গলাচিপায় নৌকার প্রার্থীকে হারাতে এমপির প্রভাব খাটানোর অভিযোগ

Barisal Crime Trace -HR
প্রকাশিত নভেম্বর ১৪ রবিবার, ২০২১, ০৮:১৯ অপরাহ্ণ
গলাচিপায় নৌকার প্রার্থীকে হারাতে এমপির প্রভাব খাটানোর অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ পটুয়াখালীর গলাচিপায় ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীকে জেতাতে স্থানীয় সংসদ সদস্য এসএম শাহাজাদার বিরুদ্ধে প্রভাব খাটানোর অভিযোগ উঠেছে। এতে ৮২ ভোটের ব্যবধানে পরাজিত হন আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী খলিলুর রহমান স্বপন। পুনরায় ভোট গণনার জন্য লিখিত অভিযোগ দিলেও তা কোনো কাজে আসেনি।

 

রোববার (১৪ নভেম্বর) দুপুরে পটুয়াখালী প্রেস ক্লাবের ড. আতহার উদ্দিন মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনে এসব অভিযোগ করেন খলিলুর রহমান স্বপন।

নির্বাচনের ফলাফল নিয়ে নানা অসঙ্গতি তুলে ধরে লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, গজালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, উত্তর পূর্ব গজালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পূর্ব হরিদেবপুর কেন্দ্রে প্রভাব খাটান প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কেএম নূরুল হুদার ভাগনে ও গলাচিপা-দশমিনার সংসদ সদস্য এসএম শাহাজাদ। এরই ধারাবাহিকতায় নির্বাচনের আগের দিন রাতে ৯ নম্বর ওয়ার্ডের প্রিসাইডিং কর্মকর্তা মো. সাইদুর রহমান মোল্লাকে পরিবর্তন করে তার আস্থাভাজন মো. সামসুল হককে দায়িত্ব দেওয়া হয়।

 

খলিলুর আরও বলেন, উত্তর-পূর্ব গজালিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে নৌকার ভোট দেখানো হয় মাত্র ৩৮টি। যেখানে ওয়ার্ড কমিটির সদস্য আছেন ৬৫ জন। এর বাইরে তার নিকটাত্মীয়ও আছেন ১২০ জন। নির্বাচনের পরদিন কেন্দ্রের বাইরে সিলও পাওয়া যায়।

 

তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রভাব খাটিয়ে আমাকে মাত্র ৮২ ভোটে পরাজিত করে শান্তি কমিটির পরিবারের সদস্য মো. হাবিবুর রহমানকে বিজয়ী করা হয়েছে। ওই তিন কেন্দ্রের ভোট পুনরায় গণনার দাবি জানাচ্ছি।

 

এ বিষেয় পটুয়াখালী-৩ আসনের সংসদ সদস্য শাহজাদা বলেন, আমার সংসদীয় এলাকায় নৌকার পরাজয় হয়েছে এটা আমার কাছে অনেক বেশি দুখঃজনক বিষয়। সর্বোপরি এবার যে নির্বাচন হয়েছে তা স্বচ্ছ এবং গ্রহণযোগ্য। এরপরও এ নির্বাচনকে নিয়ে প্রশ্ন করাটা অবান্তর। যে প্রার্থী পরাজিত হয়েছেন, তা তার ব্যক্তিগত গ্রহণযোগ্যতা না থাকার কারণে। আমি তার সম্পর্কে কোনো মন্তব্য করতে চাই না।

গলাচিপা উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তবে পুনরায় ভোট গণনার যে আবেদন করা হয়েছে তা আমার এখতিয়ারভুক্ত নয়। এটি আদালতের বিষয়।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]