ভাড়ায় নেয়া গাড়ি বেচে দিলেন সাড়ে ১০ লাখ টাকায়

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত এপ্রিল ১৮ রবিবার, ২০২১, ১১:৩৯ পূর্বাহ্ণ
ভাড়ায় নেয়া গাড়ি বেচে দিলেন সাড়ে ১০ লাখ টাকায়

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রেন্ট-এ-কার ব্যবসায়ী মো. আলালের কাছ থেকে গত বছরের অক্টোবরে ১০টি গাড়ি ভাড়া নেন ব্যবসায়ী কাজী মো. ইসমাইল। ঠিকমতো ভাড়া না দেয়ায় গাড়িগুলো ফেরত চান আলাল। তবে গাড়ি ফেরত দিতে এবং ভাড়া পরিশোধে টালবাহানা শুরু করেন তিনি। বাধ্য হয়ে ইসমাইলের বিরুদ্ধে রাজধানীর খিলক্ষেত থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন আলাল। বহু কষ্টে ইসমাইলের কাছ থেকে নয়টি গাড়ি ফেরত পান তিনি। তবে টয়োটা-এক্স করোলা মডেলের একটি গাড়ি আর ফেরত পাননি। এরমধ্যে লাপাত্তা হয়ে যান ইসমাইলও। ফলে গাড়িটির আশা অনেকটা ছেড়েই দেন আলাল।

কিন্তু ওই বছরের ১০ ডিসেম্বর গাড়ি বিক্রিতে প্রতারণার অভিযোগে আদালতে মামলা করা হয় আলালেরই নামে। বাদী জসিম উদ্দিন মজুমদার নামে এক ব্যক্তি। তার অভিযোগ, ভুয়া কাগজপত্র দেখিয়ে পরস্পর যোগসাজশে গাড়ি বিক্রির প্রতারণা করেছেন কাজী মো. ইসমাইল ও মো. আলাল।

বাদী জসিম উদ্দিন মামলার এজাহারে উল্লেখ করেন, ২০২০ সালের ১৬ নভেম্বর টয়োটা-এক্স করোলা (ঢাকা মেট্রো গ-৩১-০৬৮৮) গাড়িটি কাজী মো. ইসমাইলের কাছ থেকে সাড়ে ১০ লাখ টাকায় কেনেন তিনি। গাড়ির সঙ্গে কাগজপত্রও বুঝিয়ে দেন ইসমাইল। তবে মালিকানা পরিবর্তন করতে গিয়ে বাধে বিপত্তি। বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ (মিরপুর) গাড়ির ক্রেতা জসিমকে জানায়, ইসমাইল গাড়িটির মালিক নন। এর মূল মালিক মো. আলাল নামে এক ব্যক্তি। যদি মালিক আলাল সশরীরে বিআরটিএ অফিসে এসে কাগজপত্রে স্বাক্ষর করেন, তবেই মালিকানা পরিবর্তন সম্ভব। জসিম উদ্দিন বিষয়টি ইসমাইলকে জানালে তিনি এ নিয়ে তার সঙ্গেও টালবাহানা শুরু করেন। একপর্যায়ে নিজের মোবাইল নম্বরও বন্ধ করে দেন ইসমাইল।

এদিকে ক্রেতা জসিম উদ্দিনের মামলার পর পাল্টা মামলা করেন গাড়ির মূল মালিক মো. আলাল। গাড়ি ভাড়া নিয়ে ফেরত না দেয়া এবং গাড়ি চুরির অভিযোগ এনে করা ওই মামলায় আলাল আসামি করেন ইসমাইল ও জসিম উদ্দিনকে।

দু’পক্ষের মামলার কাগজ ও গাড়ি ক্রয়-বিক্রয় চুক্তিনামা, হলফনামা, মালিকানা পরিবর্তন করার কাগজ ও খিলক্ষেত থানায় সাধারণ ডায়েরির (জিডি) কপিসহ বেশ কিছু নথি হাতে এসেছে। নথিগুলো বিশ্লেষণ করে গাড়ি ভাড়া নিয়ে বেচে দেয়ার এ ঘটনাটি জানা গেছে।

jagonews24




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃbarishalcrimetrace@gmail.com