বরিশালে ৪৪০ টাকায় কেনা তরমুজ খুচরা বাজারে ১০৪০ টাকা!

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত এপ্রিল ২৭ মঙ্গলবার, ২০২১, ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ণ
বরিশালে ৪৪০ টাকায় কেনা তরমুজ খুচরা বাজারে ১০৪০ টাকা!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পাইকারি আড়ত থেকে ৪৪০ টাকায় কিনেছেন তরমুজ। কিন্তু ক্রেতাদের কাছে চাচ্ছেন এক হাজার ৪০ টাকা। অযৌক্তিক এই দাম চেয়ে ফেঁসে গেলেন এক ফল বিক্রেতা। তাকে গুণতে হলো জরিমানা। ঘটনাটি বরিশাল নগরীর নতুন বাজার এলাকার।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা গেছে, পাইকারি বাজার থেকে তরমুজ যে দামে কেনা হয়, বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করা হয় তার তিনগুণ দামে। এমন অভিযোগ পেয়ে সোমবার (২৬ এপ্রিল) বিকেলে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে নগরীর পাইকারি ও বিভিন্ন খুচরা বাজারে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালায়।

অভিযানে নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল হাই ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রয়া ত্রিপুরা। অভিযানে সহায়তা করেন বরিশাল মেট্রোপলিটন পুলিশ সদস্যরা।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রয়া ত্রিপুরা জানান, রোজার মাসে বাজার দর নিয়ন্ত্রণে নগরীর পোর্ট রোড, ফলপট্টি, জেলখানা মোড়, নতুন বাজার, নথুল্লাবাদ বাস টার্মিনাল, চৌমাথা বাজার এবং বাংলা বাজার এলাকায় অভিযান চালানো হয়।

এ সময় নতুন বাজারে গিয়ে দেখা যায় এক ফল বিক্রেতা ১৬ কেজি ওজনের একটি তরমুজের দাম ক্রেতাদের কাছে চেয়েছেন এক হাজার ৪০ টাকা। ওই ফল বিক্রেতার কাছে ক্রয় রশিদ দেখতে চাওয়া হয়। ক্রয় রশিদে দেখা যায়, পাইকারি বাজার থেকে তিনি তরমুজটি কিনেছেন ৪৪০ টাকায়। কিন্তু তিনি বিক্রেতাদের কাছে দাম চেয়েছেন প্রায় তিনগুণ বেশি। পাইকারি বাজারের থেকে খুচরা বাজারে দামের এত তফাতের কারণ জানতে চাইলে বিক্রেতা কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি। তাকে জরিমানা করা হয়।

এছাড়া আরও বেশ কয়েকটি দোকান ঘুরে দেখা যায়, পাইকারি বাজার থেকে পিস হিসেবে তরমুজ কিনে অধিক লাভের আশায় খুচরা বিক্রেতারা তা কেজি হিসেবে বিক্রি করছেন। কেনা দামের চেয়ে দ্বিগুণ ও তার চেয়ে বেশি দামে বিক্রি করায় ছয় ব্যবসায়ীকে তিন হাজার ৯০০ টাকা জরিমানা করা হয়।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবদুল হাই জানান, পাইকারি বাজারে যে তরমুজের পিস ২৮০ টাকা। সেই তরমুজ খুচরা বাজারে কেজি দরে বিক্রি করা হচ্ছিল ৪৮০ থেকে ৫৫০ টাকায়। দামের এ অসঙ্গতির কারণে তিনি আট জন ব্যবসায়ীকে ছয় হাজার ৪০০ টাকা জরিমানা করেন।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃbarishalcrimetrace@gmail.com