বরিশালে ঘুষ দিয়েও বিনামূল্যের সরকারি চাল পাচ্ছেন না জেলেরা!

Barisal Crime Trace
প্রকাশিত জুন ৫ শনিবার, ২০২১, ০৯:৫৯ অপরাহ্ণ
বরিশালে ঘুষ দিয়েও বিনামূল্যের সরকারি চাল পাচ্ছেন না জেলেরা!

বরিশালক্রাইমট্রেস ডেস্কঃ বরিশালের বাবুগঞ্জের চাঁদপাশা ইউনিয়নের গাজীপুর গ্রামের বাসিন্দা আবদুস সালামের বাড়িতে ৩টি পরিবার জেলেদের কার্ড পেয়েছে। এজন্য কার্ডপ্রতি নেয়া হয়েছে ২ হাজার করে ৬ হাজার টাকা।

স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ইউপি চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান সবুজের মাধ্যমে এই কার্ড গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানায় ভুক্তভোগী পরিবার। যদিও সরকারি নিয়ম অনুসারে অর্থের বিনিময়ে কার্ড নেওয়ার সুযোগ নেই বলে জানান জেলা মৎস্য অফিসার। পাশাপাশি দুই কিস্তিতে ৮০ কেজি চাল পাবে কার্ডধারী জেলেরা।

তবে এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন চাঁদপাশা ইউনিয়ন চেয়ারম্যান আনিসুর রহমান সবুজ। তিনি জানান, এ বছর ৩৪১ জনকে জেলে কার্ড বিতরণ করা হয়েছে। আর এ ইউনিয়নে জেলে কার্ড রয়েছে ৭ শতাধিক।

অর্থের বিনিময়ে কার্ড বিতরণের বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, এই কার্ড আমার আমলে দেয়া হয়নি। আগের চেয়ারম্যানের সময় দেয়া হয়েছে। আর কাউকে চালও কম দেয়া হয়নি। সবাই ৪০ কেজি করে চাল পেয়েছেন।

একই উপজেলার দেহেরগতি ইউনিয়নেও চাল কম দেওয়ার অভিযোগ করেছেন জেলেরা। কার্ডপ্রতি ২ মাসের ৮০ কেজি চাল দেওয়ার কথা থাকলেও দেয়া হচ্ছে ৬০ কেজি করে।

কার্ডধারী জেলেরা অভিযোগ করেন, চাল বিতরণে স্বজনপ্রীতির কারণে প্রকৃত জেলেরা চাল সহায়তা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

তবে জেলেদের সঠিকভাবে চাল বিতরণ করা হয়েছে দাবি করে দেহেরগতি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মশিউর রহমান বলেন, যারা চাল পাননি তারা মিথ্যা অভিযোগ ছড়াচ্ছেন।

উপজেলা মৎস্য অফিসার সাইদুজ্জামান বলেন, চাল বিতরণে অনিয়মের অভিযোগ পেয়ে সরেজমিন তদন্ত করা হচ্ছে। শুধু বাবুগঞ্জ উপজেলা নয়, বরিশালের ১০ উপজেলার সব ইউনিয়নেই জেলেদের চাল বিতরণে অনিয়ম ও কার্ড প্রাপ্তিতে অর্থ লেনদেন হয়েছে।

গত ৪ মে জেলার মুলাদী উপজেলায় চাল বিতরণে অনিয়মের প্রতিবাদ করায় দরিদ্র জেলেদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। অভিযোগ রয়েছে- চরকালেখান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. মোহসিন উদ্দিন খানের নির্দেশে তার লোকজন হামলা চালিয়ে ৫ জেলেকে আহত করে।

যদিও চরকালেখান ইউপি চেয়ারম্যান মোহসিন উদ্দিন খান বলেছেন, জেলে কার্ড ছাড়া এক শ্রমিককে এক বস্তা চাল দেয়া হয়েছিল। এতে দলীয় প্রতিপক্ষরা সুযোগ পেয়ে যায়। বিষয়টি নিয়ে তারা আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। তারা জেলেদের দিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করিয়েছে। তবে আমার কোনো লোক কারও ওপর হামলা করেনি। হামলার নাটক সাজানো হয়েছে।

জেলেদের জন্য সরকারিভাবে বরাদ্দকৃত বিনামূল্যে খাদ্য সহায়তার (বিশেষ ভিজিএফ) পুরো চাল করোনা সংকটের মুহূর্তেও আত্মসাৎ করার অভিযোগ ওঠে গৌরনদী উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে। পরে এ অপকর্ম ঢাকতে ওই চেয়ারম্যান চালের পরিবর্তে তালিকাভুক্ত কয়েকজন কার্ডধারীর মাঝে নগদ অর্থ বিতরণ করেছেন।

উপজেলার বার্থী ইউনিয়নের সদস্য (মেম্বার) বজলুর রশিদ অভিযোগ করেন, বার্থী ইউনিয়নে ৮০ জন জেলের প্রত্যেকের নামে বরাদ্দকৃত চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি ও মার্চ মাসের ৮০ কেজি চাল সঠিকভাবে বণ্টন করা হয়নি। চাল বিতরণে নানা অনিয়ম ও দুর্নীতি করেছেন চেয়ারম্যান শাহজাহান প্যাদা।

এ কারণে আমার ওয়ার্ডের অধিকাংশ জেলে গত দুই মাসের বরাদ্দকৃত চাল পাননি। জেলেদের চাল বিতরণের অনিয়মের বিষয়টি জানাজানি হওয়ার পর চেয়ারম্যান বার্থীসহ বিভিন্ন এলাকার কিছুসংখ্যক জেলের মাঝে ৫০০ থেকে এক হাজার টাকা করে বিতরণ করেছেন। পশ্চিম বার্থী গ্রামের ২৭ জন জেলেকে চালের বদলে নগদ এক হাজার টাকা প্রদান করা হয়েছে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

তবে জেলেদের চাল আত্মসাৎ ও তাদের মাঝে চালের পরিবর্তে টাকা প্রদানের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন বার্থীর ইউপি চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান প্যাদা।

তিনি জানান, আমি কোনো অনিয়ম করিনি, আমার ইউনিয়নে ৮০ জন জেলের নামে বরাদ্দকৃত ২ মাসের চাল আমি ১৬০ জন জেলের মাঝে ভাগ করে দিয়েছি।

বরিশাল জেলা মৎস্য অফিস সূত্রে জানা গেছে, জেলার ৭৫ হাজার ১২৬টি নিবন্ধিত জেলে পরিবারের জন্য চাল বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির আওতায় প্রত্যেক পরিবারকে ৪০ কেজি করে চাল দেয়ার সরকারি নির্দেশনা রয়েছে।

এ ব্যাপারে বরিশাল জেলা মৎস্য অফিসার মো. আসাদুজ্জামান বলেন, কার্ড প্রাপ্তিতে অর্থ বিনিময়ের কোনো অভিযোগ তিনি পাননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

তিনি বলেন, যদি কেউ জনপ্রতিনিধিকে টাকা দিয়ে কার্ড নিয়ে থাকেন তবে তারা ভুল করেছেন। কারণ জনপ্রতিনিধিদের হাতে জেলে কার্ড নেই। এটি একটি কমিটির মাধ্যমে পাস হয়। প্রতি জেলে দুই কিস্তিতে ৮০ কেজির বেশি চাল পাবেন। জেলেদের চাল কম দেয়া হলেও তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জেলা মৎস্য অফিসার জানান।




আপনার চারপাশে ঘটে যাওয়া নানা খবর, খবরের পিছনের খবর সরাসরি বরিশাল ক্রাইম ট্রেস”কে জানাতে।
ই-মেইল করুনঃ[email protected]