কাজ না করেই সরকারি টাকা ভাগাভাগি!

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত মে ১৯ বুধবার, ২০২১, ১১:১৭ অপরাহ্ণ
কাজ না করেই সরকারি টাকা ভাগাভাগি!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ ফরিদপুর সদর উপজেলার ঈশান গোপালপুর ইউনিয়নের ২০২০-২১ অর্থবছরের দুটি প্রকল্পে কোনো কাজ না করে বিল উত্তোলন করে নিজেরা ভাগবাটোয়ারা করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে তিন ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে।

 

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ দিয়েছেন সংশ্লিষ্ট এলাকাবাসী। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের কথা বলেছেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

 

ঈশান গোপালপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন প্রকল্পের কাজ ইতোমধ্যেই শেষ হয়েছে। কিন্তু সরেজমিন দেখা গেছে, আরিফ বাজার মাদ্রাসা থেকে আয়নাল হক মাস্টারের বাড়ি পর্যন্ত একটি রাস্তার মাটি ফেলার কাজ করার কথা থাকলেও সেখানে কোনো কাজ করা হয়নি।

 

স্থানীয়দের অভিযোগ, রাস্তায় এক কোদালও মাটি কেটে ফেলা হয়নি। অথচ এ কাজ দেখিয়ে ৬০ হাজার টাকা উত্তোলন করে নিয়েছেন কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট ইউপি সদস্য কবির মোল্যা।

 

অভিযোগ রয়েছে, অন্য রাস্তার ছবি তুলে তা বিল আকারে জমা দিয়ে ঈদের আগেই টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে। এছাড়া একই ইউনিয়নের লক্ষীদাসের হাট থেকে বিষ্ণুপুর মাদ্রাসা পর্যন্ত ফ্লাট সলিং রাস্তা ও মেরামত এবং কালভার্ট পুনঃনির্মাণের কোনো কাজ না করেই ১ লাখ টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে।

 

 

স্থানীয় এলাকাবাসীর অভিযোগ, রাস্তা ও কালভার্ট পুনঃনির্মাণের কোনো কাজই করা হয়নি। অথচ তার বিল তুলে নেওয়া হয়েছে। এ কাজের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য রেজাউল করিম বাচ্চু ও লিটন বিশ্বাস সব টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ রয়েছে।

 

 

সংশ্লিষ্ট কাজের সঙ্গে যুক্ত ইউপি সদস্যরা তাদের বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ঈদের আগে ইউএনও অফিসের লোক সরেজমিন এসে কাজ দেখে তারপর আমাদের বিল দিয়েছেন। অথচ এখন বলা হচ্ছে আমরা কোনো কাজই করিনি।

 

এ বিষয়ে ঈশান গোপালপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম মজনু বলেন, দুটি কাজ নিয়ে অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

ফরিদপুর সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার মো. মাসুম রেজা বলেন, দুটি প্রকল্পে কোনো কাজ না করে বিল উত্তোলনের বিষয়ে আমাদের কাছে অভিযোগ এসেছে।

 

 

বিষয়টি সরেজমিন তদন্তের জন্য একজনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। যদি কাজ না করে বিল তুলে নেওয়ার ঘটনা ঘটে তাহলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তাদের কোনো প্রকার ছাড় দেওয়া হবে না।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]