চরফ্যাশনে আসামী ধরতে গিয়ে গৃহবধুর মাথা ফাটিয়ে দিলেন পুলিশ

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত মে ৬ বৃহস্পতিবার, ২০২১, ০৭:৪৪ অপরাহ্ণ
চরফ্যাশনে আসামী ধরতে গিয়ে গৃহবধুর মাথা ফাটিয়ে দিলেন পুলিশ
চরফ্যাশন (ভোলা) প্রতিনিধিঃ পুলিশের হামলায় ভোলার চরফ্যাশনে দুই জন গুরুতর আহতের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ৬ মে রাত সাড়ে ৮টায়  উপজেলার আবদুল্লাহপুর ৫নং ওয়ার্ড দক্ষীন শিবা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহত নারী ওই এলাকার   বাসিন্দা ইউসুফ পালোয়ানের স্ত্রী জায়েদা বেগম (৩১)।
ভূক্তভোগী পরিবারের অভিযোগ থানা পুলিশের হেলমেটের আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন । আহত ওই গৃহবধু জায়েদা (৩১) ও তার ছেলে শামিম (১৭)।  স্বজনরা আহতদেরকে উদ্ধার করে চরফ্যাশন হাসপাতালে ভর্তি  করে।
চিকিৎসাধীন জায়েদা বেগম স্থানীয় সংবাদকর্মীদের অভিযোগ করে বলেন, চরফ্যাশন থানা পুলিশের এসআই নাজমুলের (থানার সেকেন্ড অফিসার) নেতৃত্বে ৫/৬ জন পুলিশ আমার স্বামী ইউসুফ পালোয়ানকে হেন্ডকাপ লাগিয়ে আটক করে।
এসময় আমি পুলিশের কাছে  জানতে চাই কোন অভিযোগে আমার স্বামীকে আটক করেছেন।
এসময় পুলিশ আমাকে অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে তাদের হাতে থাকা হেলমেট দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করে গুরুতর জখম করে। আমার ছেলে শামিম এগিয়ে আসলে তাকেও পুলিশ মারধর করে আমার স্বামীকে নিয়ে যায়।
 প্রত্যক্ষদর্শী দেবর রাসেল জানান, ঘটনার সময় তিনি তার চাচাতো ভাই ইউসুফের ঘরেই অবস্থান করেন।  পুলিশ এসে বাড়ি ঘেরাও করে। ঘরে প্রবেশ করে ইউসুফকে আটক করে।
ভাবি জায়েদা পুলিশকে কি জন্য আটক করা হয়েছে জানতে চাইলে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়ে। তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে পুলিশ হেলমেট দিয়ে এলোপাথারী মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয়।
আহত গৃহবধূ জায়েদার দেবর জাকির জানান, আমার স্ত্রী আসমার সঙ্গে এক বৎসর পূর্বে বিভিন্ন অনৈতিক কর্মকান্ডের বিষয় নিয়ে কোর্টের মাধ্যমে তালাক দেই।
সম্প্রতী আবার এসে মামলা করার হুমকি দিয়ে চলে যায়। আজকে (৫মে) বাড়িতে পুলিশ যাওয়ার পরে জানতে  পারি আমার তালাক প্রাপ্ত স্ত্রী আমাকে ও চাচাতো ভাই ইউসুফ পালোয়ান সহ ৬ জনকে আসামী করে একটি অভিযোগ করেন।
এ ঘটনায়  চরফ্যাশন থানার এসআই নাজমুল ইসলাম মুঠোফোনে জানান, আমি এবং তাজুল,শহীদুলসহ পুলিশের আরও কয়েকজন সদস্যসহ ওই এলাকায় নারী নির্যাতনের এক আসামী ইউসুফ পালোয়ানকে আটক করতে গেলে তার স্ত্রী’র সাথে কথার কাটাকাটির এক পর্যায়ে ঘরের দরজার সাথে লেগে মাথা ফেটে যায়। তবে  আমাদের হেলমেট ভেঙ্গে গেছে।
 চরফ্যাশন থানার অফিসার ইনচার্জ রফিকুল ইসলাম মিয়া জানান, নারী নির্যাতনের মামলা হয়েছ।  থানা পুলিশ আসামি ধরতে গেলে তাদের সাথে তর্কাতর্কি হয়। তবে হামলার ঘটনার সঠিক নয়।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃbarishalcrimetrace@gmail.com