মামলা করায় বাদীর রাস্তায় বেড়া দিয়ে আটকে দিলেন আসামিরা

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত মে ২ রবিবার, ২০২১, ০৪:৩৪ অপরাহ্ণ
মামলা করায় বাদীর রাস্তায় বেড়া দিয়ে আটকে দিলেন আসামিরা

(নেত্রকোণা) প্রতিনিধি > নেত্রকোনার মদনে মামলা করায় রাস্তায় বেড়া দিয়ে বাদীর পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রাখার অভিযোগ উঠেছে আসামিদের বিরুদ্ধে।

 

উপজেলার গোবিন্দশ্রী ইউনিয়নের কদমশ্রী নওদার গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে। প্রভাবশালী আসামিদের নির্যাতনে বাদীর পরিবার জীবনের নিরাপত্তা হীনতায় ভুগছেন।

 

জানা যায়, উপজেলার নওদার গ্রামের এক গৃহবধূর (২৮) ঘরে ঢুকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন প্রতিবেশী রতন মিয়া (৪৫)। ঘটনাটি ২০২১ সালের ২ ফেব্রুয়ারির।

 

এ ঘটনার এলাকায় বিচার না পেয়ে গৃহবধূ বাদী হয়ে ওই বছরের ৪ মার্চ নেত্রকোনার আদালতে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে প্রতিবেশী রতন মিয়াসহ ছয়জনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

 

আসামিরা প্রভাবশালী হওয়ায় মামলা দায়েরের পর থেকে বাদী ও তার পরিবারের সদস্যদের নানাভাবে নির্যাতন করে আসছে। বাড়ি থেকে বের হওয়ার রাস্তায় বেড়া দিয়ে তাদের অবরুদ্ধ করে রেখেছে।

 

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায়, নওদার গ্রামে ওই গৃহবধূর বাড়ির সামনে বেড়া দিয়ে রাস্তা আটকে রেখেছে আসামিরা। এ সময় গৃহবধূ বলেন, ‘আমরা গরিব মানুষ।

 

আসামি ও তাদের আত্মীয় স্বজনরা প্রভাবশালী হওয়ায় ভয়ে কিছু বলতে পারি না। ন্যায়বিচার পেতে মামলা করেছিলাম। কিন্তু এখন অত্যাচারের শেষ নেই।

 

প্রতিদিনেই আসামিরা আমাদেরকে নানাভাবে অত্যাচার করে যাচ্ছে। বাড়ি থেকে বের হওয়ার রাস্তায় বেড়া দিয়ে দিয়েছে। এখন আমরা খুবই কষ্টে আছি।’

 

এ বিষয়ে আসামি রতন মিয়া বলেন, ‘ওই নারী মিথ্যা মামলা করে আমাদেরকে হয়রানি করতেছে। আমাদের বাড়ির হাঁস, মুরগী যেন তাদের বাড়িতে না যেতে পারে এর জন্য রাস্তায় বেড়া দিয়েছি।’

 

এ বিষয়ে মদন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফেরদৌস আলম জানান, আদালতে দায়ের করা শিবলীর মামলাটি তদন্তাধীন রয়েছে। অবরুদ্ধ করে রাখার বিষয়ে তিনি বলেন, অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]