দেশের সব জেলায় গণপরিবহন চালু, সাধারণ মানুষের স্বস্তি

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত মে ৬ বৃহস্পতিবার, ২০২১, ০৩:৫৭ অপরাহ্ণ
দেশের সব জেলায় গণপরিবহন চালু, সাধারণ মানুষের স্বস্তি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ রাজধানীসহ দেশের সব জেলায় আজ সকাল থেকে গণপরিবহন চলাচল শুরু হয়েছে। দীর্ঘ ২২ দিন বন্ধ থাকার পর ভোর থেকেই নগরীর সব রাস্তায় গণপরিবহন চলাচল শুরু হওয়ায় রাজধানীর সড়ক তার চিরচেনা রূপে ফিরেছে। সহজে চলাচল করতে পাড়ায় নগরবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। আবার অন্যদিকে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়েছে।

 

তবে অনেক জায়গাতেই স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষিত ছিল। রাজধানীর পাশাপাশি দেশের অন্য সব জেলাতেও গণপরিবহন চলাচল শুরু হয়েছে। তবে আন্তঃজেলা বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

 

স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে গণপরিবহন চালানোর কথা থাকলেও রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে গণপরিবহনে এই বিষয়টি একেবারেই উপেক্ষিত ছিল।

 

বেশিরভাগ গণপরিবহনে চালক ও হেলপার মাক্স পড়ে থাকলেও অনেককে মাক্স ব্যবহারের ব্যাপারে অসচেতনতা দেখা গেছে। অথচ নির্দেশনা রয়েছে- মাস্ক ছাড়া কোনো যাত্রী গাড়িতে উঠতে পারবে না। কোনো যাত্রীর সঙ্গে মাস্ক না থাকলে সংশ্লিষ্ট পরিবহন এর পক্ষ থেকে মাস্ক সরবারহ করা হবে।

 

কিন্তু প্রথম দিনেই অনেক যাত্রী মুখে মাস্ক ছিল না। অনেকেরই মাক্স পড়ার ব্যাপারে অনীহা লক্ষ্য করা গেছে। সব বাসে সিটের অর্ধেক যাত্রী বহনের নির্দেশনা থাকলেও অনেক বেশি আবার এক সিটে দুইজন যাত্রী বহন করতেও দেখা গেছে।

 

ঢাকা সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার এনায়েত উল্যাহ জানান, আমরা সরকারের দেওয়া নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে রাজধানীসহ সব জেলায় গণপরিবহন চলাচলের নির্দেশনা দিয়েছি। আমরা অবশ্যই এসব নির্দেশনা মেনে গাড়ি চালাবো। সরকারের দেওয়া নির্দেশনায় আন্তঃজেলা রুটের সব বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে।

 

এদিকে, সকাল থেকে গণপরিবহন চলাচল করায় নগরবাসীর মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। মোহাম্মদপুর বাস স্ট্যান্ডে আফজালুর রহমান জানান, লকডাউনের মধ্যে বনানীতে তার অফিসে প্রতিদিন আসা-যাওয়ায় ৪৫০ টাকা থেকে ৫০০ টাকা লেগেছে। গণপরিবহন চালু হওয়ায় এখন তিনি খুবই কম খরচে বাসে অফিসে যেতে পারবেন। এটা অনেকটাই স্বস্তির ব্যাপার। স্বাস্থ্যবিধি মেনে গণপরিবহন চালু রাখতে সরকারের ব্যবস্থা নেওয়া উচিত।

 

তবে ধারণক্ষমতার অর্ধেক আসনে যাত্রী পরিবহন করায় বাসে উঠতে অনেক সময় লাগছে। অনেক সময় ধরে বাসস্ট্যান্ডে লাইন ধরে অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

 

নগরীর বিভিন্ন স্থানের বাসস্ট্যান্ডে বাসে উঠার সময় লোকজনকে স্বাস্থ্যবিধি মানার ব্যাপারে কোনো ধরনের আগ্রহ ছিল না। লোকজন বাসে উঠার জন্য হুড়োহুড়ি করেছে। অনেকের মুখেই মাস্ক ছিল না। ব্যক্তিগত দূরত্ব বজায় রাখতে কারো কোনো বালাই দেখা যায়নি।

 

এদিকে, সড়কে গণপরিবহন চলাচল স্বাভাবিক হওয়ায় রাজধানীর সড়কগুলো আবার স্বরুপে ফিরে এসেছে। সকাল থেকে রাজধানীর সব শহরে যানজট বেড়েছে। প্রতিটি সিগন্যাল পার হতে অনেক সময় পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হচ্ছে।

 

এর আগে ১৪ মার্চ থেকে গণপরিবহন, ট্রেন ও লঞ্চ চলাচল বন্ধ করে সবাত্মক লকডাউন ঘোষণা করা হয়। পরে এই লকডাউন কয়েক দফায় বাড়িয়ে ১৬ মে পর্যন্ত ঘোষণা করা হয়। তবে ফের ৬ মে থেকে গণপরিবহন চলাচলের নির্দেশনা দেওয়া হয়।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]