বেতাগীতে ইউপি নির্বাচন: নৌকার সমর্থকদের কুপিয়েছে বিএনপিকর্মীরা!

Barisal Crime Trace -HR
প্রকাশিত জুন ১৩ রবিবার, ২০২১, ০১:৪৪ অপরাহ্ণ
বেতাগীতে ইউপি নির্বাচন: নৌকার সমর্থকদের কুপিয়েছে বিএনপিকর্মীরা!

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বরগুনার বেতাগী উপজেলার মোকামিয়া ইউনিয়ন পরিষদ নির্বচনকে কেন্দ্র করে সহিংসতার ঘটনা ঘটেছে।

নৌকা প্রার্থীর একাধিক সমর্থককে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে আহত করার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে।

শনিবার (১২ জুন) রাত নয়টায় দিকে উপজেলার মোকামিয়া ইউনিয়নের মোল্লার হাটে এ ঘটনা ঘটে। এতে কমপক্ষে ৩ জন আহত হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার রাত আনুমানিক নয়টার দিকে উপজেলার মোকামিয়া ইউনিয়নের মোল্লার হাট এলাকায় আওয়ামী লীগ সমর্থকেরা নির্বাচনী প্রচারণা শেষে বাড়ি ফেরার পথে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে তাদের ওপর হামলা করে বেতাগী উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সুজন মল্লিকের সমর্থকরা। এসময় বেতাগী উপজেলা বিএনপির সদস্য মিরাজ মুন্সি, মোকামিয়া ইউনিয়ন ছাত্রদলের সদস্য শাওন, ৬ নম্বর ওয়ার্ড ছাত্রদলের সভাপতি বুলেটের ধারালো অস্ত্রের আঘাত গুরুতর আহত হয় নৌকার সমর্থক সজিব, শাকিল ও সাইদুল ইসলাম। এসময় তাদের সাথে থাকা মোটরসাইকেলও ভাঙচুর করে বিএনপি কর্মীরা। গুরুতর আহত ৩ জনকে বেতাগী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে গুরুতর আহত সজিবকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

হামলার বিষয় জানতে চাইলে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জালাল আহমেদ গাজী জানান,’নির্বাচনের শান্তিপূর্ন পরিবেশ বিনষ্ট করার উদ্দেশ্যে উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মাহবুবুল আলম সুজন মল্লিকের সন্ত্রাসী বাহিনী এসব সহিংসতা ঘটাচ্ছে।’

তবে হামলার বিষয়টি অস্বীকার করে উপজেলা বিএনপি’র যুগ্ম আহবায়ক ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সুজন মল্লিক বলেন, ‘সুষ্ঠুভাবে ভোট হলে আমার বিজয় নিশ্চিত জেনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকেরা এ ধরণের সহিংসতা কর্মকাণ্ড করেছে।’

সুজন মল্লিকের নির্বাচন কেন্দ্রীক কোন কর্মকাণ্ডের দায় বিএনপি নেবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে বেতাগী উপজেলা বিএনপির আহবায়ক মো. জলিলুর রহমান খান বলেন, ‘দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করলে এর দায়ভার বিএনপি নেবে না।’

দলীয় সিদ্ধান্ত না মেনে নির্বাচনে অংশ নেয়ায় দলের পক্ষ থেকে সুজন মল্লিকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে কি-না এমন প্রশ্নের জবাবে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট আব্দুল হালিম বলেন, ‘দলীয় সিদ্ধান্ত উপেক্ষা করে কোন কাজ করলে কেন্দ্রীয় শীর্ষ পর্যায়ের নেতৃবৃন্দকে অবহিত করা হবে। তাঁরা সাংগঠনিকভাবে সিদ্ধান্ত নেবেন।’

এ বিষয় জানতে চাইলে বেতাগী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) সাখাওয়াত হোসেন তপু জানান, ‘শান্তিপূর্ন নির্বাচনের পরিবেশে যারা বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]