বেতাগীতে দুর্দিনে বেকারি শিল্প

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত আগস্ট ২৯ রবিবার, ২০২১, ০৭:২৭ অপরাহ্ণ
বেতাগীতে দুর্দিনে বেকারি শিল্প

বেতাগী (বরগুনা) প্রতিনিধি :: দফায় দফায় বেকারি শিল্পের খাদ্যসামগ্রী তৈরির প্রধান উপাদান ময়দা, চিনি, ভোজ্যতেল ও বনস্পতির দাম বেড়ে যায়। এতে বিপাকে পড়েছেন উপকূলীয় জনপদ বরগুনার বেতাগী উপজেলার বেকারি ব্যবসায়ীরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে ও সরেজমিনে জানা গেছে, করোনার কারণে মন্দা বেকারি ব্যবসায় ‘মড়ার ওপর খাঁড়ার ঘা’ হয়ে দাঁড়িয়েছে এসব পণ্যের চড়া দাম। তা ছাড়া মহামারি করোনার কারণে দীর্ঘদিন লকডাউন থাকায় এ পেশার সঙ্গে সম্পৃক্তরা বিপাকে পড়েছেন।

বেতাগী পৌরসভার বাসস্ট্যান্ডে আল মদিনা বেকারি অ্যান্ড কনফেকশনারির মালিক আবু জাফর বলেন, ‘মাত্র ১ মাসের ব্যবধানে ১৪০০ টাকা মূল্যের ৫০ কেজি ওজনের ময়দার দাম বেড়ে হয়েছে ১৯০০ টাকা। ২৭০০ টাকা মূল্যের ৫০ কেজি চিনির দাম এখন ৩৮০০ টাকা, ৭০ টাকার প্রতিকেজি সয়াবিন তেলের দাম এখন ১৩০ টাকা আর ১২০০ টাকা মূল্যের ১৬ কেজি প্যাকেটের বনস্পতির দাম হয়েছে ৩০০০ টাকা।’ তিনি আরো বলেন, ‘করোনার কারণে বেকারি ব্যবসা এখন বন্ধের পথে। তার ওপর এসব পণ্যের দাম বাড়ায় বেকারি ব্যবসায়ীরা হিমশিম খেতে হচ্ছে।’

জানা গেছে, বেকারি পণ্য তৈরি করতে নির্দিষ্ট পরিমাণ ময়দা, চিনি, বনস্পতি মিশানো হয়। এরপর এ থেকে বিভিন্ন ধরনের বিস্কুট, কেক, পিঠা, নকশি পিঠা, জামাই পিঠা, বৌ-পিঠা, রুটি তৈরি হয়। এ ছাড়া চানাচুর, বাদাম, বিভিন্ন প্রকার ডালজাতীয় শস্য পরিমাণ মতো তাপমাত্রায় ভাজা হয়। বাজারজাতকরণ বা খুচরা বিক্রির জন্য আলাদা আলাদাভাবে প্যাকেট প্রস্তুত করা হয়। বেকারি শিল্পের প্রতিটি পণ্য তৈরি করতে আলাদা আলাদা কারিগর নিয়োজিত থাকে। এসব কারিগররা দিন রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে বিভিন্ন উপকরণ ও পণ্য তৈরি করে।

বেতাগী পৌরসভাসহ উপজেলার ছোট বড় মিলিয়ে প্রায় অর্ধশত বেকারি কারখানা রয়েছে। এসব কারখানার সঙ্গে ৫ শতাধিক শ্রমিক জড়িত। করোনার ধাক্কা আর কাঁচামালের দাম বাড়ায় এরই মধ্যে অর্ধেকেরও বেশি কারখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পৌর শহরের লঞ্চঘাট ভাই ভাই বেকারির সুভাষ রায় বলেন, ‘চিনি, ময়দা ও তেলের দাম বাড়ায় কর্মচারীদের বেতন দিয়ে এখন মাস শেষে লোকসান গুনতে হচ্ছে।’

পৌরশহরের একাধিক ব্যবসায়ী জানান, তাদের কারখানায় বেকারি খাদ্যসামগ্রীর উৎপাদন আগের তুলনায় এখন অর্ধেক কম হচ্ছে। চিনি, ময়দা ও তেলের দাম না কমালে আগামী দিনে বেকারি কারাখানা বন্ধ করে দিতে হবে।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]