ক্লাব দখলকে কেন্দ্র করে আমতলীতে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত এপ্রিল ২২ বৃহস্পতিবার, ২০২১, ০৮:০৮ অপরাহ্ণ
ক্লাব দখলকে কেন্দ্র করে আমতলীতে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ

জসিম উদ্দিন জুয়েল, টঙ্গী (গাজীপুর) : গাজীপুর-২ আসন থেকে দুইবারের নির্বাচিত জনপ্রিয় সংসদ সদস্য এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আস্তাভাজন বীরমুক্তিযোদ্ধা শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার হত্যাকান্ডের প্রধান স্বাক্ষী, শহীদ সুমন আহমেদ মজুমদারের স্মরণে টঙ্গীর ৪৬নং ওয়ার্ড আমতলী কেরানিরটেক একটি ক্লাব নির্মিত হয়। শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টারের সুযোগ্য সন্তান যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী আলহাজ্ব জাহিদ আহসান রাসেল এমপির স্নেহের ছোট ভাই, মরহুম জাবিদ আহসান সোহেল ক্লাবটির শুভ উদ্বোধন করেছিলেন। সেই ক্লাবটির দখল ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে গত বুধবার রাত সাড়ে ৮টায় দুই গ্রুপের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে পুরো এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। এতে প্রায় ১০/১২জন আহত হয়। তাদেরকে স্থানীয় শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আহতরা হলেন, মনির আহমেদ মজুমদার (৫০), কবির আহমেদ মজুমদার সাদ্দাম (২৫), বিপ্লব মজুমদার (৩২), আবু সাইদ (২৪), রাসেল (২০), আকাশ (২০), সিয়াম (২১) ও রানা (২২)। এদের মধ্যে কবির আহমেদ মজুমদার সাদ্দাম, বিপ্লব মজুমদার এবং আবু সাইদের অবস্থা বেশি খারাপ হলে তাদেরকে ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, শহীদ সুমন আহমেদ মজুমদারের বাবা মনির আহমেদ মজুমদার এবং কবির আহমেদ মজুমদার সাদ্দাম, বিপ্লব মজুমদার, আবু সাইদসহ অন্যান্যরা ক্লাবটি সংস্কার কাজ করতে গেলে তাদের সাথে অপরপক্ষ আক্তার হোসেন, নুর মোহম্মদ, রোকেয়া বেগম সহ অন্যান্যরা বিরোধে জড়িয়ে পড়ে এবং ক্লাবটি দখল নিতে তারা দু’টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে যায়। এ সকল বিষয় নিয়ে উভয় গ্রুপকে গাজীপুর মহানগর আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি শান্তিশৃঙ্খলা রক্ষার পাশাপাশি মিমাংশার জন্য উভয় পক্ষকে তার সাথে স্বাক্ষাত করতে নির্দেশ দেন।

গত মঙ্গলবার রাতে এ সকল বিষয় নিয়ে মনির আহমেদ মজুমদার তার লোকজন নিয়ে মতিউর রহমান মতির বাসায় যাওয়ার পথে পূর্ব থেকে উৎপেতে থাকা আক্তার হোসেন, নূর মোহাম্মদ ও কামালের নেতৃত্বে ৪০/৫০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী দেশীয় অস্ত্রসহ অতর্কিত হামলা চালায় এবং ফাঁকা গুলি ও ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে পুরো এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি হয়।

এ বিষয়ে গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ পুলিশ কমিশনার (অপরাধ দক্ষিন) ইলতুৎ মিশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

এ ব্যাপারে টঙ্গী পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ মো: জাবেদ মাসুদ টঙ্গী প্রতিনিধিকে জানান, আমরা রাতেই এলাকাবাসীর নিরাপত্তায় পুলিশি ব্যবস্থা জোরদার করেছি। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক আছে। পাশাপাশি এই ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। অপরাধের সাথে যারাই জড়িত থাকুক না কেনো তাদেরকে দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]