পুলিশি হয়রানি বন্ধ সহ ৬ দফা দাবিতে রাইডারদের আন্দোলন

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত সেপ্টেম্বর ২৮ মঙ্গলবার, ২০২১, ০১:৫৭ অপরাহ্ণ
পুলিশি হয়রানি বন্ধ সহ ৬ দফা দাবিতে রাইডারদের আন্দোলন

ডেস্ক রিপোর্ট ॥ সড়কে পুলিশী হয়রানি বন্ধসহ ৬ দফা দাবিতে আন্দোলনে নেমেছে বাইকাররা। আজ মঙ্গলবার সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত অ্যাপ-বেইজড ড্রাইভারস ইউনিয়ন অব বাংলাদেশ-এর আহ্বানে ঢাকা রাইডশেয়ারিং ড্রাইভারস ইউনিয়ন, সম্মিলিত রাইডারস অব চট্টগ্রাম ও কোথায় যাবেন রাইড-শেয়ারিং গ্রুপ সিলেট দিনব্যাপী কর্মবিরতি ও মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

মানববন্ধনে রাইডাররা বলেন, রাস্তায় বের হলেই বিভিন্ন রকম পুলিশি হয়রানির শিকার হতে হয়। আমাদের কোথাও দাঁড়ানোর জায়গা দেওয়া হয় না। কোন রাস্তার মোড়ে দাঁড়াতে গেলে ট্রাফিক পুলিশ জরিমানা করে, যা আমরা ৭ দিনেও আয় করতে পারি না।

অ্যাপ প্রতিষ্ঠানের কমিশন বিষয়ে বক্তারা বলেন, গাড়ি জ্বালানি ও শ্রমের বিনিময়ে টাকা পাই তা থেকে আধুনিক কমিশন গ্রহণকারী কোম্পানিগুলো ২৫ শতাংশের বেশি কেড়ে নেয়। এই অ্যাপসের মাধ্যমে আমাদের দাসে পরিণত করা হয়েছে। আমাদের শোষণ করা হচ্ছে। তার ওপর বিনা অজুহাতে অ্যাপস বন্ধ করে আমাদের কর্মহীন করছে।

রাইড শেয়ারিং যাতায়াতের পথ সুগম করে দিয়েছে উল্লেখ করে এক বাইকার বলেন, রাস্তায় পুলিশের হয়রানি আর অ্যাপস এর মাধ্যমে অধিকাংশ টাকা নিয়ে যাওয়ায় রাইডশেয়ারিং সেবা দিনদিন হুমকির মুখে পড়ছে। মাস শেষে ধারদেনা করে গাড়ির কাজ করাতে হয়। বছর শেষে তুলতে হচ্ছে লোন। এতে দিন দিন আমরা দেউলিয়া হয়ে যাচ্ছি। রাইডশেয়ারিংয়ে যুক্ত চার লাখের বেশি মানুষের ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে।

মানববন্ধনে তারা বিভিন্ন স্লোগান সংবলিত ফেস্টুন কার্ড বহন করেছেন। এতে লেখা হয়েছে, ‘ওরা আমাদের মুখের খাবার কেড়ে নেয়; কর্মচারীর মতো কাঠামো যখন, কর্মসময়ের মূল্য দাও; কমিশন কমাও, রাইড শেয়ারিং বাঁচাও; প্রধানমন্ত্রী আমাদের অবস্থা বিবেচনা করুন, আমরা ভালো নেই; রাইডশেয়ারিং যদি সেবা হয়, ২০ শতাংশ কমিশন কেমনে হয়।

মানববন্ধনে উত্থাপিত রাইডারদের দাবিসমূহঃ
১. অ্যাপস নির্ভর শ্রমিকদের শ্রমিক হিসেবে স্বীকৃতি দিন, সময় মূল্য দিন।
২. সকল প্রকার রাইডে কমিশন ১০ শতাংশ নির্ধারণ করুন, মিথ্যা অজুহাতে কর্মহীন করা থেকে বিরত থাকুন।
৩. ঢাকা-চট্টগ্রাম ও সিলেট রাইড শেয়ারিং এর যানবাহন দাঁড়ানোর জায়গা করে দিন।
৪. সকল ধরনের পুলিশি হয়রানি বন্ধ করুন।
৫. এনালিস্টকৃত রাইড শেয়ারকারী যানবাহনগুলোকে গণপরিবহনের আওতায় অ্যাডভান্স ইনকাম ট্যাক্স মুক্ত রাখুন।
৬. গত বছর গ্রহণ করা সকল এআইটি এনালিস্টকৃত যানবাহন মালিকদের ফিরিয়ে দিন।

মানববন্ধন কর্মসূচিতে একাত্মতা প্রকাশ করে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ লেবার ফেডারেশন এর নির্বাহী সদস্য খোরশেদ আলম, শেয়ারিং অ্যাপস এর ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রুহুল আমিন সাধারণ সম্পাদক বেলাল আহমেদ সহসাধারণ সম্পাদক এমএইচ টুটুল সহ রাইড শেয়ারিং ইউনিটের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বাইকাররা।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]