বিয়ের প্রলোভনে ২ বছর ধরে ‘ধর্ষণ’! মামলা নেয়নি পুলিশ

Barisal Crime Trace -HR
প্রকাশিত এপ্রিল ২৫ রবিবার, ২০২১, ০৫:০৬ অপরাহ্ণ
বিয়ের প্রলোভনে ২ বছর ধরে ‘ধর্ষণ’! মামলা নেয়নি পুলিশ

নিজস্ব প্রতিবেদক:: নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলায় বিয়ের কথা বলে দুই বছর ধরে এক নারীকে ধর্ষণ করেছে বলে এক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে। ভুক্তভোগী নারী নিজেই ওই ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে এ অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় ওই নারী বড়াইগ্রাম থানায় গত ১৯ এপ্রিল লিখিত অভিযোগ করার পরও এখন পর্যন্ত পুলিশ মামলা নেয়নি বলে অভিযোগ থেকে জানা গেছে।

 

অভিযুক্ত ওই ব্যবসায়ীর নাম জামাল হোসেন (৩৮)। তিনি একজন সার ব্যবসায়ী। অভিযোগে বলা হয়, বিয়ের দাবিতে ব্যবসায়ীর বাড়িতে গেলে ওই নারীর গলায় রশি পেঁচিয়ে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছে।

 

লিখিত অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে, বিয়ের কথা বলে ওই গৃহবধূর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক গড়ে তোলেন জামাল হোসেন। সেই সম্পর্কের জেরে দুই বছরে ধরে তাকে ধর্ষণ করে আসছিলেন তিনি। বিষয়টি জানাজানি হলে জামাল হোসেন বিয়ে করার প্রতিশ্রুতিতে ওই নারীকে ঢাকায় নিয়ে যান এবং তার স্বামীকে তালাক দিতে বাধ্য করেন। পরে ঢাকার জুরাইন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে তারা একসঙ্গে বসবাস শুরু করেন। সেখানে দুই বছরের বেশি সময় ধরে তারা স্বামী-স্ত্রীর মতো থেকেছেন। ওই নারী বিয়ের জন্য চাপ দিতে থাকলেও জামাল বিয়ে করেননি।

 

এরপর বিয়ে নিবন্ধন করার কথা বলে গত ১৮ এপ্রিল ওই নারীকে বড়াইগ্রামের বাড়িতে ডেকে আনেন জামাল। এসময় জামাল ও তার পরিবারের লোকজন তাকে বেধড়ক মারপিট করেন।

 

একপর্যায়ে গলায় দড়ি দিয়ে ফাঁস লাগিয়ে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়। পরে অসুস্থ অবস্থায় বাড়ির পাশের রাস্তা থেকে ওই নারীকে উদ্ধার করে বড়াইগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান এক ভ্যানচালক। এ ঘটনায় গত ১৯ এপ্রিল বড়াইগ্রাম থানায় লিখিত অভিযোগ করেন ওই নারী। তবে থানা-পুলিশ আজ ২৫ এপ্রিল পর্যন্ত অভিযোগটি মামলা হিসেবে গ্রহণ করেনি।

 

এ বিষয়ে বড়াইগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শামসুল হক জানান, লিখিত অভিযোগের প্রাথমিক অনুসন্ধান চলছে। অভিযোগকারীকে ধর্ষণের প্রমাণ উপস্থাপন করতে বলা হয়েছে। সত্যতা পেলে মামলা নেওয়া হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]