মার্কিন ‘বিশ্বাসঘাতকতা’য় মর্মাহত তালেবান

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ৩ শুক্রবার, ২০২১, ১২:০২ অপরাহ্ণ
মার্কিন ‘বিশ্বাসঘাতকতা’য় মর্মাহত তালেবান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক ॥ আফগানিস্তান ছেড়ে যাওয়ার আগে ২৭টি হামভি, ৭৩টি বিমান খারাপ করে দিয়ে আসে মার্কিন সেনা। এই ঘটনাকে বিশ্বাসঘাতকতা হিসেবে দেখছে তালিবান। জানা গেছে, বর্তমানে তালিবানের হাতে ৪৮টি বিমান বা চপার রয়েছে। উল্লেখ্য, ৩১ অগস্ট আফগানিস্তান ছাড়ার মেয়াদ ছিল আমেরিকার। তবে সেই মেয়াদের একদিন আগেই কাবুল ছেড়ে চলে যায় মার্কিন সেনা। কয়েক হাজার মার্কিন ভিসাধারী আফগান এবং কয়েকশো মার্কিন নাগরিককে পিছনে ফেলে দিয়ে যায় আমেরিকা। পাশাপাশি প্রচুর অস্ত্রসস্ত্র, যুদ্ধের সামগ্রী যানবাহন পিছনে ফেলে দিয়ে গিয়েছে আমেরিকা। খবর হিন্দুস্তান টাইমসের।

এর আগে কান্দাহার এবং বাগরামে মার্কিন সেনার ফেলে আসা অস্ত্র, গাড়ি, হেলিকপ্টার তালিবানের হাতে চলে যাওয়ার ভিডিয়ো সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই অস্বস্তিতে পড়েছিল বাইডেন প্রশাসন। সেই কারণেই কাবুল ছাড়ার আগে নিজেদের ফেলে যাওয়া যাবতীয় যানবাহন সরঞ্জাম অকেজো করে দিয়ে যায় মার্কিন সেনা।

আল-জাজিরার রিপোর্ট অনুযায়ী তালিবানের বক্তব্য, মার্কিন সেনা এভাবে বিমান খারাপ করে দিয়ে যাওয়া আমরা বিশ্বাসঘাতকতার শিকার। আমরা বিশ্বাস করি যে এগুলো জাতীয় সম্পদ। এখন আমরাই সরকার। এই বিমান বা সরঞ্জাম ভবিষ্যতে আমাদের কাজে লাগত।

বর্তমানে তালিবানের কাছে ৪৮টি বিমান বা হেলিকপ্টার রয়েছে তালিবানের কাছে। তবে এই বিমানগুলির কটি কাজ করছে তা জানা নেই। তালিবান মুখপাত্র জাবিহুল্লাহ মুজাহিদ দাবি করেন তাদের টেকনিকাল দল নাকি বিমানগুলির মেরামত করছে। এই সময়কালে বিমানবন্দরের পাশে সাধারণ মানুষকে আসতে বারণ করা হয়েছে।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]