ইরফান সেলিম কারামুক্ত, ফুলের মালা দিয়ে বরণ

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত এপ্রিল ২৮ বুধবার, ২০২১, ০৯:৫১ অপরাহ্ণ
ইরফান সেলিম কারামুক্ত, ফুলের মালা দিয়ে বরণ

নিজস্ব প্রতিবেদক:: কারাগার থেকে ছাড়া পেয়েছেন হাজী সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিম। আজ বুধবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে তিনি কেরাণীগঞ্জ কারাগার থেকে বের হন। এ সময় তার গলায় পরিয়ে দেয়া হয় ফুলের মালা।

 

তার কারামুক্তির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ইরফান সেলিমের আইনজীবী শ্রী প্রাণ নাথ। তিনি বলেন, ‘কারাগার থেকে ছাড়া পাওয়ার পর ইরফান সেলিম সরাসরি আজিমপুর কবরস্থানে যান। সেখানে মা ও আত্মীয়দের কবর জিয়ারত করেন। এরপর পুরান ঢাকায় নিজের বাসায় যান।’

 

 

শ্রী প্রাণ নাথ আরও বলেন, ‘আজিমপুর থেকে বাসায় ফিলে বাবা হাজী সেলিম ও পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে ইফতার করেছেন তিনি।’

 

 

ইরফানকে ফুলের মালায় বরণ করতে আগে থেকেই কারাফটকে উপস্থিত ছিলেন মদিনা গ্রুপের তিন কর্মকর্তা। ইরফান সেলিমের বিরুদ্ধে করা মোট ৫টি মামলার মধ্য চকবাজান থানায় করা মাদক ও একটি অস্ত্র মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চকবাজার থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) তাকে অব্যাহতি দেয়।

 

 

বাসায় মাদক রাখার দায়ে একটি মামলায় এক বছর ও অবৈধ ওয়াকিটকি রাখার দায়ে ছয় মাসের কারাদণ্ড দিয়েছিল ভ্রাম্যমাণ আদালত। তবে এই দুই মামলায় তিনি নির্বাহী আদালতে আপিল করলে জামিন পান তিনি।

 

 

ইরফান সেলিমের মুক্তির জন্য ধানমন্ডি থানায় করা নৌবাহিনীর অফিসারকে মারধর ও হত্যার হুমকির মামলায় জামিন প্রয়োজন ছিল। সেই মামলায় ইরফান সেলিমের সর্বোচ্চ আদালতে জামিনের আদেশ বহাল থাকায় তার কারামুক্ত হতে আর কোনো বাধা থাকছে না বলে জানান তিনি আইনজীবী প্রাণ নাথ।

 

গত ৪ জানুয়ারি মামলার তদন্ত কর্মকর্তা চকবাজার থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসেন ইরফান সেলিমের অব্যাহতির সুপারিশ করে আদালতে প্রতিবেদন দেন।

 

তার দেহরক্ষী জাহিদের বিরুদ্ধে অপরাধের সত্যতা পাওয়ায় একই আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয়া হয়।

 

গত ২৫ অক্টোবর নৌবাহিনীর লেফটেন্যান্ট ওয়াসিফ আহমদ খান মোটরসাইকেলে করে নিউ মার্কেট থেকে বাসার দিকে যাচ্ছিলেন। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ইরফান সেলিমের গাড়িটি তার মোটরসাইকেলকে ধাক্কা দেয়।

 

 

এরপর তিনি মোটরসাইকেল নিয়ে ওই গাড়ির সামনে দাঁড়ান এবং নিজের পরিচয় দেন। তখন ইরফানের সঙ্গে থাকা অন্যরা গাড়ি থেকে বের হয়ে তাকে কিল-ঘুষি মারেন এবং মেরে ফেলার হুমকি দেন। এ সময় তার স্ত্রীকেও গালাগাল করা হয়।

 

 

এ ঘটনায় ২৬ অক্টোবর সকালে ইরফান সেলিম, তার দেহরক্ষী মো. জাহিদুল মোল্লা, এ বি সিদ্দিক দিপু ও গাড়িচালক মিজানুর রহমান এবং অজ্ঞাতনামা দুই-তিনজনকে আসামি করে ওয়াসিফ আহমদ খান ধানমন্ডি থানায় একটি মামলা করেন।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃbarishalcrimetrace@gmail.com