করেন, কাজ করেন তাহলেই কিন্তু মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে লক্ষ্যে পৌছানো সম্ভব হবেন।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী যদি ১৬-১৮ ঘন্টা কাজ করেন, তাহলে আপনাদের যাদের বয়স কম তাদের কতো ঘন্টা কাজ করা উচিত। আপনারা স্বাবলম্বী হলে বাংলাদেশ স্বাবলম্বী হবে।
উল্লেখ্য এরআগে মুজিব বর্ষ উপলক্ষে আশ্রায়ন প্রকল্প-২ এর আওতায় “আশ্রয়নের অধিকার-শেখ হাসিনার উপহার” হিসেবে বরিশাল সদর উপজেলার চরমোনাই ইউনিয়নের গিলাতলী গ্রামে মুজিব বর্ষে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের গৃহনির্মাণ কাজের পরিদর্শণ করেন।এসময় মুজিববর্ষ উপলক্ষে মাননীয় পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক এমপি এর ব্যক্তিগত তহবিল থেকে বরিশাল সদর উপজেলায় আশ্রয়ণ প্রকল্পের ৬০ জন উপকারভোগীদের মাঝে সেলাই মেশিন বিতরণ করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন বরিশাল জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ আনিসুল রহমান, উপজেলা নির্বাহী অফিসার বরিশাল সদর মোঃ মুনিবুর রহমান, বরিশাল মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক মাহমুদুল হক খান মামুন,মহানগর আ’লীগের সাবেক সহ-সভাপতি মীর আমির উদ্দিন মোহন,বিসিসি’র ২২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনিসুর রহমান দুলাল,বিসিসি’র ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আমীর বিশ্বাস, বিসিসি’র ২৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আনিস শরীফ, সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাড.মাহবুবুর রহমান মধু,মহানগর যুবলীগের সদস্য মিজানুর রহমান মিল্টন, জেলা ছাত্রলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি জোবায়ের আব্দুল্লাহ জিন্নাহ,২১নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান রানা, শায়েস্তাবাদ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মামুন তালুকদার, কেন্দ্রীয় যুবলীগের সাবেক সদস্য ইফতেখার বাবু,২০নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাবেক সভাপতি মনিবুর রহমান, ২৩নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এ্যাড.আক্তার হোসেন রিপনবরিশাল সরকারি সৈয়দ হাতেম আলী কলেজে সাবেক সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) মোঃমাহিদুর রহমান মাহাদসহ সামাজিক ও রাজনৈতিক নেতাকর্মীরা।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]